প্রচ্ছদ রাজনীতি *যু’বলীগের চেয়া’রম্যান হি’সেবে পর’শকেই চূ’ড়ান্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী*

*যু’বলীগের চেয়া’রম্যান হি’সেবে পর’শকেই চূ’ড়ান্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী*

746
*যুবলীগের চেয়ারম্যান হিসেবে পরশকেই চূড়ান্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী*

*শেখ ফজলে শামস পর’শকে যুব’লীগের চে’য়ারম্যান হিসেবে চূ’ড়ান্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প’রশকেই যুব’লীগের পর’বর্তী চেয়া’রম্যান হিসাবে দা’য়িত্ব দিতে যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের একাধিক দা’য়িত্বশীল সূ’ত্রে এই ত’থ্য নিশ্চি’ত হওয়া গেছে।*
*আজ সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে আনুষ্ঠা’নিকভাবে পর’শের চেয়ার’ম্যান হওয়ার বি’ষয়টি জানি’য়ে দেন।*

*উল্লেখ্য বাংলাদেশ আওয়ামী যু’বলীগ শেখ ফজলুল হক মণি কর্তৃ’ক প্রতি’ষ্ঠিত একটি সংগ’ঠন। পর’শ সংগঠন’টির প্রতি’ষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির বড় ছেলে। সবসময় মনি পরি’বারের কাউকেই এই সংগঠ’নের দা’য়িত্বে রাখার চে’ষ্টা করা হয়েছে। এর আগে যুব’লীগ চেয়া’রম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ছিলেন শেখ ফজলুল হক মনির বোনের জা’মাতা।*
*গতকাল থেকেই পরশ যুব’লীগ নেতৃ’বৃন্দর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। যুব’লীগের একাধিক নেতৃ’বৃন্দ তার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে পরা’মর্শ করেন।*

*শেখ ফজলে শামস প’রশ পেশায় একজন শিক্ষক। তিনি প্রায় ১০ বছর রা’জধানীর ব্র্যা’ক বিশ্ববি’দ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। ঢাকা বিশ্ব’বিদ্যালয় থেকে ইংরে’জিতে স্নাতকো’ত্তর করেন প’রশ। এরপর যুক্ত’রাষ্ট্রের কলো’রাডো স্টে’ট ইউনি’ভার্সিটি থেকে ইংরে’জিতে ফে’র স্না’তকোত্তর ডি’গ্রি লা’ভ করেন।*
*ফজলে শামস প’রশ ব্যারি’স্টার ফজলে নূর তাপসের বড় ভাই। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগ’স্ট সপ’রিবারে বঙ্গবন্ধুকে হ’ত্যার দিন তার বাবা-মা প্রা’ণ হারা’ন। পর’শের বর্তমান বয়স ৫১ বছর।*

*সংশ্লিষ্ট’রা মনে করছেন, শিক্ষিত মা’র্জিত এবং ক্লি’ন ইমে’জের অধি’কারী পরশই হয়তো পারবেন যুবলীগকে একটা ক্লি’ন ই’মেজের যুবলীগ হিসাবে পুনঃপ্রতি’ষ্ঠিত করতে।*
*উল্লেখ্য পরশ প্রথমে যুবলীগের দা’য়িত্ব নিতে রা’জি ছিলেন না। কিন্তু পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আ’গ্রহের কারণেই পরশ রা’জি হন। পরশের রা’জি হওয়ার মধ্য দিয়ে যু’বলীগের নে’তৃত্ব নিয়ে যে জ’ল্পনা কল্প’না তার অব’সান ঘট’লো।*

*আওয়ামী লীগের কাউন্সি’লে প্রেসিডি’য়ামে ব্যাপ’ক পরি’বর্তন*
*আগামী ২০ ও ২১ ডিসে’ম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কাউ’ন্সিল অধি’বেশন অনু’ষ্ঠিত হবে। এবার আওয়ামী লীগের কাউ’ন্সিলে নানা দিকে চম’ক আসছে বলে আওয়ামী লীগের নীতি’নির্ধারক সূ’ত্রে জানা গেছে। আওয়ামী লীগের একাধিক শীর্ষ নে’তা বলেছেন, এবার আওয়ামী লীগের কা’উন্সিলে বেশ কিছু চ’মক আসবে।*

*তবে একটি সূ’ত্র বলছে, এবার কাউ’ন্সিলে সবচেয়ে পরি’বর্তন হবে দলের প্রে’সিডিয়ামে। আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনু’সারে দলের সভাপতির পরই প্রে’সিডিয়ামের স্থান। প্রেসি’ডিয়াম হলো দলের মূল চালি’কা শ’ক্তিও নী’তিনির্ধারক সং’স্থা। ১৫ স’দস্যের প্রেসি’ডিয়ামে সৈয়দ আশরাফের মৃ’ত্যুর পর বর্তমানে ১৪ সদস্যের প্রেসি’ডিয়াম রয়েছে। এই প্রেসিডি’য়াম সদস্য’দের মধ্যে অন্তত ১০ জনই বা’দ যেতে পারে বলে আওয়ামী লীগের এ’ধিক সূ’ত্র আ’ভাস দিয়েছে। তবে বার্ধক্য’জনিত কারণেই তারা বা’দ পড়ছেন বলে জানাচ্ছে সূ’ত্রটি। এ সূত্র’গুলো বলছে দলকে আরো গ’তিশীল এবং তারুণ নে’তৃত্বকে জা’য়গা করে দেওয়ার জন্য প্রেসিডি’য়াম থেকে প্রবী’নদেরকে উপ’দেষ্টামণ্ডলীতে নেওয়ার বিষয়টি বি’বেচনা করা হচ্ছে।*

*প্রেসি’ডিয়ামের যে সব স’দস্য বা’দ পড়তে পারেন বলে আ’ভাস পাওয়া গেছে, তাদের মধ্যে রয়েছেন বেগম সাজেদা চৌধুরী। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে অ’সুস্থ এবং দলীয় কর্ম’কাণ্ডে অনু’পস্থিত। এছাড়াও শেখ ফজলুল করিম সেলিম, বেগম মতিয়া চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, ইঞ্চি’নিয়ার মোশারফ হোসেন, পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য, নুরুল ইসলাম নাহিদ, শ্রী রমেশ চন্দ্র সেন, অ্যাড’ভোকেট আব্দুল মান্নান খান এবং আবদুল মতিন খসরুরা রয়েছেন।*

*সং’শ্লিষ্ট সূ’ত্রগুলো বলছে, দলের প্রো’সিডিয়ামই হওয়া উচিত দ’লীয় কর্ম’কান্ডের মূল কেন্দ্র। কিন্তু বর্তমান প্রেসিডি’য়ামের অধি’কাংশ স’দস্যদেরই দ’লীয় কর্ম’কাণ্ডে কার্য’ক্রমে নেই। শুধু দলের কার্য’নির্বাহী স’ভায় প্রে’সিডিয়ামের স’দস্যরা উপস্থিত হন। দ’লীয় কর্ম’কাণ্ডে বা সাংগ’ঠনিক বিষয়ে তাদের ভূ’মিকা লক্ষ’ণীয় নয়। শুধু আওয়ামী লীগের এই প্রেসি’ডিয়ামই ছিল মূল শ’ক্তি। যেসময় তোফায়েল আহম্মেদ, আমির হোসেন আমু, আবদুর রাজ্জাকের মতো ব্যক্তিরা প্রেসি’ডিয়ামে ছিলেন। তখন আওয়ামী লীগের প্রেসি’ডিয়াম অনেক শক্তি’শালী এবং স’ক্রিয় ছিল।*

*আওয়ামী লীগ প্রেসি’ডিয়ামকে আবারো শক্তি’শালী করতে চায় কারণ সমস্ত চা’প দলের সাধারণ সম্পাদকের উপর না দিয়ে প্রে’সিডিয়ামের সদ’স্যদের মাধ্যমে দ’ল পরিচা’লনা করার যে নী’তি সেই নী’তিতে ফিরে যেতে চায় আওয়ামী লীগ। সেক্ষেত্রে তরুণ এবং দ’লের কর্ম’কান্ডের সঙ্গে যারা জ’ড়িত তারা প্রেসি’ডিয়ামের মধ্যে অন্ত’র্ভুক্ত হতে পারেন। প্রে’সিডিয়ামের অন্ত’র্ভুক্তির জন্য যাদের নাম বেশি আলো’চিত হচ্ছে তাদের মধ্যে মাহবুব আলম হানিফ। যিনি ইতোমধ্যেই আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে দা’য়িত্ব পা’লন করছেন। ডাক্তার দিপুমনিও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হি’সেবে দা’য়িত্ব পা’লন করছেন। জাহাঙ্গীর কবির নানক এবং আবদুর রহমান যারা মনোনয়ন ব’ঞ্চিত হয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে দা’য়িত্ব পা’লন করছেন।*

*এছাড়াও রাজশাহীর মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, খুলনার মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, সিলেটে মেয়র নির্বাচনে পরা’জিত বদরউদ্দিন আহমেদ কামরানসহ মাঠ পর্যায়ে প্রবীণ এবং ভালো সংগঠ’কদেরকে প্রেসি’ডিয়ামে অন্ত’র্ভূক্ত করার বিষয়টি বি’বেচনা করা হচ্ছে। তবে আওয়ামী লীগের একজন শীর্ষ নে’তা বলেছেন, প্রেসি’ডিয়াম এবং কেন্দ্রীয় নেতৃ’ত্বর ব্যা’পারে চূড়া’ন্ত সি’দ্ধান্ত নেবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি সাম’গ্রিক বিষয় বি’বেচনা করেই এবিষয়ে চূ’ড়ান্ত সি’দ্ধান্ত নেবেন। তবে তিনি দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের উপর চা’প ক’মাতে চান এবং প্রেসি’ডিয়ামকে কার্য’কর করতে চান।*

*আওয়ামী লীগের একজন শীর্ষ নে’তা বলেছেন, আওয়ামী লীগ এখন একটা পরি’বর্তনের মাঝ’পথে রয়েছে। কারণ আগামী দিনের নে’তৃত্বে তরুণদেরকে জা’য়গা করে দেওয়ার জন্য, নে’তৃত্বের যে পুন’র্বিন্যাস এবং নে’তৃত্বের যে পরিব’র্তন সেই পরি’বর্তনে ধা’রার সূচ’না করতে হবে এই কাউ’ন্সিলের মধ্যমে। সেক্ষেত্রে দ’লে যারা তরুণ এবং সম্ভা’বনাময় আর যারা দলের জন্য শ্রম দিতে পারবে তাদেরকেই প্রেসি’ডিয়ামে নিয়ে আসা হবে।
আওয়ামী লীগের ঐ নে’তা বলেছেন, শুধু প্রে’সিডিয়াম নয়, আওয়ামী লীগের কে’ন্দ্রীয় কমি’টিতেও ব্যাপক পরিব’র্তন আনা হবে। নবীন এবং প্রবীণদের মি’শ্রণে একটি নতুন ক’মিটি করা হবে।*

*সং’শ্লিষ্ট সূত্র’গুলো বলছে, প্রেসি’ডিয়ামের ক্ষে’ত্রে দেখা হবে দলের জন্য কাজ করা, দ’লের জন্য নে’তৃত্ব দেওয়া এবং সারাদেশে সাংগ’ঠনিক তৎ’পরতা সম্পর্কে যারা অ’বহিত তেমনি কেন্দ্রীয় ক’মিটির ক্ষেত্রে দেওয়া হবে অপেক্ষা’কৃত তরুণ পাশাপাশি যাদের বি’রুদ্ধে কোনো দু’র্নীতি এবং কোনো অভি’যোগ নেই তাদেরকেই কে’ন্দ্রীয় ক’মিটিতে আনা হবে।*
*অন্যদিকে আওয়ামী লীগের নে’তারা বলছেন এখনো সম্ম’লনের জন্য একমাস সময় বা’কি আছে। এই সময়ের মধ্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন ম’হলের সঙ্গে কথা বলবেন এবং শেষ পর্যন্ত দলের জন্য যেটা মঙ্গ’লময় এবং ভালো হয় সে ব্যা’পারে তিনি চূ’ড়ান্ত সি’দ্ধান্ত নেবেন।*