প্রচ্ছদ অর্থ-বাণিজ্য তারেক-সিথির টানাটানিতে সম্পদ ওয়াকফ করছেন খালেদা

তারেক-সিথির টানাটানিতে সম্পদ ওয়াকফ করছেন খালেদা

58
তারেক-সিথির টানাটানিতে সম্পদ ওয়াকফ করছেন খালেদা

সরকারের নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি পেয়ে গুলশানের ভাড়াবাড়িতে আরাম-আয়েশে জীবন যাপন করেছেন দুর্নীতি মামলার আসামি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির রাজনীতিতে কোনো হস্তক্ষেপ না করলেও তিনি এখন পারিবারিক সম্পত্তির সুষ্ঠু ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করে সময় পার করছেন। জানা গেছে, জিয়া পরিবারের সম্পত্তি নিয়ে তারেক-শর্মিলার দ্বন্দ্বে চরম অসন্তুষ্ট বেগম জিয়া। তাই পারিবারিক সম্পদ কারো মাঝে বণ্টন না করে বরং ওয়াকফ করে দিবেন বলেও প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপি নেত্রী।
বিএনপি ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্র বলছে, বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল থাকায় তিনি আপাতত রাজনীতি নিয়ে চিন্তা করছেন না। রাজনীতির চেয়ে সম্পদের ভাগাভাগি নিয়ে তারেক-শর্মিলার দ্বন্দ্ব বেগম জিয়াকে বেশি পোড়াচ্ছে। সম্পদ লোভ যে পারিবারিক বন্ধন ছিন্নভিন্ন করে দেয়, তারেক-শর্মিলার দ্বন্দ্বে সেই বিষয়ে হাতেনাতে প্রমাণ পেয়েছেন বেগম জিয়া।

সম্পদের লোভে তারেক-শর্মিলার মধ্যে দা-কুমড়ো সম্পর্ক বিদ্যমান। বিষয়টি নিয়ে জিয়া পরিবারের মধ্যেও টানাপোড়ন শুরু হয়েছে। এই সম্পদের ভাগাভাগির দ্বন্দ্বে বেগম জিয়ার খোঁজ রাখছে না কেউ। সম্পদ তাদের কাছে মুখ্য হয়ে উঠেছে, বেগম জিয়া তাদের কাছে গৌণ। বেগম জিয়ার সম্পদ হাতিয়ে নিতে প্রতিযোগিতায় নেমেছে তারেক ও শর্মিলা। সম্পদের কাছে মানুষ মূল্যহীন, সেটি হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন বেগম জিয়া। সম্পদ এখন বেগম জিয়ার কাছে বিষের মতো হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই জিয়াউর রহমান ও নিজের অর্জিত সম্পদ সন্তান-আত্মীয় স্বজনদের মাঝে বিতরণ না করে তা ওয়াকফ করে দিতে চান। প্রয়োজনে নিজেদের নামে দাতব্য সংস্থা গঠন করে সমস্ত সম্পদ সেখানে দান করবেন বেগম জিয়া।
জানা গেছে, শুধু তারেক-শর্মিলাই নন বেগম জিয়ার ভাই-বোনরাও তার সম্পদের কিছু অংশ দেখভালের নামে কিছু হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন। বিশেষ করে ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার সৌদি আরব ও মালয়েশিয়ায় বেগম জিয়ার বিনিয়োগ করা সম্পদ দেখভাল করতে চান বলে ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন। পরিবার-পরিজনের সম্পদের লোভে ত্যক্ত-বিরক্ত বিএনপি নেত্রী। লোভাতুর স্বজনদের আসল চেহারা উন্মোচিত হওয়ার মনকষ্টে ভুগছেন বেগম জিয়া। যেই সম্পদ নিয়ে এতো হানাহানি, মন কষাকষি- সেই সম্পদ তিনি কাউকে দিবেন না। যার কারণে যাবতীয় সম্পদ দান করে দেয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বেগম জিয়া।