প্রচ্ছদ জীবন-যাপন *নিজের না’বালিকা মেয়েকে ধ’র্ষণ করল মা’দ্রাসা শিক্ষক*

*নিজের না’বালিকা মেয়েকে ধ’র্ষণ করল মা’দ্রাসা শিক্ষক*

111
*নিজের নাবালিকা মেয়েকে ধর্ষণ করল মাদ্রাসা শিক্ষক*

*ভারতীয় সমাজে পিতা ও কন্যার সম্পর্ককে বিশেষ পবিত্র সম্পর্ক হিসেবে মনে করা হয়। ভারতে পুত্রের সাথে পিতার সম্পর্ক নিবিড় হোক বা না হোক মেয়ের সাথে বাবার পবিত্র সম্পর্ক অত্যন্ত শক্তিশালী হওয়া চাই। বাবার আত্মার সাথে তার কন্যার আত্মা এক অনন্য অলৌকিক শক্তি দ্বারা যুক্ত থাকে বলে মনে করা হয়। তবে ভারতের কেরল রাজ্যের কসরগোদ জেলা থেকে এমন খবর সামনে আসছে যা যে কোনো ভারতীয়কে লজ্জিত করবে। কসরগোদ জেলার নীলেশ্বর পুলিশ সোমবার দিন এক মাদ্রসা শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে।*
*নিজের ১৬ বছর বয়সী মেয়েকে ধ’র্ষণ করার অপরাধে মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। জানা গেছে বিগত ২ বছর ধরে মাদ্রসা শিক্ষক তার মেয়েকে ধর্ষ’ণ ও যৌ’ন শোষণ করেছে। মাদ্রাসার শিক্ষক সহ ৬ জনের নাম এই অপরাধে জড়িত বলে জানা গেছে। পুলিশ মাদ্রাসার শিক্ষক (মেয়েটির আব্বু) সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে। মাদ্রাসা শিক্ষক ছাড়াও গ্রেপ্তার হওয়া তিন আসামি যথাক্রমে- রিয়াস (১৯), এজাজ (২০) এবং মোহাম্মদ আলী (২০)।*

*প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, অভিযুক্ত সাতজনের বিরুদ্ধে POCSO আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এক রিপোর্ট অনুযায়ী, মেয়েটি পুলিশকে জানিয়েছে যে তার বাবা তাকে যৌ’ন শোষণ ও ধ’র্ষণ করতো। এমনকি গর্ভপাত করিয়েছে বলেও মেয়েটি অভিযোগ করেছে। ২ মাস আগেই মেয়েটির গ’র্ভপাত করানো হয়েছিল বলে জানা গেছে। যে চিকিৎসক গ’র্ভপাত করিয়েছেন তার উপরেও পুলিশ একশন নিয়েছে। মেয়েটির মামা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করার পর পুরো ঘটনাটি সামনে এসেছে।*

আট নাবালিকাকে ধ’র্ষণ করে ভিডিও বানিয়ে ব্ল্যাকমেল করত শাদাব আলী! এবার হল গ্রেফতার
উত্তর প্রদেশের আজমগড় জেলা পুলিশ আজ এক ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করেছে। ওই ব্যাক্তি বাচ্চা বাচ্চা মেয়েদের ধ’র্ষণ করে ভি’ডিও (Video) বানাতো তারপর ব্ল্যাকমেল করত। এক নাবালিকা মেয়েকে ধর্ষ’ণ করে তাঁর ভি’ডিও বানিয়ে ব্ল্যা’কমেল করছিল নাবালিকার পরিবারকে। এরপর নির্যাতিতার পরিবার পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়ে কড়া পদক্ষেপের দাবি করে। পুলিশ ওই ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করে যখন জিজ্ঞাসাবাদ চালায়, তখন চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আসে।
জেরায় জানা যায় যে, ওই ব্যাক্তি ৮ টি নাবালিকাকে ধ’র্ষণ করে ভিডিও বানিয়ে তাঁদের পরিবারকে ব্ল্যাকমেল করেছে। পুলিশ ওই ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছে আর তাঁর মোবাইল বাজেয়াপ্ত করেছে।

অভিযুক্তের পরিচয় আজমগড় জেলার মুবারকপুর থানা এলাকার হুসেইনিবাগের পুরাসোফী মহল্লার বাসিন্দা শাদাব আলী বলে জানা গিয়েছে। তাঁর শাদাবের বিরুদ্ধে আগে থেকেই মুবারকপুর থানা এলাকায় শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের ছিল। এবার পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে জেরা করার পর তাঁর নৃশংস রুপ সামনে আসে। শাদাব তাঁর প্রতিবেশী নাবালিকাদের ধ’র্ষণ করে তাঁদের অশ্লীল ভি’ডিও বানিয়ে ব্ল্যাকমেল করত।
পুলিশ সুপার ত্রিবেণী সিং জানান, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এর আগেই শ্লীল’তাহানির মামলা দায়ের ছিল, যখন জেরা করা হয় তখন জানা যায় যে, অভিযুক্ত অনেক নাবালিকাকে ধর্ষ’ণ করেছে। তিনি জানান, তাঁর প্রতিবেশী নাবালিকাদের সাথে সে এই দুষ্কর্ম করত।
পুলিশ আপাতত এই পশুপ্রকৃতি ব্যক্তিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে নিয়েছে, তদন্তের পর জানা যাবে যে এই ব্যাক্তি আরও এরকম কতগুলো অমানবিক কাজ ঘটিয়েছে।