প্রচ্ছদ মুক্ত মতামত *দেশে দেশে ধর্মালয় থেকে যেভাবে করোনা ছড়িয়েছে*

*দেশে দেশে ধর্মালয় থেকে যেভাবে করোনা ছড়িয়েছে*

সুষুপ্ত পাঠক

52
*দেশে দেশে ধর্মালয় থেকে যেভাবে করোনা ছড়িয়েছে*

*ইরানে প্রথম করোনা ভাইরাস ছড়ায় শিয়া মুসলমানদের অন্যতম পবিত্র শহর ক্বওম থেকে- যেখানে অবস্থিত হযরত ফাতিমার মাজার শরীফ। একজন চীন ফেরত ইরানী ব্যবসায়ী এই মাজার জিয়ারত করতে গিয়ে এখানে সংক্রমণ ঘটান। এই মাজারে আগতরা পুরো ইরানে করোনা ছড়িয়ে দেয়। ইরান সরকার করোনা ছড়ানো স্থান হিসেবে বিবি ফাতেমার মাজার শরীফকে এড়িয়ে যায়। ফলত করোনা ইরানে মরন কামড় বসাতে শুরু করে।*

*সম্প্রতি বিবিসি প্রকাশ করেছে সৌদি আরবে করোনা ভাইরাসটি একজন ওমরাহকারীর মাধ্যমে ছড়িয়েছে যা সৌদি কর্তৃপক্ষ গোপন করে। অর্থাৎ মুসলিমদের পবিত্র ও নিরাপদ বলে বিশ্বাস করা হারাম শরীফ থেকেই করোনা ছড়ায়।*
*দক্ষিণ কোরিয়াতে করোনা ছড়ায় একটি গির্জা থেকে। এটা অবশ্য দক্ষিণ কোরিয়া সরকার গোপন না করে প্রকাশ করে ঐ গির্জাকে বন্ধ করে দেয়। আক্রান্ত ব্যক্তিকে চিহ্নিত করে তার সংস্পর্শে আসা সবাইকে আইসোলেট করা হয়। যাই হোক এখানেও ধর্মালয় থেকেই ভাইরাস ছড়িয়েছিল।*

*মালয়েশিয়ার শ্রী-পেটালিং মসজিদ থেকে একটি তাবলীগ জামাত সেদেশে প্রথম করোনা ভাইরাস ছড়ানোর কথা এখন সবাই জানে। পাকিস্তানে করোনা ছড়ানোর জন্যও দায়ী একটি তাবলীগ জামাত। ভারতে হঠাৎ করে করোনা পরিস্থিতি খারাপ করে তুলেছে দিল্লীর তাবলীগ জামাতের কেন্দ্র নিজামউদ্দিন মার্কাজ থেকে। এই মসজিদ থেকে সারা ভারতে কতজন ছড়িয়ে পড়েছে কে জানে! এরিমধ্যে ছয়জন মারা গেছে ও বিশ পঁচিশ জন্য পজিটিভ হওয়ার কথা জানা গেছে। দিল্লী সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সেখানে মুসলমানরা তাদের তাবলীগ জামাত অব্যাহত রেখেছিল। করোনা পজিটিভ হওয়ার পর এখন মসজিদ বন্ধ করে দিয়েছে- যা দিল্লী সরকারের আগেই করা উচিত ছিলো।*

*মামলা হয়েছে মাওলানা সাদের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশের বাইতুল মোকাররম ঠিক একই কায়দা এখনো চালু আছে। কাকরাইল মসজিদটির আশেপাশে তাবলীগ জামাতের কারণে নোংরা আবর্জনায় ভরপুর। এই মুহূর্তে কাকরাইল মসজিদের ভেতর কি পরিমাণ তাবলীগ টিম অবস্থান করছে তার খবর সরকারের কাছে আছে? দিল্লীর সরকার তো ঘটনা ঘটার পর মোল্লাদের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারছে- বাংলাদেশ সরকার তো সেটাও করতে পারবে না!*

*দেখা গেলো ধর্মালয়গুলোর কথিত পবিত্র স্থানগুলো‌তেও ভাইরাসের অবাধ যাতায়াত হতে পারে। সেটা ধর্মবিশ্বাসীদের অনুভূতির কারণে সরকার বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এড়িয়ে গিয়ে বড় বিপদ ডেকে এনেছে। বাংলাদেশ সরকার একদল মধ্যযুগীয় মোল্লার ভয়ে, সাধারণ মুসলমানদের অনুভূতির কারণে মসজিদ খোলা রেখে মহামারীকে এক প্রকার ডেকে আনছে। তাদের ঘরে থাকার কর্মসূচি মসজিদ ও মোল্লারা বাতিল করে দিয়ে বাংলাদেশকে অনিরাপদ করে তুলছে।*
*সুষুপ্ত পাঠক: ব্লগার*