প্রচ্ছদ রাজনীতি *শেখ হাসিনার সংক্ষি’প্ত তা’লিকায় মহা’নগর আ’লীগের নে’তৃত্বে যারা*

*শেখ হাসিনার সংক্ষি’প্ত তা’লিকায় মহা’নগর আ’লীগের নে’তৃত্বে যারা*

393
*শেখ হাসিনার সংক্ষিপ্ত তালিকায় মহানগর আ'লীগের নেতৃত্বে যারা*

*আগামী ৩০ নভেম্বর ঢাকা মহা’নগর আওয়ামী লীগের সম্মে’লন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সোহরাও’য়ার্দী উদ্যা’নে ঢাকা মহা’নগরের উত্তর ও দক্ষিণের এই সম্মে’লন অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগের সূ’ত্রগুলো বলছে, আওয়ামী লীগের অঙ্গ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোতে যে রকম সম্মে’লনের পর বিকেলে ক’মিটি ঘো’ষণা করা হয়েছিল মহা’নগরীর কমি’টির ক্ষেত্রেও তেমনটি হবে।*
*তবে অন্য একটি সূত্র বলছে, যেহেতু আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউ’ন্সিল অনুষ্ঠিত হবে সেজন্য কাউ’ন্সিল পর্যন্ত মহা’নগরের ক’মিটি ঘোষ’ণা বিলম্বিত হতে পারে। ক’মিটি ঘোষ’ণা করা হোক বা না হোক আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধার’করা এখনো মহা’নগরের নতুন নেতা বাছাইয়ের কাজ করছেন।*

*আওয়ামী লীগের দায়ি’ত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, উত্তর ও দক্ষিণের ব্যাপারে তিন রকমের মতামত পাওয়া যাচ্ছে। প্রথমত, বিগত ঢাকা মহা’নগরীরর উত্তর এবং দক্ষিণ ক’মিটির সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে একজন করে থাকবেন। অন্যজনকে পরিবর্তন করা হবে।*
*সং’শ্লিষ্ট সূত্র’গুলো বলছে, ঢাকা উত্তরের মহা’নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি প’দে পরিবর্তন হতে পারে এবং সাধারণ সম্পা’দক পদে সাদেক খান বহাল থাকতে পারেন। আবার দক্ষিণের সভাপতি হিসেবে আবুল হাসনাত বহাল থাকতে পারেন এবং সাধারণ সম্পা’দক হিসেবে শাহ আলম মুরাদ বা’তিল হতে পারেন।*

*দ্বিতীয় যে কথাটা শোনা যাচ্ছে তা হলো, আওয়ামী লীগের মহা’নগরের উত্তর এবং দক্ষিণের দুটোরই খোল নল’চে পা’ল্টে ফেলা হবে। দুটোরই সভাপতি ও সাধারণ সম্পা’দক প’দে পবিবর্তন করে নতুন মুখ আনা হবে।*
*তৃতীয় মতামতটি হলো, আওয়ামী লীগের উত্তর এবং দক্ষিণের মহা’নগর সম্মে’লনের ক্ষেত্রে একটি চ’মক থাকবে। যেভাবে যুবলীগে শেখ ফজলে হাসান তাপসকে আনা হয়েছে সেভাবে উত্তর এবং দক্ষিণে এমন ব্যক্তিকে আনা হবে যা সাধারণভাবে কেউ ধারণা করতে পারেনি।*

*তবে যেটিই হোক না কেন আওয়ামী লীগের এই তিনটি সূ’ত্রই নিশ্চিত করেছে ঢাকা উত্তর এবং দক্ষিণের মহা’নগরের রেজাল্ট’শিট এখন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে।*
*উল্লেখ্য, রহমতউল্লা এবং সাদেক খানের নেতৃত্বে যে উত্তরের ক’মিটি এবং আবুল হাসনাত ও শাহ আলম মুরাদের নে’তৃত্বে যে কমি’টি গঠন করা হয়েছিল তার বি’রুদ্ধে নানা অভি’যোগ রয়েছে। আর সবচেয়ে বড় কথা এই ক’মিটি সাংগঠনিক ভাবে দলকে শক্তি’শালী করতে পারেনি। বরং ঢাকায় আওয়ামী লীগের যে শক্তি ছিল গত কয়েক বছরে এই ক’মিটির নে’তৃত্বে থাকা অবস্থায় সেই শক্তি বরং খ’র্ব হয়েছে। এই বিবেচনা থেকেই মহা’নগরীতে এমন কিছু নেতৃ’ত্ব আনার পরিকল্পনা হচ্ছে যারা সংগঠনকে শক্তিশালী করতে পারবে।*

*আওয়ামী লীগ মনে করছে সামনের দিনগুলোতে বিএনপি আন্দো’লন করার চেষ্টা করতে পারে আর সেই আন্দো’লন প্রতি’রোধ করার ক্ষেত্রে শুধু আ’ইন শৃঙ্খলা বাহি’নীর উপর নির্ভর করলেই চলবে না বরং সাংগঠনিক শক্তির উপরও নির্ভর করতে হবে। আর সাংগঠনিক শ’ক্তির উপর নির্ভর করতে গেলে ঢাকা হলো প্রধান শক্তি। আওয়ামী লীগের দায়ি’ত্বশীল সূ’ত্রগুলো বলছে, ঢাকা মহা’নগর উত্তর এবং দক্ষিণের যে নে’তারা মনোনয়ন প্রত্যাশী বা যারা নে’তৃত্ব চান, তাদের সম্পর্কে দলের হা’ই কমা’ন্ড খোঁ’জখবর নেয়া হয়েছে এবং যে ফলাফল তা আশানুরূপ নয়।*

*ঢাকা শহরের যারা উত্তরে এবং দক্ষিণে সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদক হওয়ার মনো’বাসনা প্রকাশ করে বিল’বোর্ড স্থাপন করেছিলেন, তাদের অধিকাংশই বিত’র্কিত এবং তাদের অনেকের বিপক্ষেই ক্ষম’তার দাপট দেখানো, টেন্ডার’বাজি এবং ভূমি দখ’ল অভিযো’গসহ নানা অভি’যোগ রয়েছে। এই বাস্তবতায় শেষপর্যন্ত ক’মিটি গঠনের ক্ষেত্রে পরিচিত মুখের পরিবর্তে নতুন কেউ আসবে কিনা তা নিয়ে জল্পনাকল্পনা রয়েছে। আওয়ামী লীগের দা’য়িত্বশীল সূ’ত্রগুলো বলছে, ঢাকা উত্তর এবং দক্ষিণের কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে মূলত মোটাদাগে পাঁচটি বিষয় বিবেচনা করা হবে।*

*১- যারা ঢাকা মহানগরীতে ১০ বছরের বেশি সময় ধরে রাজনীতি করছে, তারা নে’তৃত্বের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবে।*
*২- যাদের বিরু’দ্ধে বিগত ১০ বছরে কোন টেন্ডা’রবাণিজ্য, স’ন্ত্রাস, চাঁ’দাবাজি ইত্যাদি অভি’যোগ ওঠেনি- তারা অগ্রাধিকার পাবে।*
*৩- যারা মনোনয়ন বঞ্চি’ত কিংবা দলের থেকে কোনকিছু পাননি, কিন্তু তারপরেও দলের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছে, তারা অগ্রাধিকার পাবে।*
*৪- যারা দলের মধ্যে কো’ন্দল এবং বিভক্তি তৈরি করছে না, তারা অগ্রাধিকার পাবে।*

*৫- আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সং’কটকালে যারা অবদান রেখেছে অথচ যাদেরকে মূল্যায়ন করা হয়নি, তারা অগ্রাধিকার পাবে।*
*সং’শ্লিষ্ট সূ’ত্রগুলো বলছে, আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে ঢাকা উত্তর এবং দক্ষিণে সম্ভাব্য সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের একটি সং’ক্ষিপ্ত তা’লিকা চূ’ড়ান্ত করেছেন। তবে সেই তালিকা থেকে শেষ পর্যন্ত কারা সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক হবে তা চূ’ড়ান্ত হতে আরো কয়েকদিন সময় লাগবে বলে আওয়ামী লীগের একাধিক সূ’ত্র নিশ্চিত করেছে।*