প্রচ্ছদ রাজনীতি *শেখ হাসিনা তবে কঠিন সময়ের মুখোমুখি*

*শেখ হাসিনা তবে কঠিন সময়ের মুখোমুখি*

87
*কঠিন সময়ের মুখোমুখি শেখ হাসিনা*

*চারবারের প্রধানমন্ত্রী তিনি। দেশ পরিচালনায় অসাধারণ দক্ষতা দেখিয়েছেন। দেশে বিদেশে একজন দক্ষ রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে স্বীকৃত। তাঁর ব্যাপারে জনগনের অকুন্ঠ আস্থা রয়েছে। কিন্তু তারপরও একটা কঠিন সময়ের মুখোমুখি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালে প্রথমবারের মতো ক্ষমতায় এসেছিলেন শেখ হাসিনা। সেই সময়ও তিনি বৈরী পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছিলেন। কিন্তু সেই বৈরী পরিস্থিতি ছিলো ষড়যন্ত্র এবং বিরোধী রাজনৈতিক শক্তির কূটকচাল। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসেও আওয়ামী লীগ প্রথম দফায় কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছিলেন বিডিআর বিদ্রোহের কারণে। এরপর ২০১৪ সালে প্রবল রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে সামাল দিয়েছেন শক্ত হাতে।*

*তারপর থেকে একটা সুন্দর ও সুস্থ সময় পাড় করছিলেন শেখ হাসিনা। দেশকে এই সময় তিনি অনন্য উচ্চতায় এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন। বাংলাদেশকে করেছেন বিশ্বের রোল মডেল রাষ্ট্র। সর্বক্ষেত্রে সব সূচকে বাংলাদেশ বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।*
*কিন্তু টানা চতুর্থবারের মতো দেশ পরিচালনার দায়িত্বে এসে যেন এক কঠিন পরিস্থিতির মুখে পড়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ নেই, নেই বাইরের দেশের ষড়যন্ত্র, কিন্তু দেশের পরিস্থিতি ক্রমশ কঠিন থেকে কঠিনতর হয়ে যাচ্ছে। আর এই কঠিন পরিস্থিতিতে একাই হাল ধরেছেন শেখ হাসিনা। উদ্বিগ্ন জনগনের প্রশ্ন, শেখ হাসিনা পারবেন তো? সাম্প্রতিক সময় যে সমস্ত কারণে শেখ হাসিনার জন্য পরিস্থিতি কঠিন হয়ে যাচ্ছে সেগুলো হলো:*

*১. করোনা পরিস্থিতি দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে: বাংলাদেশে ৮ মার্চ প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এখন ৪মাসের বেশি সময় পাড় হয়ে যাচ্ছে, কিছুদিনের মধ্যেই পাঁচ মাসে পা রাখছে বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত করোনা পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের কোন পন্থা নেই। কিছুদিন আগেও করোনার একটা প্রক্ষেপণ ছিলো, কতদিন করোনা থাকবে, কিভাবে করোনা বিদায় নেবে সে সম্পর্কে একটা রুপরেখা ছিলো। কিন্তু এই সমস্ত কিছুই নেই। করোনা পরিস্থিতি কতদিন থাকবে এবং কবে এটা শেষ হবে সে সম্বন্ধে সুনির্দিষ্ট কেউ কিছু বলতে পারছে না। এরফলে একটা দীর্ঘস্থায়ী সঙ্কটের মুখে পড়েছে বাংলাদেশ। একদিকে যেমন সমাজে নানা রকম হতাশা এবং অস্থিরতা তৈরী হয়েছে, তেমনি সৃষ্টি হচ্ছে বেকারত্ব এবং নানা রকম অর্থনৈতিক সঙ্কট। করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড একরকম স্থবির হয়ে পড়েছে।*

*২. বাড়ছে অর্থনৈতিক সঙ্কট: করোনাকালীন সময় দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার কারণে অর্থনৈতিক সঙ্কট ক্রমশ প্রকট থেকে প্রকটতর হচ্ছে। রপ্তানি আয় কমে গেছে। রেমিট্যান্স এখন পর্যন্ত অব্যাহত থাকলেও সামনের দিনগুলোতে কি হবে তা নিয়ে আতঙ্কিত অর্থনীতিবিদরা। এছাড়া দারিদ্র বাড়ছে, মধ্যবিত্তের সঙ্কট ক্রমশ তীব্র হচ্ছে। বেকারত্ব বেড়ে যাচ্ছে। এই অর্থনৈতিক সঙ্কটের আরেকটা দিক হলো ক্ষুদ্র মাঝারি শিল্পগুলোতে একরকম ধস নেমেছে। এই পরিস্থিতিতে সরকারের জন্য অর্থনৈতিক সঙ্কট মোকাবিলা করা ক্রমশ চ্যালেঞ্জিং হয়ে পড়ছে।*
*৩. বন্যা পরিস্থিতি: করোনাকালীন সময়ে একের পর এক প্রাকৃতিক দুর্যোগ পরিস্থিতিকে ক্রমশ কঠিন করে ফেলছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য। বিশেষ করে আম্পান এবং আম্পান চলে যাওয়ার পর এখন বন্যা পরিস্থিতি ক্রমশ ভয়ঙ্কর রুপ ধারণ করছে। অনেকে বলছে যে, ৮৮ বা ৯৮ এর মতো বন্যা পরিস্থিতি বাংলাদেশে হতে পারে। সেরকম পরিস্থিতি হলে একটা নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে সরকারের।*

*৪. দুর্নীতির লাগাম টেনে ধরায় সমস্যা হচ্ছে: করোনা পরিস্থিতির সময় আরো বড় করে সামনে এসেছে দুর্নীতি। বিশেষ করে স্বাস্থ্যখাতের সীমাহীন লুটপাট এবং প্রতারণার ঘটনা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলেছে সরকারকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করলেও দুর্নীতি যেন আষ্টেপিষ্টে জড়িয়ে আছে, যেখানেই তিনি হাত দিচ্ছেন সেখানেই দুর্নীতি পাচ্ছেন। দুর্নীতির কারণে তার অনেক ভালো উদ্যোগ এবং পরিকল্পনাও চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ছে।*
*৫. বিশ্বস্ত লোকের অভাব: করোনা পরিস্থিতির মধ্যে শেখ হাসিনার জন্য সবচেয়ে কঠিন হয়ে উঠছে বিশ্বস্ত লোক পাওয়া। যাদেরকে তিনি ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভূক্ত করেছিলেন তাদের অনেকেই দায়িত্ব পালনে অযোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর চারপাশে যারা কাজ করছেন তারা দেশের স্বার্থ এবং প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা বাস্তবায়নের চেয়ে নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারের দিকেই নজর বেশি দিচ্ছেন। যার কারণে ক্রমশ বিশ্বস্ত লোকের অভাব অনুভূত হচ্ছে।*

*আর এই সমস্ত কারণে এক কঠিন সময় পাড় করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, কঠিন সময়েই শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি জ্বলে উঠেন। কঠিন চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করার কারণেই তিনি রাষ্ট্রনায়ক এবং বিশ্বনেতায় পরিণত হয়েছেন। বর্তমানে যে পরিস্থিতি তা কাটিয়ে উঠার ক্ষেত্রে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। শেখ হাসিনা আছেন জন্যই এখনো করোনা পরিস্থিতিসহ সার্বিক সঙ্কট থেকে বাংলাদেশ মুক্তি পাবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। জনগনের আস্থাও রয়েছে এখনো শেখ হাসিনার প্রতি।*