প্রচ্ছদ বিশ্ব *সোলাইমানির মেয়ে অ’স্ত্র হাতে ভা’ষণ দিলেন*

*সোলাইমানির মেয়ে অ’স্ত্র হাতে ভা’ষণ দিলেন*

357
*সোলাইমানির মেয়ে অস্ত্র হাতে ভাষণ দিলেন*

*ইরানের ইসলামি বিপ্ল’বী গা’র্ড বা’হিনী আই’আরজিসি’র কুদ’স ফো’র্সের প্রধান শহীদ কাসেম সোলাইমানির মেয়ে জেইনাব বলেছেন, আল্লাহর শপথ মহা’শয়তান আমেরিকার বিরু’দ্ধে আজীবন সং’গ্রাম চালিয়ে যাব। তিনি আজ বাবার জন্মশহর কের’মানে জু’মার নামাজের খুত’বার আগে দেয়া ভাষ’ণে এ কথা বলেন।*
*প্রথা অনুযায়ী এ সময় তার বাম হাতে অ’স্ত্র ছিল। ইরানে জু’মার না’মাজে ভাষণ ও খুত’বার সময় পাশে একটি রাই’ফেল রাখা হয়। সাধারণত বক্তব্য দেয়ার সময় বক্তা এমনকি খতি’ব নিজেও রাই’ফেলটি এক হাত দিয়ে ধরে রাখেন।*

*জেইনাব সোলাইমানি তার বাবার প্রতি কোটি কোটি মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রদর্শনের জন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং ভিড়ের চাপে পদ’দলিত হয়ে যারা মা’রা গেছেন তাদের পরিবারের প্রতি শো’ক ও সমবেদনা জানান।*
*জেইনাব বলেন, তার বাবাকে হ’ত্যা করে আমেরিকা সবচেয়ে বড় বোকামি করেছে। কারণ এর ফলে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান ও ইসলামি প্রতিরোধ সংগ্রা’ম দুর্বল হয়নি বরং গোটা বিশ্বের স্বাধীনচেতা মানুষ ও যুবসমাজ জেগে উঠেছে এবং নিজেদের মধ্যে ঐক্য আরও জোরদার হয়েছে।*
*তিনি বলেন, আমার বাবা কাসেম সোলাইমানি গোটা বিশ্বকে আবারও দেখিয়ে গেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় শয়’তান। এক সোলাইমানির শাহাদাতের পর হাজার হাজার সোলাইমানি প্রতিশো’ধ নিতে হোয়া’ইট হাউ’সের দিকে যেতে প্রস্তুত বলে তিনি জানান।-পা’র্সটুডে*

*ইউক্রেনের প্লে’নে ‘আ’ঘাত হা’নার’ ভি’ডিও প্রকাশ, উ’দ্বিগ্ন ইরা’ন*
*ইরানের রাজধানী তেহরানে ১৭৬ আরোহী নিয়ে বিধ্ব’স্ত ইউ’ক্রেনের বিমা’নটি ক্ষে’পণাস্ত্রের আ’ঘাতে বিষ্ফো’রিত হয়েছে বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র।*
*বি’মানে আঘা’ত হানা’র একটি ভি’ডিও প্রকাশ করেছে দেশটি। এতে উদ্বিগ্ন ইরান। তবে দেশটি দাবি করেছে, ক্ষেপ’ণাস্ত্র হাম’লায় বিধ্ব’স্ত হয়নি।*
*মার্কিন প্রভাবশালী পত্রিকা নিউই’য়র্ক টাই’মস এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও প্রকাশ করে। ১০ সেকেন্ডের ওই ভি’ডিওতে কোনও একটা বস্তুর আঘাতে বিমা’নটিতে আগুন ধরে যেতে দেখা গেছে। কিছুক্ষণ পরই প্রচণ্ড শব্দে এটি বিষ্ফো’রিত হয়।*

*পত্রিকাটির সংবাদে বলা হয়, তেহরান বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ণের পরই এতে কিছু একটা আ’ঘাত হানে। এতে বিমা’নটির ইঞ্জি’নে আগুন ধরে যায়।*
*ওই অবস্থায় পাইলট বিমানটিকে আবার তেহরানে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন। কিন্তু কয়েক মিনিট পরই এটি বিষ্ফো’রিত হয়ে সব যাত্রী ও ক্রু নিহত হন।*
*নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, তারা ওই ভিডিওটি মহাকাশ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ম্যা’ক্সার টেক’নোলজিস থেকে সংগ্রহ করেছে।*
*বুধবার সকালে তেহরানের ইমাম খোমেনি বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের পরই ইউ’ক্রেন এয়া’রলাইন্সের ওই বিমা’নটি বি’ধ্বস্ত হয়।*

*এদের মধ্যে ১৬৭ জন যাত্রী এবং ৯ জন ক্রু ছিলেন। ইরানের জরুরি সেবা বিভাগের মুখপাত্র মুজতবা খালেদি গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।*
*প্রথমে এতে মোট ১৮০ আরোহী ছিলেন বলে বিমান সংস্থাটি দাবি করলেও পরে এর আরোহী সংখ্যা ১৭৬ বলে নিশ্চিত করে।*
*ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের উদ্দেশে ইরানের বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করেছিল বি’মানটি। উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পরেই এটি বিধ্ব’স্ত হয়ে এর সব আরোহী নি’হত হন।*

*ইরানের দা’বি, ক্ষেপ’ণাস্ত্রে বিধ্বস্ত হয়নি বিমানটি। যান্ত্রিক ত্রুটির কারণেই ইউ’ক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ার’লাইন্সের বো’য়িং-৭৩৭ ম’ডেলের বিমা’নটি বি’ধ্বস্ত হয়।*’
*এক বিবৃতিতে ইরান সরকারের মুখপাত্র আলী রাবাই এমন কথা বলেছেন। তিনি বলেন, এসব প্রতিবে’দন ইরানের বিরু’দ্ধে মনস্তাত্ত্বিক ‘যু’দ্ধ। যেসব দেশের নাগরিক এই দু’র্ঘটনায় নি’হত হয়েছেন, তারা নিজেদের প্রতিনিধি পাঠাতে পারেন। বিমানের ব্ল্যা’ক ব’ক্স তদন্ত প্রক্রিয়ায় যোগ দিতে বিমা’ন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বো’য়িংকে আমরা আহ্বান জানিয়েছি।*

*এদিকে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, তার কাছে বেশ কিছু গোয়ে’ন্দা সূ’ত্রের তথ্য রয়েছে, যা এই আভাস দিচ্ছে যে তেহরান থেকে উড্ডয়নের পরেই ইউ’ক্রেনের বি’মানটিকে গু’লি করে ভূপা’তিত করেছে ইরান। এতে বিমা’নটিতে থাকা ১৭৬ যাত্রী নি’হত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৬৩ কানাডীয় নাগরিকও রয়েছেন।-খবর এএফ’পি ও রয়’টার্সের*
*উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সকালে বাগদাদে মার্কিন ড্রো’ন হাম’লায় নি’হত হন ইরানের শীর্ষ জে’নারেল কাসেম সোলাইমানি। ইরা’নের এই শীর্ষ জেনা’রেলের গুপ্তহ’ত্যায় ফুঁ’সে উঠেছে দেশটির জনগণ। গোটা মধ্যপ্রাচ্য এখন টাল’মাটাল। এই হত্যা’র ব’দলা নেওয়ার শপথ নিয়েছে ইরান ও লেবাননের হি’জবুল্লাহ।*

*সম্পাদক/এসএ*