প্রচ্ছদ জীবন-যাপন *ঢা’বি ছাত্রীর ধ’র্ষক মজনু আ’টক যে সূ’ত্র ধরে*

*ঢা’বি ছাত্রীর ধ’র্ষক মজনু আ’টক যে সূ’ত্র ধরে*

310
*ধ'র্ষক মজনু আ'টক যে সূত্র ধরে*

*রাজ’ধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ব’বিদ্যালয়ের (ঢা’বি) ছাত্রী ধর্ষ’ণের ঘট’নায় সন্দে’হভাজন ধ’র্ষক মজনুকে (৩০) ভিক’টিমের মোবা’ইলের সূ’ত্র ধরেই গ্রেপ্তার করেছে র‌্যা’পিড অ্যা’কশন ব্যাটা’লিয়ন (র‌্যা’ব)।*
*আজ রবিবার বেলা দেড়টার পর ব্রি’ফিংয়ে র‌্যা’বের পক্ষ থেকে আ’টক করা মজনুর কাছ থেকে উদ্ধা’রকৃত বিভিন্ন আলা’মত উপস্থাপন করা হয়। এ সময় আজ বুধবার আ’টক মজনুকে র‌্যা’বের মি’ডিয়া সে’ন্টারে হাজির করেছে র‌্যা’ব।*

*ভি’কটিমের মোবা’ইলটি ধর্ষ’ণের পর ছিন’তাই করে সে অরুণা নামে একজনের কাছে বিক্রি করে দেয়। পরে সেই মো’বাইলটি তিনি অন্য একজনের কাছে বিক্রি করে। সে ব্যক্তির কাছ থেকে মো’বাইলটি উদ্ধা’র করে র‌্যা’ব। সে সূ’ত্র ধরেই মজনুকে গ্রেপ্তার করে র‌্যা’ব।*
*র‌্যা’বের লিগ্যা’ল অ্যা’ন্ড মি’ডিয়া উ’ইংয়ের পরি’চালক লে. কর্নে’ল সারওয়ার বিন কাশেম বলেছেন, শ্যাওড়া সেট’শনের কাছ থেকেই মজনুকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যা’ব। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রতি’বন্ধীদের ধর্ষ’ণ করত বলেও র‌্যা’বের কাছে স্বীকার করেছে।*

*আ’টক মজনুর বাড়ি নোয়াখালির হাতিয়ায়। বয়স ৩০। সে মূলত দিনমজুর ও হকার। পাশাপাশি ছি’নতাই রা’হাজানি, চু’রি করা অভ্যাস রয়েছে। এছাড়া সে নিরক্ষর। র‌্যাব জানিয়েছে ধর্ষ’ণের পর ঢা’বির ওই শিক্ষার্থীকে হ’ত্যার চেষ্টাও করেছিল মজনু।*
*র‌্যা’ব জানায়, আ’টক মজনুর একটি দাঁত ভা’ঙা, যা ভি’কটিমের কাছ থেকে জানা গেছে। পরে সে ত’থ্য মজনুকে শ’নাক্ত করতে কাজে লাগে।*

*পরে ওই ছাত্রী ছবি দেখে ধর্ষ’ক মজনুকে শ’নাক্ত করেছে। ধর্ষ’ক মজনুর চেহারা তার স্পষ্ট মনে আছে বলেও জানিয়েছে ওই ছাত্রী।*
*সি’রিয়াল র‌্যাপি’স্ট হিসেবেও মজনু স্বীকার করেছে। বিশেষ করে প্রতিবন্ধী ও ভবঘুরে নারীদের সে ধ’র্ষণ করে থাকে। এছাড়া সে মাদ’কাসক্ত বলেও জানায় র‌্যাব।*

*মেয়েটি বললেন; সবার চেহারা ভুলতে পারি, ধর্ষ’কের চেহারা কখনো ভুলবো না*
*ঢাকা বিশ্ববি’দ্যালয়ের (ঢা’বি) ছাত্রী ধর্ষ’ণের ঘ’টনায় ‌‌‘ধর্ষ’ক’ মজনুকে (৩০) ছ’বি দেখে চিনতে পেরেছেন ওই ছাত্রী। বর্তমানে ঢাকা মে’ডিক্যাল ক’লেজ (ঢা’মেক) হাসপা’তালে চিকিৎসাধীন। র‌্যাবের পক্ষ থেকে ধর্ষ’ককে শ’নাক্ত করার জন্য তিনজনের ছবি ওই ছাত্রীকে দেখানো হয়। সে সময় ওই ধর্ষ’ক মজনুকে শ’নাক্ত করে ওই ছাত্রী।*
*আজ বুধবার ধ’র্ষক মজনুকে ধরার পর কারওয়ান বাজারে র‌্যা’পিড অ্যা’কশন ব্যাটা’লিয়নের (র‌্যা’ব) আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক সারোয়ার বিন কাশেম এ বিষয়টি তুলে ধরেন।*

*ধর্ষ’ক মজনুর ছবি কয়েকবার ওই ছাত্রীকে দেখানো হলে তিনি ওই ব্যক্তিকে নিশ্চিত করেন এবং জানান, ‘পৃথিবীর সবার চেহারা ভুলে যেতে পারি, কিন্তু ওই ধর্ষ’কের চেহারা কখনোও ভুলবো না।’*
*ধর্ষক মজনুর পরিচয় প্রসঙ্গে সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, মজনু একজন সি’রিয়াল রে’পিস্ট। ঢাকায় আসার পর বিভিন্ন রে’লস্টেশনে কিংবা এর আশপাশে থাকতো। সে একজন মা’দকাসক্ত। তার স্ত্রী মারা যাওয়ার পর পরিবারের সঙ্গে তার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হযে যায়।’*

*ঢাকায় এসে সে প্রতিবন্ধী ও নারী ভিক্ষুকদের ধ’র্ষণ করতো বলে জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাব জানতে পেরেছে।*
*আ’টক মজনুর বাড়ি হাতিয়ায়। বয়স ৩০। সে মূলত দিনমজুর ও হকার। পাশাপাশি ছি’নতাই রা’হাজানি, চু’রি করা অভ্যাস রয়েছে। এছাড়া সে নিরক্ষর। তার বাবার নাম মৃত মাহফুজুর রহমান।*
*র‌্যা’ব জানিয়েছে ধর্ষ’ণের পর ঢা’বির ওই শিক্ষার্থীকে কয়েকবার গ’লা টি’পে হ’ত্যার চেষ্টাও করেছিল মজনু।*