বাড়ি সম্পাদকের কলাম *নাসিরের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পরীমণির বিচার প্রার্থনা*

*নাসিরের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পরীমণির বিচার প্রার্থনা*

62
*নাসিরের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পরীমণির বিচার প্রার্থনা*

*পরীমণি বলছেন, আমি যদি মরে যাই সেটা হত্যা হবে, আত্মহত্যা নয়*
*রবিবার (১৩ জুন) রাত ৮টার দিকে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর বিচারের দাবি চেয়ে একটি পোস্ট দেন পরীমণি। অভিযোগ করেন, তাকে এক প্রভাবশালী ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা করেছিল চারদিন আগে, ঢাকা বোট ক্লাবে।*

*এমন বিস্ফোরক অভিযোগের ঠিক দুই ঘণ্টার মাথায় নিজ বাসায় বসে সাংবাদিকদের কাছে সেই অভিযুক্তর নাম প্রকাশ করেন পরী। নাম নাসির ইউ মাহমুদ। যিনি উত্তরা ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং বর্তমানে ঢাকা বোট ক্লাবের এন্টারটেইনমেন্ট এন্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্স সেক্রেটারি পদে আছেন।*

*রবিবার (১৩ জুন) রাতে পরীমণি নিজ বাসায় পুরো ঘটনার বর্ণনা করতে গিয়ে বার বার কান্নায় ভেঙে পড়েন। সাংবাদিকদের কাছে বার বার বলেন, ‘আমি যদি মরে যাই সেটা হত্যা হবে, আত্মহত্যা নয়। কারণ, আমি আত্মহত্যা করার মতো মেয়ে নই। আমি এই অন্যায়ের বিচার চাই। এর বিচার দেখে মরতে চাই। আর যদি আমাকে কেউ হত্যা করে, তখন আপনাদের কাছে সেই বিচারের ভার দিয়ে গেলাম। আবারও বলছি, আজ যদি আমি মরে যাই, তো সেটি আত্মহত্যা হবে না। ধরে নেবেন আমাকে হত্যা করা হয়েছে।’*

*আরও বলেন, ‘আমি এখন খুব বিশ্বাস করি, একজন সাধারণ মেয়ে যদি ভিকটিম হয়, আত্মহত্যা ছাড়া তার আর কোনও পথ খোলা থাকে না। সাধারণ মেয়ে হিসেবে গত ৪ দিন ধরে অনেকের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি, কেউ সহযোগিতা করেনি। একজন পরীমণি হিসেবে ফেসবুকে যখন স্ট্যাটাস দিলাম তখনই মিডিয়া এসেছে।’*

*পরীমণি জানান, সেদিন রাতে বোট ক্লাবে কী ঘটেছিল। পরীর মুখ থেকে পুরো ঘটনার সংক্ষেপ টাইমলাইন এমন- বুধবার (৯ জুন) রাতে পূর্বপরিচিত অমির সঙ্গে উত্তরার বোট ক্লাবে যান তিনি। সেখানে গিয়ে দেখেন নাসির ইউ মাহমুদসহ চার-পাঁচজন টেবিলে বসে আছেন। তাদের সঙ্গে পরীমণির পরিচয় করিয়ে দেন অমি নামের একজন। মূলত এই অমির সূত্র ধরেই সেদিন বোট ক্লাবে যান পরী। তো বোট ক্লাবে সেদিন টেবিলে মদের বোতল ছিল। পরীকে নাসির ইউ মাহমুদ মদপানের প্রস্তাব দিলে সেটি নাকচ করেন তিনি। এরপর তাকে কফি খেতে দেওয়া হয়।*

*পরী জানান, কফির কাপে তিনি আনন্দ নিয়ে চুমুক দিলেও স্বাদ খানিক অস্বাভাবিক মনে হয় তার। তাই তিনি কফি পান আর করেননি। এমনকি টেবিলে থাকা ঠাণ্ডা পানীয়তেও তিনি মুখ দেননি। বিপরীতে বার বার এগুলো পান করার জন্য তাগিদ দিচ্ছিলেন নাসির ইউ মাহমুদ। সেটি না শোনায় পরীর ওপর ক্ষিপ্ত হন নাসির ইউ মাহমুদ। এরপর পরীমণি টেবিল থেকে উঠে ওয়াশরুমে যেতে চাইলে বাধা দেওয়া হয়। এরপর বাসায় যেতে চাইলেও বাধা দেওয়া হয়।*

*পরীমনির অভিযোগ, নাসির ইউ মাহমুদ তাকে লাথি মেরে চেয়ার থেকে ফেলে দেন এবং মুখের ভেতর জোর করে মদের বোতল ঢুকিয়ে দেন। এতে তার দাঁতে আঘাত লাগে এবং কিছু মদ গলায় যায়। এতে তার গলা ও বুক জ্বলে। তিনি তখনই খানিক অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরীমণি ও তার সঙ্গে থাকা জেমী তখন চিৎকার ও কান্না শুরু করলে তাদের ধর্ষণ করার হুমকি দেওয়া হয় এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করা হয়।*

*একটা সময় তারা সেখান থেকে ছাড়া পেলে সঙ্গে সঙ্গে বনানী থানায় লিখিত অভিযোগ জানান পরী। তার অভিযোগ, থানা তার অভিযোগ গ্রহণ করেনি। পুলিশ বলছে, তারা পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন।*

*প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে দীর্ঘ এক স্ট্যাটাস:*

*প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে দীর্ঘ এক স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে মা ডেকে তার কাছে সঠিক বিচার ও মেয়ে হিসেবে আশ্রয় চেয়েছেন পরীমণি। রোববার (১৩ জুন) রাত ৮টার দিকে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ স্ট্যাটাস দেন পরীমণি।*

*ফেসবুকে দেয়া ওই স্ট্যাটাসে পরীমণি লেখেন,*
*“বরাবর, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমি পরীমণি। এই দেশের একজন বাধ্যগত নাগরিক। আমার পেশা চলচ্চিত্র। আমি শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছি। আমাকে রেপ এবং হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই। এই বিচার কই চাইবো আমি? কোথায় চাইবো? কে করবে সঠিক বিচার? আমি খুঁজে পাইনি চার দিন ধরে। থানা থেকে শুরু করে আমাদের চলচ্চিত্র বন্ধু বেনজীর আহমেদ আইজিপি স্যার! আমি কাউকে পাই না মা। যাদের পেয়েছি সবাই শুধু ঘটনার বিস্তারিত জেনে, দেখছি বলে চুপ হয়ে যায়!”*

*তিনি আরও লেখেন, “আমি মেয়ে, আমি নায়িকা, তার আগে আমি মানুষ। আমি চুপ করে থাকতে পারি না। আজ আমার সাথে যা হয়েছে তা যদি আমি কেবল মেয়ে বলে, লোকে কী বলবে এই গিলানো বাক্য মেনে নিয়ে চুপ হয়ে যাই, তাহলে অনেকের মতো (যাদের অনেক নাম এক্ষুণি মনে পড়ে গেল) তাদের মতো আমিও কেবল তাদের দল ভারী করতে চলেছি হয়তো। আফসোস ছাড়া কারোর কি করার থাকবে তখন! আমি তাদের মতো চুপ কি করে থাকতে পারি মা? আমি তো আপনাকে দেখিনি চুপ থেকে কোনো অন্যায় মেনে নিতে! আমার মা যখন মারা যান তখন আমার বয়স আড়াই বছর। এতদিনে কখনো আমার এক মুহূর্ত মাকে খুব দরকার এখন, মনে হয়নি এটা। আজ মনে হচ্ছে, ভীষণ রকম মনে হচ্ছে মাকে দরকার, একটু শক্ত করে জড়িয়ে ধরার জন্য দরকার। আমার আপনাকে দরকার মা। আমার এখন বেঁচে থাকার জন্য আপনাকে দরকার মা। মা আমি বাচঁতে চাই। আমাকে বাঁচিয়ে নাও মা।”*

*ব্লগার সুষুপ্ত পাঠকের মন্তব্য প্রতিক্রিয়া:*
*চিন্তা করতে পারেন দেশের আইন আদালত ব্যবসায়ী আর লিডারদের আন্ডারওয়্যারের কতটা নিচে চলে গেছে যে অভিনেত্রী পরীমনি তাকে রেপ ও নির্যাতনের বিচার চাইতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন করতে হচ্ছে!*

*মাত্রই আমরা দেখেছিলাম কার্টুনিস্ট কিশোরের শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন খুঁজে পায়নি মেডিকেল বোর্ড। বসুন্ধরার এমডিকে পুলিশ খুঁজে না পেলেও সাংবাদিকরা তাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়। কাজেই দেশের মানুষের শেষ ভরসা প্রধানমন্ত্রী। মানুষ এখন জামিনের জন্য আদালত নয়, প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে! প্রধানমন্ত্রীকে সবাই ধন্যবাদ জানায়। পরীমনি সিনেমায় কাজ করে তাকে কোন ধনীর দুলাল, কোন বিজনেস আইকন, কোন লিডার রেপ নির্যাতন করেছে, সে জানে তার বিচার করার মত হেডম বাংলাদেশের নেই! বাংলাদেশে এখন চাইলে এই শ্রেণী আপনাকে মেরে টুকরো টুকরো করে ফেলতে পারে আইন আদালত তাকে ছুঁয়েও দেখবে না। এবং এর কোন পরিবর্তন হবেও না।*

*কেন পরিবর্তন হবে না? একজন কার্টুনিস্ট তিনি শুধুমাত্র কার্টুন আঁকার কারণে এতখানি মারপিট খাওয়ার পর আপনি কি করেছিলেন? আপনার অপছন্দ বলে তার উপর চালানো অন্যায়কে জায়েজ করতে ভিকটিম কত খারাপ সেই গল্প শুরু করেছিলেন।*

*এখন যখন জানবেন পরীমনির ধর্ষক আপনার টিমের লোক বা আপনার চেতনার লোক- তখন এই আপনিই দেখাবেন পরীমনি কোথায় কোথায় ‘খ্যাপ’ নিতে যেত! সে কত খারাপ! তার ফটোশুট দেখিয়ে বুঝাতে চাইবেন সে আসলে বেশ্যা…। মানে যদি কেউ তাকে রেপ করেও থাকে সেটা কোন অন্যায় নয়। এইজন্যই পরিবর্তন আসবে না।*

*হে জনগণ, খালি আপনার পালা যখন আসবে তখন শুধু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাহায্য চাইবেন। কিন্তু তিনি একা মানুষ কত দিক আর দেখবেন বলুন?*

*বন্ধুরা, পরীমণির মতো জনপ্রিয় অভিনেত্রী যখন একজন ক্ষমতবান ব্যবসায়ীর দ্বারা আক্রান্ত হন। তখন সাধারণভাবে বিচার পাওয়া সম্ভব নয় বলেই তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার প্রার্থনা করেছেন। এখানে আবারো প্রমাণ হলো মুমিন সমাজে নারীরা অহরহ নির্যাতিত হয়, এই নির্যাতনের বিচার পাওয়া নির্যাতিত নারীদের পক্ষে সম্ভব নয়। ইতিমধ্যেই মুমিনরা অভিনেত্রী পরীমণির বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। কারণ নারীকে বাদী বা দাসী হিসেবেই মুমিনরা পছন্দ করে।*

*১৪ জুলাই, ২০২১, বাংলাদেশ।*

পূর্ববর্তী নিবন্ধ*অবশেষে ফেসবুক বাংলাদেশে ভ্যাট নিবন্ধন নিতে পারলো*
পরবর্তী নিবন্ধ*১৪ জুলাই যেসব চ্যানেলে যেসব খেলা দেখতে পাবেন*