প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় *শেখ হাসিনা কেনো উ’দ্বিগ্ন?*

*শেখ হাসিনা কেনো উ’দ্বিগ্ন?*

875
*কেনো উদ্বিগ্ন শেখ হাসিনা?*

*আওয়ামী লীগ সভাপতির কাছে তাঁর দল একটা পরিবার এবং তাঁর দলের নেতা-কর্মীরা তাঁর সন্তান, ছোট ভাই কিংবা নিকটাত্মীয়ের মতোই। কিন্তু গত কয়েকমাসে একের পর এক প্রিয়জন হারাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা নিজেই তাঁর ঘনিষ্ঠদের বলেছেন যে, একজন কর্মী মা’রা যাওয়া মানে তাঁর একজন আত্মীয় মা’রা যাবার মতোন দু’র্ভাগ্যজনক এবং শো’কবিহ্বল ঘট’না।*

*সাম্প্রতিক সময়ে আওয়ামী লীগের এম’পি আবদুল মান্নান, ইসমাত আরা সাদেক, ড. মোজাম্মেল মারা গেছেন। আওয়ামী লীগের এ’মপি নন কিন্তু ফজিলাতুন্নেছা বাপ্পি, যিনি শেখ হাসিনার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিলেন তিনিও মারা গেছেন। হৃদরোগে আ’ক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়েছিলেন জাহাঙ্গীর কবীর নানক আবার গত বছরের পর এবছরে দ্বিতীয় দফায় অ’সুস্থ হলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আর একের পর এক মৃত্যু এবং অ’সুস্থ হবার ঘট’নায় উ’দ্বিগ্ন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি মনে করছেন যে, এই দলের নেতা’কর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে স্বৈরা’চারবিরোধী আ’ন্দোলন, অপশাসনের বি’রুদ্ধে আ’ন্দোলন সংগ্রাম করেছেন, জে’ল-জু’লুম নির্যা’তনের শি’কার হয়েছেন ফলে তাদের শারীরিক শক্তি এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষ’মতা স্বাভাবিক মানুষের তুলনায় অনেকটাই কম।*

*প্রত্যেকের ভেতরেই নানা রকম রোগ দানা বেঁধে আছে। এর কারণ হলো আওয়ামী লীগ মানে আরাম আয়েশের জীবন নয়, আওয়ামী লীগের একজন কর্মীকে ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর থেকে দীর্ঘ সংগ্রাম এবং প্রতিকূল অবস্থা পাড়ি দিতে হয়েছে। বারবার জে’লজুলুম নির্যা’তন ভোগ করতে হয়েছে এবং শারীরিক আর মানসিক নী’পিড়নের কারণে অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করছেন।*

*এখন আওয়ামী লীগ টানা ১১ বছর ক্ষমতায় রয়েছে কিন্তু সেই ক্ষতগুলোর কারণে এখনও আওয়ামী লীগের নে’তাকর্মীরা অসুখে পড়ছেন এবং অকালে মৃ’ত্যুবরণ করছেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা একারণেই দলের নে’তাকর্মীদেরকে স্বাস্থ্যের প্রতি নজর দেয়া, খাদ্যাভাস পরিবর্তন করা এবং নিয়ম মেনে জীবনযাপনের উপর গুরুত্ব দিচ্ছেন। আজ সকালে যখন ওবায়দুল কাদের অ’সুস্থ হয়ে পড়েন তখন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা অত্যন্ত আবেগ আপ্লুত এবং প্রচণ্ড উদ্বি’গ্ন হয়ে পড়েন। প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ সুত্রগুলো বলছেন, শেখ হাসিনা নিজে বারবার ফোন করে ওবায়দুল কাদেরের খোঁজখবর নিচ্ছিলেন এবং আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রধানমন্ত্রীকে ওবায়দুল কাদেরের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে অবহিত করছিলেন। সেসময় শেখ হাসিনা তাঁর ঘনিষ্ঠজনদের বলছিলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বারবার এভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন কেন?*

*আওয়ামী লীগের একাধিক নেতাই বলছেন, আওয়ামী লীগ জন্ম থেকে প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে। নে’তাকর্মীরা ত্যাগ তিতিক্ষা করেছেন। আওয়ামী লীগের অনেক নে’তাকর্মী চিকিৎসা তো দূরের কথা, ঠিকমতো খেতে পারেননি। নির্যা’তনের চিহ্ন আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নে’তার শরীর এবং হৃদয়ে। আর এ কারণেই আওয়ামী লীগ সভাপতি মনে করেন যে, পঁচাত্তর পরবর্তী আওয়ামী লীগের যে প্রজন্ম। যারা বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর জে’ল জুলু’ম নি’র্যাতন ভো’গ করে আওয়ামী লীগের হাল ধরেছিলেন এবং আওয়ামী লীগকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সংগ্রাম করেছিলেন; তাদের দিকে এখন নজর দিতে হবে।*

*শুধু তাই নয়, তরুণ প্রজন্মের যারা আছেন তারাও যেন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে থেকে যেন তাদের শারীরিক দিকে যত্ন নেয় সে ব্যাপারটিও নিশ্চিত করার জন্য তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন।*
*আওয়ামী লীগের একাধিক নে’তা মনে করছেন, রাজনীতি একটি সার্বক্ষণিক কাজ। রাজনীতি করতে গিয়ে তাদেরকে বিভিন্ন সময় দিন রাত একাকার করে দিতে হয়। এরফলে তারা স্বাস্থ্যগত যত্ন নিতে পারেন না। এ কারণেই বিভিন্ন সময় অঘ’টনগুলো ঘ’টছে। এটা নিয়ে মমতাময়ী নে’তা আওয়ামী লীগের সকলের অভিবাবক শেখ হাসিনা উদ্বি’গ্ন হবেন এটাই তো স্বাভাবিক।*