প্রচ্ছদ আইন-আদালত *মিয়ানমারের বি’রুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদা’লতের ৪ আ’দেশ*

*মিয়ানমারের বি’রুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদা’লতের ৪ আ’দেশ*

862
*মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতের ৪ আদেশ*

*রোহিঙ্গা গণহ’ত্যা মা’মলায় মিয়ানমারের বি’রুদ্ধে চারটি আ’দেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক বি’চার আদা’লত (আ’ইসিজে)। এই চার আদে’শে বলা হয়েছে-*
*রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দিতে হবে। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সদস্যদের হ’ত্যা, নিপী’ড়ন, বাস্তুচ্যুতির মতো পদক্ষেপ গ্রহণ থেকে বিরত থাকতে হবে। মিয়ানমারের সে’নাবাহিনী বা অন্য রাষ্ট্রীয় অন্য কোনো বা’হিনী রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যা’তন চালাতে পারবে না। এমনকি নির্যা’তনের ষড়’যন্ত্রও করতে পারবে না। দায়ী সে’নাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।*
*প্রতি মাসে মিয়ানমার সরকারকে গাম্বিয়ার সঙ্গে বসতে হবে এবং গাম্বিয়ার প্রশ্নের জবাব দিতে হবে।*

*আগামী ৪ মাসের মধ্যে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় নেওয়া পদক্ষেপের রি’পোর্ট আদা’লতে জমা দিতে হবে। এরপর প্রতি ছয় মাস পরপর প্রতিবে’দন দিতে হবে। গাম্বিয়া এই প্রতি’বেদন পর্যালোচনা করে তার পরিপ্রেক্ষিতে আদা’লতের কাছে আ’বেদন করতে পারবে।*
*আজ বৃহস্পতিবার নেদারল্যান্ডসের রাজধানী দ্য হেগে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় আই’সিজের প্রধান বিচারপতি আবদুল কাভি আহমেদ ইউসুফ আ’দেশ ঘো’ষণা করেন। আ’দেশ ঘোষ’ণার শুরুতে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়ার দা’য়েরকৃত মাম’লার পক্ষে রোহিঙ্গা নি’পীড়ন ও গণহ’ত্যার যেসব আ’লামত আদা’লতের কাছে উপস্থাপন করা হয়েছিল, সেসব বিরোধের ভিত্তি হিসেবে গ্রহণ করা যেতে পারে বলে মন্তব্য করেন বিচারপতি ইউসুফ।*

*মিয়ানমার গাম্বিয়ার করা মা’মলা খারিজ করে দিতে আ’বেদন করেছিল। মিয়ানমারের নেত্রী যুক্তি দেখিয়েছিলেন যে, রাখাইনে যে ঘ’টনা ঘ’টেছে সেটা বিচারের এখতি’য়ার এই আদাল’তের নেই। আদা’লত মিয়ানমারের এই যুক্তি খারিজ করে দিয়েছে।*
*রোহিঙ্গারা রাখাইনে বর্ব’রোচিত হাম’লার শি’কার হয়েছে এবং এর ফলে গণহ’ত্যার মতো অপ’রাধ সংগঠিত হয়েছে এই বিষয়টি উল্লেখ করে মিয়ানমারের বি’রুদ্ধে গত নভেম্বরে অভি’যোগ আনে গাম্বিয়া। মা’মলাটি কয়েক বছর ধরে চলতে পারে এই আশঙ্কায় পাচঁটি বিষয়ে কোর্টের কাছে অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ চায় গাম্বিয়া। যে বিষয়গুলোর জন্য অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ চাওয়া হয় সেগুলো হচ্ছে- গণহ’ত্যা ব’ন্ধের জন্য মিয়ানমার অবিলম্বে ব্যবস্থা নেবে; মি’লিটারি, প্যারা’মিলিটারি ও বেসা’মরিক অস্ত্র’ধারী ব্যক্তি কোনও ধরনের গণহ’ত্যা না চালাতে পারে সে ব্যবস্থা নেওয়া; মিয়ানমার গণহ’ত্যা সংক্রান্ত কোনও ধরনের প্রমাণ নষ্ট করবে না; এবং বর্তমান পরিস্থিতিকে আরও বেশি জটিল ও খারাপ করে এমন কোনও কাজ করবে না। পঞ্চম বিষয়টি হচ্ছে আদেশের পরে আগামী ৪ মাসের মধ্যে উভয়পক্ষ তাদের নেওয়া পদক্ষেপ কো’র্টকে অবহিত করবে।*

*আদালত আজ গাম্বিয়ার প্রায় সবগুলো আবেদনের পক্ষে সায় দিলেও একটি আবেদন বাতি’ল করেছে। গাম্বিয়ার আবেদনে বলা হয়েছিল, জেনো’সাইডের অভি’যোগে আবেদনের সঙ্গে সম্পৃক্ত কোনো তথ্য-প্র’মাণ মিয়ানমার ধ্বং’স করবে না বা সেগুলোর অবস্থান বদলাতে পারবে না। গাম্বিয়ার এই দাবিটি মঞ্জুর করেননি আদালত।*

*রোহিঙ্গা গণহ’ত্যা; আদালতের আ’দেশ নিয়ে যা বলছে বিশ্ব*
*আন্তর্জাতিক আদালতে (আ’ইসিজে) গণহ’ত্যা কনভেশনের অধীনে মিয়ানমারের বিরু’দ্ধে গাম্বিয়ার করা মা’মলায় আদালত বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) আ’দেশ ঘো’ষণা করেছেন। এ রায়ের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় যা বলছে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ কিছু ব্যক্তিবর্গ;*
*রোহিঙ্গা প্রতিনিধি তুন খিন এই রা’য়কে একটি মাইলফলক বলে বর্ণনা করেছেন।*

*দ্য হেগে সৌদি রাষ্ট্রদূত আব্দুল আজিজ আবুহামেদ মা’মলার এই রা’য়কে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় একটি বড় অগ্রগতি বলে মন্তব্য করেছেন।*
*বাংলাদেশের প্রতিনিধি জাতিসংঘের জে’নেভা দপ্তরের স্থায়ী প্রতিনিধি এই আদেশকে একটি বড় পদক্ষেপ হিসেবে অভিহিত করেছেন।*
*মিয়ানমারের প্রতিনিধি এবং আইনজীবীরা আ’দালতের আ’দেশের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।*

*আদালতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও একজন অ্যাড’হক বিচারপতি বর্তমান আদে’শের সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করেছেন। আদা’লতের আ’দেশ ঘোষ’ণার পরপরই অধিবেশন শেষ হয়েছে।*
*মিয়ানমারের প্রতি চারটি অন্তর্বর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের নি’র্দেশ দিয়েছে আ’দালত। আদাল’তের এসব নির্দেশনা সর্বসম্মত।*
*রোহিঙ্গা গণহ’ত্যার অভি’যোগে মিয়ানমারের বি’রুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসি’জে) গাম্বিয়ার দা’য়ের করা মাম’লার অন্তর্বর্তী রায় ঘোষণা হয়েছে। আ’দালত জানিয়েছেন, গাম্বিয়া নিজেদের নামে আবে’দন করেছে। তারা চাইলে ওআ’ইসি বা যেকোনো সংস্থা অথবা যেকোনো দেশের সহযোগিতা চাইতে পারে। গাম্বিয়া চাইলে তাদের মাম’লা চালিয়েও যেতে পারে।*

*আন্তর্জাতিক বিচার আদালত জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা গণহ’ত্যা নিয়ে গাম্বিয়ার করা মাম’লায় আদা’লতের এখতি’য়ার নেই বলে যে দাবি করেছে মিয়ানমার আন্তর্জাতিক বি’চার আদা’লত তা প্রত্যাখ্যান করেছে। আর গাম্বিয়া মিয়ানমারকে যে নো’ট ভার’বাল দিয়েছিল তা বিরোধের ভিত্তি হিসেবে গ্রহণযোগ্য বলেও মন্তব্য করেছেন আদা’লত। আদা’লত এও জানিয়েছেন যে, গণহ’ত্যা ঠেকাতে মিয়ানমারকেই সব ধরনের উদ্যোগ নিতে হবে।*

*গাম্বিয়ার দা’য়ের করা মা’মলার রায় ঘোষ’ণায় আ’দালত জনিয়েছেন, রোহিঙ্গাদের হ’ত্যা, নিপী’ড়ন, বাস্তুচ্যুতির মতো পদক্ষেপ গ্রহণ থেকে বিরত থাকাতে হবে। রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় আই’সিজের কাছে গাম্বিয়া যে পাঁচটি অন্তর্বর্তী ব্যবস্থার জন্য আবে’দন করেছে তার মধ্যে চারটি মঞ্জুর করেছেন আ’দালত।*