স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

*ঘরের যেসব উদ্ভিদের কারণে রাতে ঘুম ভালো হয়*

*সবার ঘরেই কিছু না কিছু জায়গা থাকে যেখানে ছোট ছোট গাছ লাগিয়ে শোভা বাড়ানো যায়। এমন কিছু অভ্যন্তরীণ উদ্ভিদ আছে, যা ন্যূনতম জায়গা নেয়, এমনকি কম রোদের প্রয়োজন হয়। উদ্ভিদগুলো শুধু সৌন্দর্যেই নয়, বরং স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। তাছাড়া ঘরের সবুজ প্রকৃতি, স্বাচ্ছন্দ্য এবং মন শান্ত বোধ করতে সহায়তা এমনকি প্রতিদিনের মেজাজকেও চাঙা করে।*

*২০০৭ সালে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে নাসার বিস্তৃত গবেষণা থেকে জানা গেছে কিছু অভ্যন্তরীণ উদ্ভিদ আছে, যা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৮৭ শতাংশ বায়ুতে টক্সিন অপসারণ করতে পারে। সেই গবেষণায় আরও প্রমাণিত হয়েছে যে অভ্যন্তরীণ উদ্ভিদের ঘনত্ব মানুষের কর্মক্ষমতা ১৫ শতাংশ উন্নতি করে, মানসিক চাপের মাত্রা হ্রাস করে এবং মন-মেজাজকে ঝরঝরে করে তোলে।*

*গাছপালা সাধারণত দিনে অক্সিজেন দেয় এবং রাতে সালোকসংশ্লেষণ বন্ধ হয়ে গেলে বেশির ভাগ উদ্ভিদই কার্বন ডাই-অক্সাইড ছাড়ে। তবে স্নেক প্ল্যান্ট, অর্কিড, সাকুল্যান্টস বা ব্রোমেলিয়েডের মতো উদ্ভিদগুলো রাতে অক্সিজেন নির্গত করে। এই উদ্ভিদগুলো বেডরুমের জন্য সবচেয়ে ভালো।*

*স্নেক প্ল্যান্ট রাতে সবচেয়ে ভালো ভূমিকায় থাকে। বাতাস থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড শোষণ করে এবং রাতেই অক্সিজেন ছাড়ে সবচেয়ে বেশি। ভালো ঘুমের জন্য খুব কার্যকরী এই উদ্ভিদ। এ ছাড়া এই উদ্ভিদ এয়ার কন্ডিশন থেকে নির্গত ফরমালডিহাইড দূর করে। খুব বেশি পরিচর্যার প্রয়োজন পড়ে না। রোদ, ছায়া বা পানিশূন্য স্থানে ভালোভাবেই বেড়ে উঠতে পারে স্নেক প্ল্যান্ট। এমনকি সহজে মরেও না।*

*অর্কিড রাতে অক্সিজেন ছাড়ে। তাই ভালো ঘুমের জন্য বেডরুমের আরেকটি জীবন্ত শোপিস অর্কিড। অর্কিডের ফুল বিভিন্ন রঙের হয়ে থাকে এবং এই ফুল সাধারণত দীর্ঘদিন থাকে। কোনো কোনো অর্কিডের ফুলে মৃদু সুগন্ধও থাকে, যা মেজাজকে আরও চাঙা করে। তবে অর্কিডের বিশেষ কিছু যত্ন নিতে হয়।*

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button