প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট *ক্রিকে’টারদের হাতা’হাতি, বাংলাদেশকে দু’ষছে ভারতীয় ক্রি’কেটাররা*

*ক্রিকে’টারদের হাতা’হাতি, বাংলাদেশকে দু’ষছে ভারতীয় ক্রি’কেটাররা*

77
*ক্রিকেটারদের হাতাহাতি, বাংলাদেশকে দুষছে ভারতীয় ক্রিকেটাররা*

*অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ভারতে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ দল। তবে শিরোপা জয়ের পর বিজয় উৎসবে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটাররা। ম্যাচ শেষে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় ছাড়াও বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে হাতাহাতিতে জাড়ায় ভারতীয় ক্রিকেটাররা। শেষপর্যন্ত দুই দলের কোচিং স্টাফরা এসে ক্রিকেটারদের শান্ত করেন। এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন অধিনায়ক আকবর আলী। তবে এখনও ভারতীয় দলের পক্ষ থেকে সৌজন্যতামূলক হলেও কোনো দুঃখ প্রকাশ করা হয়নি। তারা পুরো ঘটনার জন্য বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের দোষ দিচ্ছেন।*

*কাল পচেফস্ট্রুমে রকিবুল হাসান জয়সূচক শেষ রানটি নেওয়ার পর উল্লাসে মাতেন বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা। এ সময়ে ভারতীয়দের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি এমনকি সামান্য ধাক্কাধাক্কি হয়। বাংলাদেশ অধিনায়ক এ বিষয়ে বলেন, `যা হয়েছে, তা হওয়া উচিৎ ছিল না। আমি জানি না ঠিক কী হয়েছে। আমি জিজ্ঞেসও করিনি কী হচ্ছে। তবে এ তো জানাই ফাইনালে আবেগ-টাবেগ একটু বেশি থাকে। ছেলেরাও একটু বেশি উত্তেজিত থাকে, আবেগ ধরে রাখতে পারে না। তবে তরুণ খেলোয়াড় হিসেবে এমনটা হওয়া উচিৎ নয়।`*

*জানা গেছে, আইসিসি পুরো ঘটনার তদন্ত করছে। ম্যাচ শেষের পুরো ঘটনা নিয়েই আজ তদন্ত প্রতিবেদন দেবেন আইসিসির ম্যাচ রেফারি গ্রায়েম ল্যাব্রয়। এদিকে আকবর আলী আরও বলেন, `যে কোনো অবস্থায়, যে কোনো আচরণে আমাদের উচিৎ প্রতিপক্ষকে সম্মান দেখানো। খেলাটার প্রতিও শ্রদ্ধা থাকা দরকার। ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা হিসেবেই পরিচিত। তাই আমি বলছি, আমার দলের পক্ষ থেকেই বলছি আমি দুঃখিত।`*

*মাশরাফি-মুশফিকের অভিনন্দন বার্তায় সিক্ত যুবারা*
*অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছেন টাইগার যুবারা। বাংলাদেশকে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ এনে দিয়েছেন তারা। মূলত অধিনায়ক আকবরের হার না মানা ৪৩ রানের ইনিংসে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়েছে লাল-সবুজের দল। বৃষ্টি আইনে ৩ উইকেটের রোমাঞ্চকর জয় তুলে নিয়েছে তারা।*
*স্বভাবতই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ায় অভিনন্দনে ভাসছেন আকবররা। তাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুক পোস্টে যুবাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন তারা।*

*ফেসবুক পেজে মাশরাফি বলেছেন, অভিনন্দন বাংলাদেশ, বিশেষত আমার শহরের অভিষেক দাসকে। রাকিবুল, শরিফুল, ইমন এবং দলের সব খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফকে শুভেচ্ছা। আকবর তুমি দুর্দান্ত। শুধু আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে শেখ। কী দুর্দান্ত অর্জন। বাংলাদেশের প্রত্যেক মানুষের জন্য কী সুন্দর মুহূর্ত। অনেক দূর যেতে হবে ছোট ভাইয়েরা। ভবিষ্যৎ সাফল্যের জন্য আশীর্বাদ রইল। মাহেন্দ্রক্ষণটা উপভোগ কর।*

*মুশফিকুর রহিম নিজের ভেরিফায়েড অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে লিখেছেন– আলহামদুলিল্লাহ। আমি নির্দ্বিধায় বলতে পারি, বাংলাদেশের ক্রিকেটার হিসেবে এটি আমার জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন। ছেলেরা আমাকে গর্বিত করেছে। অভিনন্দন সুপারস্টার।*
*জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও উচ্ছ্বসিত। আকবর আলিদের বিশ্ব জয়ের পর ফেসবুকে লিখলেন, ‘কী অসাধারণ মুহূর্ত। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। তোমাদের জন্য গর্বিত। হৃদয়ের গভীর থেকে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে অভিনন্দন!*

*অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ২০১৬ বিশ্বকাপে সেমি-ফাইনালে পা রাখে বাংলাদেশ। সেই দলের নেতৃত্বে ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। খুশি তিনিও। তিনি ফেসবুকে লিখলেন, ‘আমাদের ছেলেরা করে দেখিয়েছে! অভিনন্দন বাংলাদেশ।’*
*তারা ছাড়াও অনূর্ধ্ব ১৯ দলের বিশ্বকাপে জয়ের পুরো দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন সৌম্য সরকার-সাব্বির রহমানও!*

*বাংলাদেশ জানে কীভাবে উদযাপন করতে হয়: আইসিসি*
*পচেফস্ট্রোমে গতকাল অনূর্ধ্ব-১৯ যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারতের ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস তোলা টাইগার বোলাররা চোখে চোখ রেখে লড়াই করেছেন। সুইং, গতি, বাউন্সে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের নাজেহাল করে ছেড়েছে টাইগার বোলাররা। ফলাফল- ইতিহাস গড়ে বিশ্বকাপ ট্রফি ঘরে তুলেছে বাংলাদেশ।*
*তবে বিশ্বকাপ জয়ের পর বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের উদযাপন নিয়ে নানা কথাবার্তা হচ্ছে। ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে হাতাহাতি এমনকী বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা কেড়ে নেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। তবে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের উদযাপন মুগ্ধ করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের প্রধান নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসিকে।*

*সংস্থাটির পক্ষ থেকে সোশ্যাল সাইটে ভিডিও পোস্ট করে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ জানে কীভাবে উদযাপন করতে হয়।*
*আইসিসির প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, একদিকে কোচ নাভিদ নেওয়াজে কাঁধে মাথা রেখে আনন্দ অশ্রুতে ভাসছেন রাকিবুল হাসান, অন্যদিকে গ্যালারিতে দর্শকদের মাতিয়ে রাখছেন দলের কন্ডিশনিং কোচ রিচার্ড স্টয়নার।*

*এই আনন্দের মুহূর্তে শেয়ার করে আইসিসি ক্যাপশন দিয়েছে, ‘এই বাংলাদেশ দল সত্যিই জানে কীভাবে উদযাপন করতে হয়ে। একবার দেখুন, ঐতিহাসিক জয়ের পর মাঠে তাদের উদযাপন।’*
*উল্লেখ্য, এদিন শিরোপা জয়ের পর বাংলাদেশ দল যখন পতাকা হাতে উদযাপনে ব্যস্ত, তখন হুট করেই দেখা যায় একটা জটলার মধ্যে প্রায় হাতাহাতির অবস্থা দুই দেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে। পরে কোচিং স্টাফদের মধ্যস্থতায় থামে সে দফার ঝগড়া। এর খানিকপরেই দেখা যায়, বাংলাদেশের পতাকা টানছেন ভারতের জার্সি পরা এক খেলোয়াড়। মূলত উদযাপনরত খেলোয়াড়দের কাছ থেকে পতাকা ছিনিয়ে নেয়াই ছিল উদ্দেশ্য। সে ঘটনা টিভি স্ক্রিনে ধরা পড়তেই সরিয়ে নেয়া হয় ক্যামেরা।*