প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট *বঙ্গবন্ধু বিপিএল: জমজমাট ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী*

*বঙ্গবন্ধু বিপিএল: জমজমাট ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী*

38
*বঙ্গবন্ধু বিপিএল: জমজমাট ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী*

*আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ আর ধুন্ধুমার লড়াইয়ের উত্তেজনায় ঠাসা বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ফাইনালে খুলনা টাইগার্সকে ২১ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নের মুকুট মাথায় চড়ালো রাজশাহী রয়্যালস।*
*শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট গ্রাউন্ডে জমজমাট এই ফাইনাল ম্যাচে মুশফিকুর রহীমের খুলনা টাইগার্সের বিরুদ্ধে ২১ রানের জয় নিয়ে প্রথমবারের মত বিপিএলের কোনো আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করলো রাজশাহী রয়্যালস।*

*এদিন সন্ধ্যায় শুরু হওয়া ম্যাচটিতে টস জিতে রাজশাহীকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান খুলনার অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। ব্যাটিংয়ে নেমে রাজশাহীকে ভালো শুরু এনে দিতে ব্যর্থ হয় ওপেনিং জুটি। স্কোরবোর্ডে মাত্র ১৪ রান উঠতেই মাত্র ৮ বলে ১০ রান সাজঘরে ফেরেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। খুলনাকে প্রথম সাফল্য এনে দেন কোয়ালিফায়ারে দলটির জয়ের নায়ক মোহাম্মদ আমির। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে বিপর্যয় সামাল দেন লিটন দাস ও ইরফান শুক্কুর। এ জুটিতে আসে ৪৯ রান। তাদের জুটি ভেঙে খুলনাকে ম্যাচে ফেরান শহিদুল ইসলাম। বিপর্যয় সামাল দিলেও লিটনের ধীরগতির ব্যাটিংয়ে ৬৪ রান তুলতেই ৯ ওভারের বেশি খেলতে হয় রাজশাহীকে। ২৮ বলে ১ চার ও ১ ছয়ে ২৫ রান করেন লিটন।*

*পরে শোয়েব মালিক ক্রিজে এলে হাত খুলে খেলতে শুরু করেন ক্রিজ আকড়ে থাকা শুক্কুর। মালিক ও শুক্কুরের জুটিতে স্কোরবোর্ডে জমা হয় আরও ৩১ রান। নড়োবড়ে ব্যাটিং নিয়ে এদিন মাত্র ১৩ বলে ৯ রান করে ফিরে যান মালিক। মালিক আউট হওয়ার পর তার পথ ধরেন শুক্কুরও তবে আউট হওয়ার আগে তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। দলীয় ৯৯ রানে ক্রমশ ভয়ংকর হয়ে ওঠা শুক্কুরকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন আবারও সেই আমির। আউট হওয়ার আগে এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ৬ চার ও ২ ছক্কায় করেন ৩৫ বলে ৫২ রান।*

*৪ উইকেট হারানোর পরই রাজশাহীর বিধ্বংসী ব্যাটিং প্রলয় শুরু হয় যখন ক্রিজে আসেন মোহাম্মদ নেওয়াজ ও আন্দ্রে রাসেল। নেওয়াজ ২০ বলে ৪১ ও রাসেল ১৬ বলে ২৭ রান করে অপরাজিত থাকেন। এ জুটিতে ৩৪ বলে আসে ৭১ রান যাতে ছিল ৫টি ছয় ও ৬টি চারের মার। শেষ পর্যন্ত জয়ের জন্য টাইগার্সদের সামনে ১৭১ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় রয়্যালস।*

*লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে খুলনা টাইগার্স। ব্যাটিংয়ে নেমে নিজেদের ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই উইকেট হারায় খুলনা। মোহাম্মদ ইরফানের বলে রানের খাতা খোলার আগেই উইকেটের পেছনে লিটনের হাতে ধরা পড়েন নাজমুল হাসান শান্ত। এরপর দলীয় ১১ রানে আবু জায়েদের দলে ফিরে যান মেহেদী মিরাজও। দুই ওপেনারকে হারিয়ে ধুঁকতে থাকে খুলনা।তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে কিছুটা চাপা কাটিয়ে ওঠে মুশফিকের দল। এরপর তৃতীয় উইকেটে দলের হাল ধরেন শামসুর রহমান ও রাইলি রুশো। শুরুর বিপর্যয় সামলে পাল্টা আক্রমণে রাজশাহীকে কিছু সময়ের জন্য চাপে ফেলে খুলনা।*
*তবে শেষ পর্যন্ত খুলনার স্বপ্ন গুড়িয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়নের তকমা সেঁটেই বিপিএলে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করে রাজশাহী।*