প্রচ্ছদ রাজনীতি *শত কোটি টাকায় তারেককে কিনলো জামায়াত?*

*শত কোটি টাকায় তারেককে কিনলো জামায়াত?*

113
*শত কোটি টাকায় তারেককে কিনলো জামায়াত?*

*১৮ জুলাই বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে জামায়াতকে ছাড়তে দলীয় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে পরামর্শ দেন বিএনপি নেতারা। এরপরও জামায়াতের বিষয়ে নীরব তারেক। জামায়াত প্রসঙ্গে তারেকের নীরবতা নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনা হলেও এবার বেরিয়ে এসেছে থলের বিড়াল। গুঞ্জন উঠেছে, ১০০ কোটি টাকার প্রলোভনে পড়ে জামায়াতকে ছাড়তে চাইছেন না তারেক।*
*বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২০২৩ সালের নির্বাচন পর্যন্ত জামায়াতকে ২০ দলে রাখতে হবে-এই শর্তে তারেককে ১০০ কোটি টাকা দেয়ার প্রলোভন দেখানো হয়েছে। আর এই প্রলোভনে পড়েই শত গঞ্জনা ও বিরোধিতা অতিক্রম করে তারেক জামায়াতের ভাগ্য নির্ধারণ নিয়ে শত চাপ উপেক্ষা করে চলছেন।*

*বিশেষ করে লন্ডনস্থ পাকিস্তান দূতাবাসের বিশেষ অনুরোধ ও জামায়াতের আর্থিক অফারের বিষয়টি বিবেচনা করেই তারেক দলটির সঙ্গ ছাড়তে খামখেয়ালি করছেন। ভবিষ্যত লাভের বিষয়টি বিবেচনা করেই জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ নিয়ে দলীয় সিদ্ধান্ত যতদিন পারবেন ততদিন ঝুলিয়ে রাখবেন। আর এসব শর্তে তারেক রাজি হলে পাকিস্তান দূতাবাসের সহায়তায় লন্ডনে নির্বাসিত জামায়াত নেতাদের মাধ্যমে এই অর্থ পরিশোধ করা হবে। এছাড়া বৈশ্বিক রাজনীতির প্রেক্ষাপটে জামায়াতকে ত্যাগ করাটা বোকামি হবে, পাক দূতাবাসের এমন প্ররোচনায় পড়ে দলটিকে ছাড়া নিয়ে দ্বিধায় পড়েছেন বিএনপির এই শীর্ষ নেতা। তবে মূল বিষয় হলো, বড় অঙ্কের অর্থের প্রলোভনে পড়েই জামায়াতকে নিয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে আগ্রহী নন তারেক।*

*এদিকে লন্ডনে নির্বাসিত একাধিক জামায়াতত্যাগী নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, ২০ দলীয় জোটে জামায়াত গুরুত্বপূর্ণ দল। অতীতে বিএনপির বিভিন্ন কর্মসূচিতে লোকবল ও অর্থ দিয়ে সহায়তা করারও নজির রয়েছে জামায়াতের। কিন্তু কালক্রমে রাজনীতিতে চাপে পড়ায় দল ও বিভিন্ন মহল থেকে জামায়াতকে ছাড়তে বিএনপির উপর চাপ সৃষ্টি হতে থাকে। বিষয়টি নিয়ে তারেকও মানসিক চাপে ছিলেন। কিন্তু শতকোটি টাকার প্রলোভনে পড়ে তারেক জামায়াতের সঙ্গত্যাগ নিয়ে টালবাহানা করছেন। অর্থ দিয়ে বিএনপি নেতাদের যে কেনা যায়, সেটি তারেক রহমান আবারও প্রমাণ করলেন।*