প্রচ্ছদ স্বাস্থ্য *গো’পন ত’থ্য ফাঁ’স, চীনে করো’নায় মৃ’ত্যু হয়েছে ২৫ হাজার!*

*গো’পন ত’থ্য ফাঁ’স, চীনে করো’নায় মৃ’ত্যু হয়েছে ২৫ হাজার!*

57
*গোপন তথ্য ফাঁস, চীনে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২৫ হাজার!*

*সরকারি ত;থ্যমতে চীনে প্রাণ’ঘাতী করো’নাভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৫৬০ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে এবং আ’ক্রান্ত হয়েছে ২৮ হাজার ১৮ জন।*
*কিন্তু চীনা প্র;যুক্তিপ্রতিষ্ঠান টেন’সেন্ট থেকে ফাঁ’স হওয়া এক তথ্যে বলা হয়েছে, করো’নাভাইরাসে মৃ’ত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৫৮৯ জনের। আর আক্রা’ন্ত হয়েছেন ১ লাখ ৫৪ হাজার ২৩ জন।*
*গত শনিবার টে’নসেন্টের ওয়ে’বপেজে মহা’মারি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ’ শিরোনামে এ ত’থ্য প্রকাশ করা হয়।*

*প্রকাশিত তথ্যে বলা হয়, করো’নাভাইরাসের মৃ’ত্যুর সংখ্যা ২৪ হাজার ৫৮৯ জন। এসময় সরকারি তথ্য অনুযায়ী মৃ’ত্যুর সংখ্যা ছিল ৩০০। আর আক্রা’ন্তের সংখ্যা বলা হয়েছে ১ লাখ ৫৪ হাজার ২৩ জন। যা সরকারি তথ্য আ’ক্রান্তের সংখ্যার চেয়ে দশগুণ বেশি।*
*তবে কিছুক্ষণ পরই টে’নসেন্ট তাদের তথ্য সংশোধন করে নেয়। সংশোধনের পর সেখানে সরকারি হিসাব ঝুলিয়ে দেওয়া হয়।*
*উহান থেকে ছড়িয়ে যাওয়া নভেল করো’নাভাইরাস বিষয়ে চীনা সরকারের পরিসংখ্যান নিয়ে ইতোমধ্যে প্রশ্ন তুলেছেন বিশেষজ্ঞরা। এরমধ্যে টে’নসেন্টের এই পরিসংখ্যান চীনা কর্তৃপক্ষকে বেশ বেকায়দায় ফেলবে এটাই স্বাভাবিক।*

*ম’রদেহ পোড়ানোর ধোঁয়ায় ছেয়ে গেছে চীনের আকাশ!*
*বিশ্বজুড়ে আ’তঙ্ক সৃষ্টিকারী করো’নাভাইরাসে চীনে সরকারি তথ্যে এখন পর্যন্ত মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৬৩ জনে। করো’নায় আক্রা’ন্তের কারণে বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে চীন।*
*রাস্তায় গাড়ি-ঘোড়া নেই, কল-কারখানাও সব বন্ধ। তারপরও ধোঁয়াশায় ছেয়ে আছে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর। অনেকের ধারণা, সপ্তাহখানেক ধরে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা করো’নাভাইরাসে মৃ’তদের মর’দেহ পোড়ানোর কারণেই এই ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে।*

*অধিকাংশ মৃ’ত্যু ও নতুন সংক্রমণের ঘ’টনা ঘট’ছে হুবেই প্রদেশে, যে প্রদেশের উহান শহরকে এ ভা’ইরাসের উৎসস্থল বলা হচ্ছে। দেশটির বাকি মৃ’ত্যুর ঘটনাগুলো উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ হে’ইলংজিয়াংয়ের তিয়া’নজিন শহর ও গুই’ঝৌ প্রদেশে ঘটেছে।*
*এর আগে, গত ১ ফেব্রুয়ারি চীনের ন্যাশনাল হেলথ কমিশন ঘোষণা দেয়, করো’নাভাইরাসে যারা মারা যাচ্ছে, তাদের মরদেহ অবশ্যই পু’ড়িয়ে ফেলতে হবে। এ কারণে দিনরাত কাজ করতে হচ্ছে শেষকৃত্যে নিয়োজিত কর্মীদের। তারা বিভিন্ন হাসপাতাল, বাড়িঘর থেকে করো’নাভাইরাসে মৃ’তদের ম’রদেহ সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট স্থানে নিয়ে পু’ড়িয়ে ফেলছেন।*

*ইউন নামে উহা’নের এক শ্মশানকর্মী জানান, প্রতিদিন কমপক্ষে ১০০টি ম’রদেহ পোড়া’চ্ছেন তারা। গত ২৮ জানুয়ারি থেকে তিনি ও তার প্রায় সব সহকর্মীই সপ্তাহে সাতদিন ২৪ ঘণ্টাই কাজ করছেন।*
*ডিসেম্বর মাসের শেষ দিকে চীনে করো’নাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্বজুড়ে আ’তঙ্ক সৃষ্টি হয়। চীনের বাইরে এ ভাই’রাসে মৃ’ত্যুর খবর পাওয়া গেছে ফিলিপাইন এবং হং’কংয়ে।*