প্রচ্ছদ রাজনীতি *বেগম খালেদা জিয়া অ’সহায় এক মানুষের নাম*

*বেগম খালেদা জিয়া অ’সহায় এক মানুষের নাম*

43
*অসহায় এক মানুষের নাম বেগম খালেদা জিয়া*

*রাজনীতিতে অভিযোগ রয়েছে, দেশের উন্নয়নে ও দেশবাসীর কল্যাণের কাজ করার কথা বলে রাজনীতির নামে জনগণের সাথে প্র’তারণা করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তার শাসনামলে দুর্নীতি, জ’ঙ্গিবাদ, লু’টেরা-সন্ত্রা’সীদের অভয়াশ্রমে পরিণত হয়েছিল দেশ। যু’দ্ধাপরাধী, জ’ঙ্গি ও দুর্নী’তিবাজদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে নিজ ও দলের সম্মান ভূলুণ্ঠিত করেছেন বিএনপি নেত্রী। অপমান-অপবাদের ভারে নাস্তানাবুদ বেগম জিয়া। তাই নিজ ও দলের যতোটুকু সম্মান আছে তা রক্ষা করতে বিএনপি নেত্রীর রাজনীতিতে নীরব থাকাটাই শ্রেয় বলে মনে করছেন বিএনপির সাবেক নেতারা।*

*বিএনপি ছেড়ে আসা নেতাদের মতে, বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের অদূরদর্শিতা ও দুর্নীতিযুক্ত নীতির কারণে দেশ-বিদেশে বিএনপির যথেষ্ট সম্মান ভূলুণ্ঠিত হয়েছে। দেশকে দুর্নী’তি, স’ন্ত্রাস, মা’দক ও জ’ঙ্গিবাদের অভয়াশ্রম বানানোয় বিএনপি নেত্রীকে দেশ-বিদেশে শুনতে হয়েছে দুয়ো। দুর্নীতির কারণে ২০০৮ সালে তারেক রহমানকে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা না দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন তৎকালীন বাংলাদেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত। রাজনীতির নামে চুরি-বাটপারি, রাষ্ট্রীয় সম্পদ পাচার, সংখ্যালঘুদের নির্যাতন, যুদ্ধাপরাধীদের পুনর্বাসন করে দেশ ও আন্তর্জাতিক মহলে দেশের সম্মানহানি করেছিলেন বেগম জিয়া ও তার পুত্র তারেক রহমান।*

*যার ফলশ্রুতিতে ২০০৮ সালের জাতীয় নির্বাচনে ভরাডুবি ঘটে বিএনপির। জনসমর্থন হারিয়ে রাজনীতির কক্ষপথ থেকে ছিটকে পড়ে দলটি। সেই যে দুঃসময় শুরু হলো তা আর কাটতেই চাইছে না। দুর্নীতির দায় মাথায় নিয়ে তারেক রহমান দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান, বেগম জিয়া কারাভোগ করেন। নিজেদের অপরাধের কারণে বিএনপি নামক রাজনৈতিক সংগঠনটি বিপদে পড়ে। যার কারণে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সাময়িক মুক্তির পর থেকেই রাজনীতি থেকে দূরে রয়েছেন বিএনপি নেত্রী। মুক্তির শর্ত মেনে নীরব থাকার পাশাপাশি সম্ভবত দলের ক্ষতি করায় অনুশোচনাবোধ থেকেই তিনি এমনটি করছেন। বিএনপিকে আর পর্যদস্থ করতে চান না বলেই বেগম জিয়া আর বিএনপির রাজনীতিতে সক্রিয় থাকতে রাজি নন বলে গুঞ্জন উঠেছে। যার কারণে তারেক রহমানকে দলে প্রতিষ্ঠিত করে নির্বাহী চেয়ারম্যানের পদ সৃষ্টি করতে আগ্রহী দেখিয়ে নিজের দায়িত্ব তার হাতে তুলে দিয়ে নির্ভার হতে চান বেগম জিয়া। যা ক্ষতি হওয়ার হয়েছে, সেটির পরিমাণ আর বাড়াতে চান না বলেই বেগম জিয়া নীরবতা পালন করছেন বলেও গুঞ্জন চাউর হয়েছে বিএনপির রাজনীতিতে।*