প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় *এবার ক্যা’সিনোকাণ্ডে ফেঁ’সে যাচ্ছেন মে’য়র খোকন!*

*এবার ক্যা’সিনোকাণ্ডে ফেঁ’সে যাচ্ছেন মে’য়র খোকন!*

172
*এবার ক্যাসিনোকাণ্ডে ফেঁসে যাচ্ছেন মেয়র খোকন!*

*আলোচিত ক্যা’সিনোকাণ্ডে এবার ফেঁ’সে যেতে পারেন ঢাকা দক্ষিণের মে’য়র সাঈদ খোকন। ক্যা’সিনোর মাধ্যমে অ’বৈধ সম্পদ অর্জনের অভি’যোগে তাকে দুর্নী’তি দ’মন কমি’শনে (দুদ’ক) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হতে পারে। অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে এরইমধ্যে খোকনের একান্ত স’চিব (এপি’এস) শেখ কুদ্দুসসহ ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কার্যালয়ে ত’লব করেছে দুদ’ক।*

*দু’দক সূ’ত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সংস্থাটির পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন স্বাক্ষরিত আলাদা চিঠিতে তাদের ত’লব করা হয়। ত’লব করা অন্য দু’জনের মধ্যে একজন হলেন জাতীয় সংসদের হুই’প শামসুল হক চৌধুরীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা (পি’এ) এজাজ চৌধুরী এবং যুবলীগের সা’বেক সহসম্পাদক মুন্সীগঞ্জের জাকির হোসেন। তাদের মধ্যে শেখ কুদ্দুস ও এজাজ চৌধুরীকে ২১ জানুয়ারি এবং জাকির হোসেনকে ২০ জানুয়ারি দু’দকে হাজির হতে বলা হয়েছে। তাদের ত’লবের পাশাপাশি ডিএস’সিসির মে’য়র সাঈদ খোকন এবং জাতীয় সংসদের হু’ইপ শামসুল হক চৌধুরীর বিরু’দ্ধেও দু’দক অনুস’ন্ধান করছে বলে জানা গেছে।*

*দু’দকের ত’লব করা নো’টিশে বলা হয়, ঠিকা’দার জি’কে শামীমসহ অন্যান্য ব্যক্তির বি’রুদ্ধে সরকারি কর্মকর্তাদের শত শত কোটি টাকা ঘু’ষ দিয়ে বড় বড় ঠি’কাদারি কাজ নিয়ে বিভিন্ন অনিয়মের মাধ্যমে সরকারি অর্থ আত্ম’সাৎ, ক্যা’সিনো ব্যবসা করে শত শত কোটি টাকা অর্জন করে বিদেশে পাচার ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে অনুসন্ধান চলছে। সুষ্ঠু অনুসন্ধানের জন্য বক্তব্য রেকর্ড করে পর্যালোচনা করা একান্ত প্রয়োজন। এরই ধারাবাহিকতায় তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ত’লব করা হয়েছে।*

*জানা গেছে, গত ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যা’সিনোবিরোধী অ’ভিযান শুরু হলে প্রথম দিনই রাজধানীর ইয়ং’মেনস ফকিরাপুল ক্লাবে অভি’যান চালানো হয়। সেখান থেকে গ্রেফতার হন ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক (পরে বহি’ষ্কার করা হয়) খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। এরই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন অভি’যানে একে একে গ্রেফতার হন কথিত যুবলীগ নেতা ও ঠি’কাদার এ’সএম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি’কে শামীম, মোহামেডান ক্লা’বের ডা’ইরেক্টর ইন’চার্জ মো. লোকমান হোসেন ভূঁইয়া, ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট,*

*সম্রাটের সহযোগী এনামুল হক আরমান, জাকির হোসেন, কলাবাগান ক্রীড়া চ’ক্রের সভাপতি মোহাম্মদ শফিকুল আলম (ফিরোজ), অন’লাইন ক্যা’সিনোর হোতা সেলিম প্রধান এবং ও’য়ার্ড কা’উন্সিলর হাবিবুর রহমান (মিজান) ও তারেকুজ্জামান রাজীব। গ্রেফতার হওয়া এসব ব্যক্তির বি’রুদ্ধে অবৈ’ধভাবে বিপুল অর্থের মালিক হওয়া, অর্থপাচারসহ নানা অভি’যোগ ওঠে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের অপকর্মে সহযোগী ও পৃষ্ঠপোষক হিসেবে সংসদ সদস্য, রাজনীতিক, সরকারি কর্মকর্তাসহ বিভিন্নজনের নাম উঠে আসে। আইন-শৃঙ্খলা র’ক্ষাকারী বাহি’নীর তদন্তের পাশাপাশি তাদের অ’বৈধ সম্পদের খোঁজে মাঠে নামে দুদ’ক।*

*গত ৩০ সেপ্টেম্বর ক্যাসি’নোকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের সম্প’দ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদ’ক। পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নে’তৃত্বে ৫ সদস্যের অনুসন্ধান দল গঠন করা হয়। পরে আরও দু’জনকে দলে যুক্ত করা হয়। দলের অন্য সদস্যরা হলেন- উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম, মো. সালাহউদ্দিন, সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম, আতাউর রহমান ও মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী। তাদের অনু’সন্ধানে এবার ক্যাসি’নোকাণ্ডে অবৈ’ধ সম্পত্তি অর্জনে দক্ষিণের সা’বেক মে’য়র সাঈদ খোকনের নামও পাওয়া গেছে বলে নিশ্চিত করেছে দুদ’কের একাধিক সূত্র।*
*তবে শেখ কুদ্দুস নামে নিজের কোনো এপি’এস নেই বলে জানিয়েছেন সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, দুদ’ক কেন এ ঘটনার সঙ্গে আমার নাম জুড়ে দিয়েছে তা আমি জানি না। তবে শেখ কুদ্দুস নামে আমার কোনো এপি’এস নেই।*