প্রচ্ছদ প্রবাস *‘তোকে দুই বছরের জন্য কি’নে এনেছি’, যা জানালেন সৌ’দিফেরত হোসনা*

*‘তোকে দুই বছরের জন্য কি’নে এনেছি’, যা জানালেন সৌ’দিফেরত হোসনা*

73
*‘তোকে দুই বছরের জন্য কিনে এনেছি’, যা জানালেন সৌদিফেরত হোসনা*

*সৌ’দি আ’রবে নির্যা’তনের শি’কার হয়ে বাঁ’চার আ’কুতি জানিয়ে ভি’ডিও বা’র্তা পাঠানো হবিগঞ্জের সেই হোসনা আক্তার অবশেষে পরিবারের কাছে ফি’রেছেন। হোসনাকে বহনকারী সৌ’দি এয়ার’লাইন্সের এস’ভি-৮০৪ ফ্লা’ইট বুধবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে শাহজালাল আন্ত’র্জাতিক বিমা’নবন্দরে অব’তরণ করে। পরে প্রবাসী’কল্যাণ মন্ত্রণা’লয়ের কর্ম’কর্তারা হোসনাকে তার পরিবারের কাছে হস্তা’ন্তর করেন। রাত ৩টায় নিরা’পত্তার মধ্যদিয়ে মন্ত্রণা’লয়ের লোকজন হোসনাকে হবিগঞ্জ পৌঁছে দেয়।*

*রাত অনেক হয়ে যাওয়ায় নিজ বাড়িতে না গিয়ে হবি’গঞ্জ পৌর এলাকার উমেদ’নগরে আত্মিয়ের বা’ড়িতে থাকেন হোসনা ও তার স্বামী। পরে বৃহস্পতিবার সকালে হোসনা ও তার স্বামী নিজ বা’ড়ি আজ’মিরীগঞ্জ উপ’জেলার আনন্দ’পুর গ্রামে যান। তবে হোসনা কিছুটা অসু’স্থ বলে জানান তার স্বামী।*

*এদিকে, সৌ’দি আরবে ভয়া’বহতার কথা জানাতে গিয়ে আ’তকে উঠেন হোসনা। সেই দিনগুলোর কথা তিনি দ্রুত ভু’লে যেতে চান।*
*হোসনা জানান, সৌ’দি আ’রব যাওয়ার পর তাকে জে’দ্দা থেকে হা’জার কিলো’মিটার দূরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে ঠিকভাবে খে’তে দেয়া হয়নি একটি ঘরে ব’ন্দী করে রা’খা হয়। এরপর তার উপর চলে অমা’নসিক নির্যা’তন। দেশে আসতে চাইলে নির্যা’তনের মা’ত্রা আরও বা’ড়িয়ে দেয়া হয়।*

*তিনি জানান, ‘আমি দেশে আসার কথা বললে মালিক আমাকে বলে ‘তোকে দুই বছরের জন্য কি’নে এনেছি। সুতরাং তোকে আমরা বাংলাদেশে পাঠাব না। এরপরও আমি আসতে কান্না’কাটি করলে তারা আমাকে মার’পিট করে। পরে একদিন লুকি’য়ে আমি বা’সার ছাদে দিয়ে ভি’ডিও করে আমার স্বা’মীর কাছে পাঠাই।’*
*‘সেখানে শুধু আমি না, আমার মতো আরও অনেক নারী নির্যা’তনের শি’কার হচ্ছে। খোঁ’জ-খবর নিয়ে তাদের উ’দ্ধার করা উচিত।’*

*হোসনার স্বামী শফিউল্লাহ বলেন, ‘আমি গরিব হওয়ার কারণে দা’লাল সাহিনের প্রলো’ভনে পড়ে আমার স্ত্রীকে বিদেশ পাঠিয়েছিলাম। আর যেন কোন নারী বিদেশ না যায় যায়।’*
*তিনি বলেন, আমি দালা’ল সাহিনের দৃষ্টান্ত’মূলক বি’চার চাই। সেই সঙ্গে আমি আমার ক্ষ’তিপূরণ চাই।*
*উল্লেখ্য, ভাগ্য বদ’লের আশায় মাত্র ২৫ দিন আগে সৌদি আরব গিয়েছিলেন হোসনা আক্তার। কিন্তু সেখানে যাওয়ার কয়েকদিন পর থেকেই নি’র্মম নির্যাত’নের শি’কার হন তিনি। এক পর্যায়ে নির্যা’তন স’ইতে না পেরে বাঁ’চার আ’কুতি জানিয়ে স্বামীর কাছে একটি ভি’ডিও বা’র্তা পাঠা’ন হোসনা।*

*অবশেষে ব্রা’ক ও প্রবাসীক’ল্যাণ মন্ত্রণা’লয়ের প্র’চেষ্টায় বুধবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে সৌ’দি এয়ার’লাইন্সের এস’ভি-৮০৪ ফ্লা’ইটে শাহজালাল আন্তর্জা’তিক বিমান’বন্দরে পৌঁছেন তিনি। পরে প্রবাসী’কল্যাণ মন্ত্রণা’লয়ের কর্ম’কর্তারা তাকে পরিবারের কাছে হস্তা’ন্তর করে।*

সম্পাদক/এসটি