প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট *‘গা’লিগালাজ করছিল ভারতীয় ক্রি’কেটাররা’*

*‘গা’লিগালাজ করছিল ভারতীয় ক্রি’কেটাররা’*

48
*‘গালিগালাজ করছিল ভারতীয় ক্রিকেটাররা’*

*আ’ইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ চারবারের চ্যা’ম্পিয়ন ভারত। অন্যদিকে প্রথমবারের মতো ফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জনকারী বাংলাদেশ। অভিজ্ঞরা বলছিলেন, ভারতই ফেবারিট। কিন্তু আবেগ কী আর অভিজ্ঞতার বাছ-বিচার করে! অবশেষে জয় হলো সেই আবেগেরই। আকবরবাহিনী বুক চিতিয়ে দাঁড়িয়ে গেল অতীতের সব পরিসংখ্যানের বিরুদ্ধে। রুখে দিল দুর্দা’ন্ত প্রতা’প ভারতের জয়যাত্রা। দাপট দেখিয়েই রেক’র্ড গড়ে জয় শিরোপা ঘরে তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ।*

*তবে ফাইনালের উত্তেজনা বারবার ধরে পড়েছে ক্যামেরায়। বাংলাদেশের বিশ্ব জয়ের উল্লাস শুরু হতে না হতেই মাঠেই ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে লেগে গেল আকবর আলীর দলের। হাতাহাতির কিছুটা ধরার পর টিভি ক্যামেরা সরে গেল ভারতের ডাগআউটের দিকে। যেখানে দেখা গেল কোচিং স্টাফের সদস্যরা হাতের ইশারায় তাদের ক্রিকেটারদের চলে আসতে বলছেন। এরপরও কিছুক্ষণ উত্তেজনা অব্যাহত ছিল বলে জানা গেছে।*

*এ ব্যাপারে দক্ষিণ আফ্রিকায় দলের সঙ্গে থাকা বিসিবির জুনিয়র নির্বাচক কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ দলের সাবেক ফাস্ট বোলার হাসিবুল হোসেন ফোনে জানিয়েছেন, সেই ‘ধাক্কাধাক্কি’র কারণ। তাঁর দাবি, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের এর মধ্যে জড়িয়ে পড়ার উসকানিও ছিল ভারতীয় দলের পক্ষ থেকেই, ‘ওরা পুরো ম্যাচজুড়েই প্রচুর স্লেজিং করেছে।*
*আমরা জেতার পর তা মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। আমাদের ক্রিকেটাররা যখন উৎসব করতে শুরু করল, তখনই ওরা এসে মা-বাপ তুলে গালিগালাজ শুরু করে। কত আর সহ্য করা যায়! ছেলেরা সহ্য করতে না পেরে প্রতিবাদ করতে যায়। এতেই শুরু হয় ধাক্কাধাক্কি।’*
*যদিও দুই দলের কোচিং স্টাফের সদস্যদের হস্তক্ষেপে হাতাহাতি আর বেশিদূর গড়াতে পারেনি।*

*হেরে গিয়ে বাংলাদেশের পতাকা কেড়ে নেয় ভারতীয়রা!*
*অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ভারতকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ে বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশের যুবারা। ভারতের দেয়া ১৭৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ডার্ক লুইস পদ্ধতিতে ৪৬ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে ৪২.১ ওভারে ১৭০ রান করে ৩ উইকেটের জয় তুলে নেয় টাইগার যুবারা।*
*এদিকে, শিরোপা হাত ছাড়া হওয়ায় মেজাজ হারিয়ে ফেলে ভারতীয় একজন ক্রিকেটার। প্রতিপক্ষের উদযাপন সহ্য করতে না পেরে ওই ভারতীয় খেলোয়াড় বাংলাদেশের এক খেলোয়াড়ের কাছ থেকে কেড়ে নেন লাল-সবুজের পতাকা।*

*এমনকি ম্যাচের পরপরই ভারতীয়রা ভদ্রতাসূচক করমর্দনও করেননি। পরে অবশ্য পরিস্থিতি ঠান্ডা হলে আনুষ্ঠানিকতা মেনে করমর্দন করেন তারা।*
*পুরো টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের যুবারা দুর্দান্ত ক্রিকেট উপহার দিয়েছে। বাংলাদেশ এক ফাইনাল ছাড়া কোনো ম্যাচেই প্রতিপক্ষকে সুযোগও দেয়নি। হয়েছে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন।*

*কেননা গ্রুপপর্বে একটি ম্যাচে জয় পায়নি বাংলাদেশ, আবার হারেওনি। পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। তবে ওই ম্যাচটি হারলেও বাদ পড়ার সম্ভাবনা ছিল না বাংলাদেশের। কেননা গ্রুপপর্বে আগের দুই ম্যাচে জিম্বাবুয়ে আর স্কটল্যান্ডকে উড়িয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল আগেই নিশ্চিত করে ফেলেছিল তারা।*
*প্রথমবারের মতো এ ফরম্যাটে অপরাজিত থেকেই ফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। আর অপরাজিত থেকেই জিতেছে শিরোপা। এছাড়া ২০১৬ সালে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছিল বাংলাদেশ।*