প্রচ্ছদ বিনোদন *হে’রেমখানার সর্দার নাওয়াজ ও ডা. সাবরিনা*

*হে’রেমখানার সর্দার নাওয়াজ ও ডা. সাবরিনা*

218
*হেরেম খানার সর্দার নাওয়াজ ও ডা. সাবরিনা*

*নাম তার আহমেদ নাওয়াজ। এক হে’রেমখানার মালিক। সাবরিনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে নাওয়াজের সাথে তার অসংখ্য ছবি আছে। জেকেজির কেলেঙ্কারির ঘটনার কারণে যখন সাবরিনার চরিত্রের দরোজা জানালা সব খুলে গেলো, তখনই সে ছবিগুলো সরিয়ে নেয় তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে, জেল ফেরত আসামি এই নাওয়াজ।*
*নাওয়াজের বনানীর বাসায় উদ্দাম পার্টির আয়োজন হতো নিয়মিত। সেখানে যোগদান করতো গুলশান বনানী বারিধারার ধনী-শ্রেণির নারীরা। আরও অংশ নিতেন ঢাকা চলচ্চিত্রের সি গ্রেডের নায়িকারাও।*

*সেখানে যাবতীয় আকাম কুকাম হয়েছে। নাওয়াজকে এলিট ক্লাসের পতিতাদের সর্দার বলা হয়। তার আয়োজিত পার্টিতে মধু খেতে দুশ্চরিত্র সমাজপতিরাও হাজির হতেন। তারা মদ নারী এবং উদ্দাম যৌনতায় নিজেকে ভাসিয়ে দিতেন। আহমেদ নাওয়াজের নিজেরও চরিত্র “ফুলের মত পবিত্র”। তার বাসার ওপেন হাউজ আড্ডায় ডা. সাবরিনার নিয়মিত যাতায়াত ছিল। হেলেনা জাহাঙ্গীরের জয়যাত্রার মেম্বার এই নাওয়াজ।*
*নাওয়াজের চরিত্র নষ্ট বলে তার বিদেশি স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে গেছেন। এরপর ঢাকায় বিয়ে করে এবং টরি নামের এক যুবতীর সাথে লিভ টুগেদার করার কারণে তার স্ত্রী আত্মহত্যা করেন।*

*স্ত্রীর অপমৃত্যুর পরও নাওয়াজ লিভ টুগেদার চালিয়ে যায় টরির সাথে। তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়েই লিভ টুগেদার শুরু করেছিল সে। কিন্তু স্ত্রীর মৃত্যুর এক বছর পরও নাওয়াজ টরিকে বিয়ে না করায় ২০১৯ সালের নভেম্বরে টরি স্লিপিং পিল খেয়ে সুইসাইড করেন।*
*তার বনানীর বাসায় প্রতিদিন মদ ও নারী নিয়ে খোলা বাজার বসে। সেখান থেকে ধনী পুরুষ মহিলাদের জন্য “বেড পার্টনার” ঠিক করে দেয় সে। তার টাকার উৎস কেউ জানে না।*

*আ’ইএস’র সাথে সম্পর্ক আছে বলিউড অভিনেতাদের! দাবি বিজেপি নেতার*
*পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা ইন্টার সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স (আ’ইএসআই)-এর সাথে যোগাযোগ রয়েছে বলিউড অভিনেতাদের- এমন অভিযোগ করেছেন বিজেপি সর্বভারতীয় সহ সভাপতি বৈজয়ন্ত জয় পান্ডা। শুধু তাই নয় পাকিস্তানের নাগরিকত্ব পাওয়া ব্যবসায়ীদের সাথেও ওই বলিউড তারকাদের ব্যবসায়ীক লেনদেন রয়েছে বলে অভিযোগ। ট্যুইট করে এই অভিযোগ করেছেন মুম্বাইয়ের এই বিজেপি নেতা।*
*বুধবার তিনি লেখেন ‘কিছু বলিউড তারকার সাথে জম্মু-কাশ্মীরের সন্ত্রাস সৃষ্টিকারী পাকিস্তানি নাগরিক ও প্রবাসী পাকিস্তানিদের সাথে ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক সম্পর্কের খবর জানতে পারলাম। এই তারকাদের সাথে পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ও সেদেশের সেনাবাহিনীর সাথেও যোগাযোগ থাকারও প্রমাণ মিলেছে। আমি দেশপ্রেমিক বলিউড তারকাদের অনুরোধ করছি তাদের বয়কট করুন।’*

*এর আগে গতকাল আল ইসকান্দর নামে শ্রীনগর ভিত্তিক এক ব্যক্তি ট্যুইট করে সরাসরি শাহরুখ খান ও তার স্ত্রী গৌরী খানের বিরুদ্ধে কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের সাথে যোগসাজশের অভিযোগের আঙুল তোলেন। আর তার চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই বিজেপি নেতার এই অভিযোগ। যদিও ওড়িষ্যার ওই বিজেপি নেতা আলাদা করে কোন বলিউড তারকাদের নাম নেননি।*
*@দ্যএসকান্দর নামে একটি ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে একের পর এক ট্যুইট করে আল ইসকান্দর দাবি করেন বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খান ও যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক স্থাপত্যবিদ প্রবাসী কাশ্মীরি নাগরিক টনি আশাই ওরফে আজিজ আশাইয়ের সাথে ব্যবসায়িক যোগসাজশ রয়েছে। তার অভিযোগ ক্যালিফোর্নিয়ার ঠান্ডা ঘরে বসে টনি আশাই জম্মু-কাশ্মীরে নিরাপত্তাবাহিনীর বিরুদ্ধে কাশ্মীরের যুবকদের পাথর ও বন্দুক তুলে নেওয়ার প্ররোচনা দিচ্ছেন আর নিজের ছেলে বিলাল আশাই সম্প্রতি লস অ্যাঞ্জেলস থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন।*

*পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও টনি আশাইয়ের মধ্যেকার একটি বৈঠকের ছবিও পোস্ট করেছেন আল ইসকান্দর। যেখানে ইমরান বলেছেন ‘আইএসআই’এর বেতনভোগে রয়েছেন টনি আশাই-যার সাথে জম্মু-কাশ্মীর ও দেশের অন্য অংশের বহু লোকের সাথে সম্পর্ক রয়েছে।’*
*আল ইসকান্দরের অভিযোগ জম্মু-কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্ট’এর মতো বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের সদস্য হলেন টনি আশাই। কাশ্মীরে হিন্দু পন্ডিতদের ওপর অত্যাচার, তাদেরকে খুন করা ও কাশ্মীর থেকে বিতাড়নের পিছনেও হাত রয়েছে টনি আশাইয়ের। আর এই টনির সাথেই বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খান ও গৌরী খানের ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক যোগসাজশ রয়েছে। এর সপক্ষে একটি ছবিও পোস্ট করেছেন তিনি।*