প্রচ্ছদ আইন-আদালত *ক্যা’সিনো সাঈদ গো’য়েন্দা নজর’দারিতে*

*ক্যা’সিনো সাঈদ গো’য়েন্দা নজর’দারিতে*

215
*ক্যা'সিনো সাঈদ গো'য়েন্দা নজর'দারিতে*

*ক্যা’সিনো নিয়’ন্ত্রক ও অপ’কর্মের হো’তা কাউ’ন্সিলর মমিনুল হক সাঈদকে নজ’রদারিতে রেখেছে গো’য়েন্দারা। অপসারিত এই কাউন্সি’লর সাঈদ যেকোনো সময় গ্রেফতার হতে পারেন। ক্যাসি’নো নির্মুল অভি’যান শুরু হলে ঢাকা দক্ষিণ সি’টি করপো’রেশনের ৯নং ওয়া’র্ডের ক্যা’সিনো সাঈদ প্রতিবেশী দেশে পালিয়ে যায়। সম্প্রতি তিনি দেশে ফিরেছেন। এখন তিনি ভোটের মাঠে সক্রিয়। খেলার ক্লা’বে ক্যা’সিনো পরিচালনার অন্যতম মূলহোতা বলেও তাকে আখ্যা দিয়েছিল আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহি’নী।*

*গোয়ে’ন্দা সূত্র জানায়, অবৈধভাবে প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা উপার্জনের অভি’যোগে তার নামে দুদ’কে মাম’লা রয়েছে। এত কিছুর পরও এবার সিটি নির্বাচনে কাউ’ন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন তিনি ও তার স্ত্রী। এ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে, ক্যাসি’নো থেকে অ’বৈধ অর্থ উপার্জনের অভি’যোগ থাকলেও কীভাবে নির্বাচন করছেন সাঈদ? ক্যা’সিনো অভি’যানের পর সাঈদ পলাতক থাকলেও হঠাৎ তার প্রার্থী হওয়া নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।*

*তার নামে মাম’লা থাকার পরও তিনি কীভাবে প্রার্থী হলেন আর কেনই বা তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না, এ বিষয়ে জানতে চাইলে সি’আইডি কর্মকর্তা বলছেন, সাঈদের নামে হওয়া ৯টি মা’নি ল’ন্ডারিং মা’মলা ছাড়াও আরও ১০টি মাম’লা রয়েছে। সেগুলো তদন্তের জন্য ফা’ইল খুলেছে সি’আইডি। তদন্ত শেষে তার সংশ্লিষ্টতার ত’থ্য প্রমাণ থাকলে তাকে যেকোনো সময় গ্রেফতার করা হতে পারে। বর্তমানে তাকে আমরা ন’রদারিতে রেখেছি।*

*এদিকে সোমবার (১৩ জানুয়ারি) ক্যাসি’নো কা’ন্ডে জড়িত এনামুল ও রুপনের গ্রেফতারের পর এক সংবাদ সম্মে’লনে সিআ’ইডির অর্গানা’ইজড ক্রা’ইম বিভাগের ডি’আইজি ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, সাঈদ ক’মিশনারের বিরু’দ্ধে মা’নি ল’ন্ডারিং রি’লেটেড কোনো মাম’লা আমাদের কাছে নেই। কিন্তু তদন্তের ফা’ইল খোলা আছে। মা’নি লন্ডা’রিংয়ের ৯টি মা’মলা ছাড়াও ১০টি মাম’লা রয়েছে। সেগুলো তদ’ন্ত হচ্ছে। এ ছাড়া অ’ভিযোগের আবে’দনের প্রেক্ষিতে সাঈদের বি’রুদ্ধে তদ’ন্ত চলছে। তদন্ত শেষ হলে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে তাদের ধরা হবে। অন্য আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে সাঈদের নাম এসেছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, তদন্তকালীন সময় স্পেসি’ফিকভাবে (সুনির্দিষ্ট) এগুলো নিয়ে কথা বলা যাবে না। যখন আসবে আমরা সেটা গণমাধ্যমে প্রকাশ করব।*

*এর আগে গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসি’নোবিরোধী অভি’যান শুরু হলে ঢাকা মহা’নগর (দক্ষিণ) যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মমিনুল হক সাঈদ আত্মগোপনে চলে যান। তিনি বিদেশে থাকার সময়ই তার বিদেশ যাত্রায় নিষে’ধাজ্ঞা দেয় পুলিশের বিশেষ শাখা (এস’বি)। তখন আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহি’নী জানিয়েছিল, খেলার ক্লা’বে ক্যাসি’নো পরিচালনার অন্যতম রূপকার সাঈদকে তারা খুঁজে পাচ্ছে না। এর তিন মাস পর ২৬ ডিসেম্বর তিনি আবারও ঢাকায় ফেরেন। এর আগেই তার বিরু’দ্ধে অনুসন্ধান করে মা’মলা করে দুর্নী’তি দ’মন কমি’শন (দুদ’ক)।*