প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় *বঙ্গবন্ধুর বেয়াইয়ের নাম রাজাকারের তালিকায়!*

*বঙ্গবন্ধুর বেয়াইয়ের নাম রাজাকারের তালিকায়!*

116
*বঙ্গবন্ধুর বেয়াইয়ের নাম রাজাকারের তালিকায়!*

*বিতর্ক থামছেই না রাজাকারের তালিকা নিয়ে। বিষয়টি নিয়ে দেশজুড়ে বিতর্ক তুঙ্গে। সেই সঙ্গে বইছে সমালোচনার ঝড়। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রকাশিত রাজাকারদের তালিকায় উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধুর বেয়াই আব্দুল হাই সেরনিয়াবাতের নাম।*
*বঙ্গবন্ধুর ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাতের বড় ভাই আব্দুল হাই সেরনিয়াবাতের নাম রাজাকারদের তালিকায় দেখে অবাক পরিবারের লোকজন।*

*আব্দুল হাই সেরনিয়াবাতের ছেলে ভাতাপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা আমান সেরনিয়াবাত জানান, দেশ স্বাধীন হওয়ার আগে বাবা সরকারি চাকরি করতেন। কর্মস্থলে সেনাবাহিনীর প্রধান আইয়ুব খান নিয়ে নানা সমালোচনা করতেন। ধিক্কার জানাতেন। এ কারণে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের রোষানলে পড়তে হয়েছে বাবাকে। তার দোনালা বন্দুকটি যুদ্ধের জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের দিয়ে দেন। তার নির্দেশে আমরা ৪ ভাই মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে ছিলাম। যুদ্ধের সময় বাবা বাড়ি থাকতে পারেননি। মাঝে মধ্যে গোপনে এসে দেখা করে যেতেন।*
*৪৯ বছর পর আজ সেই ইতিহাস উল্টে গেছে। বাবার নাম রাজাকারের তালিকায় প্রকাশ করা হয়েছে। এ ঘটনার আমরা নিন্দা জানানোর ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। এই চক্রান্তের সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।*

*‘রাজাকারের তালিকায় ভুল থাকলে সংশোধনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর’*
*আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রাজাকারের তালিকায় ভুল থাকলে তা দ্রুত সংশোধনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক যৌথসভায় তিনি এ তথ্য জানান।*
*সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, রাজাকারের তালিকায় ভুল-ত্রুটি নিয়ে এরইমধ্যে দুঃখপ্রকাশ করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীও এ তালিকা নতুন করে যাচাই-বাছাই করে সংশোধনের নির্দেশও দিয়েছেন। সুতরাং এটি নিয়ে আর কোনো প্রশ্ন নেই।*

*সম্মেলন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, অংশগ্রহণের হিসাবে অনুযায়ী, আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সম্মেলন সর্ববৃহৎ হবে। এ সম্মেলনের মাধ্যমে নবীন ও প্রবীণের সমন্বয় ঘটানো হবে, যারা আধুনিক ও সুসংগঠিত আওয়ামী লীগ গড়ে তুলেবেন।*
*তিনি বলেন, আমাদের নিজেদের মধ্যে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা রয়েছে ও আকাঙ্ক্ষা রয়েছে। এটা দলের অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের চর্চা। কিন্তু সেটি নিয়ে যেন কোনো অসুস্থ প্রতিযোগিতা না হয়। যারা নোংরা প্রচারণা করছেন, তাদের চিহ্নিত করতে হবে।*

*ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা ছাড়া আর কেউ আওয়ামী লীগের জন্য অপরিহার্য নয়। আমরা তার নেতৃত্বের পেছনে থাকব। তিনি যাকে যে দায়িত্ব দেবেন, তা মেনে নিতে হবে।*
*বৈঠকে সম্মেলনের বিভিন্ন উপ-কমিটির নেতারা তাদের প্রস্তুতির বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে অবহিত করেন।*
*বৈঠকে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ, কেন্দ্রীয় সদস্য মোফাজ্জেল হোসেন চৌধুরী মায়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান প্রমুখ।*