প্রচ্ছদ রাজনীতি *কাদের জানালেন, জয় আ. লীগের কেন্দ্রীয় নে’তৃত্বে আসতে চান না*

*কাদের জানালেন, জয় আ. লীগের কেন্দ্রীয় নে’তৃত্বে আসতে চান না*

124
*কাদের জানালেন, জয় আ. লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে আসতে চান না*

*আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নে’তৃত্বে সজীব ওয়াজেদ জয়ের আসা প্রসঙ্গে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এখানে জয়ের ইচ্ছার ব্যাপারও আছে। নে’ত্রীকে এ নিয়ে কোনও কিছু বললে তিনি বলেন, জয় তো আসতে চায় না। এখনও তার আসার আ’গ্রহ নেই।*
*শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাজধানীর ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যা’লয়ে সংবাদ সম্মেল’নে তিনি এসব কথা বলেন।*
*দলে শেখ হাসিনা ছাড়া আরও কেউ অপরি’হার্য় ব্যক্তি নন বলে সংবাদ সম্মে’লনে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।*

*ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি বার বারই নে’ত্রীকে বলে আসছি, যে জয়কে পরব’র্তীকালের জন্য গ্রুমিং করার বিষয়টা। এটা নে’ত্রীর সিদ্ধা’ন্তের ব্যাপার। জয়ের নিজেরও ইচ্ছার ব্যাপার। যেভাবে আছেন সেভাবেই তিনি আপাতত থাকতে চান। আনুষ্ঠানিকভাবে আওয়ামী লীগের কোনও প’দে, যেমন পীরগঞ্জে তাকে মনোনয় দেয়ার জন্য সেখানে থেকে অনেক দা’বি ছিল, কিন্তু তিনি রাজি হননি। কাজেই জয়ের নিজের ইচ্ছারও ব্যাপার আছে।*

*সম্পাদ’কমণ্ডলির অনেক সদস্য মন্ত্রি’সভায়, আগামী সম্মে’লনে সেখানে নতুন মুখ কারা আসছেন এমন এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা ডি’সাইট করার মা’লিক আমাদের সভাপতি, এটা আমাদের গঠ’নতন্ত্রে ক্ষ’মতা দেয়া আছে। আমাদের নে’ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা তিনি নি’র্ধারণ করবেন, কে আসবে দলে। আমাদের দলে শেখ হাসিনা ছাড়া আরও কেউ অপ’রিহার্য় ব্যক্তি নয়। পরিষ্কা’রভাবে বলতে চাই, আমরা কেউই অপ’রিহার্য় নই।*

*সাধারণ সম্পাদকে পরি’বর্তন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, নে’ত্রী চাইলে পরি’বর্তন হবে। এখানে কোনও প্রতিযো’গিতা নেই। কারও কারও ইচ্ছা, আকাঙ্খা থাকতে পারে। সাধারণ সম্পাদক প’দেও প্রার্থী থাকতে পারে। সেখানে কোনও অসুবিধা নেই। আমি যদি মনে করি আমার প্রতিদ্ব’ন্দ্বি আর কেউ হতে পারবে না, এটা তো ঠিক না। এটা ডি’সাইট করবেন নে’ত্রী। প্রার্থী হওয়ার অধি’কার সবার আছে।*

*ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন পর্যন্ত ক’মিটি কলবরে বাড়ানোর চিন্তা-ভাবনা নেই। কমি’টিতে ৮১ জনই থাকবে। আমাদের নে’ত্রী যেটা মনে করছেন। আপাতত কমি’টিতে সংখ্যা বাড়ানোর কোনও ইচ্ছে নেই। কোন প’দও বাড়ার সম্ভাবনা নেই। আমাদের বর্তমান কমি’টিতেই একটা সদস্য ও দুইজন সভাপতিমণ্ডলির সদস্যের প’দ খালি আছে। সেগুলো এই মুহূর্তে পূরণ হবে না। সম্মে’লনের মধ্য দিয়েই আমরা পুরো কমি’টি করে ফেলবো, এটাই আমাদের সিদ্ধা’ন্ত।*

*তিনি বলেন, সকল নিব’ন্ধিত রাজনৈতিক দলকেই আম’ন্ত্রণ জানানো হবে। প্রতিবারই যাদের আ’মন্ত্রণ করি এবারও তাদের আম’ন্ত্রণ জানানো হবে। জো’টের নেতৃবৃ’ন্দদেরও আম’ন্ত্রণ জানানো হবে। বিএনপিকেও দা’ওয়াত দেব। বিদেশি প্রতিনিধি যেহেতু মুজিববর্ষে আসবে, সে জন্য জাতীয় সম্মে’লনে আমরা তাদের দাও’য়াত দিচ্ছি না। কূটনৈ’তিকদের আম’ন্ত্রণ করা হবে।*

*উপজেলায় দলের নেতৃ’ত্বে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, উপ’জেলা পর্যা’য়ে আমরা একটা নির্দে’শনা দিচ্ছি। গতকাল (বৃহস্পতিবার) আমাদের নে’ত্রী তিনি নির্দে’শ দিয়েছেন, উপ’জেলা পর্যা’য়ে দেখা যাচ্ছে নিজ নির্বাচনি এলাকায় সংস’দ সদস্যরা সভাপতি প’দপ্রার্থী হন, এটা নি’রুৎসাহিত আমরা করছি। উপ’জেলা পর্যায়ে সং’সদ সদ’স্যদের আমরা অনু’রোধ করছি, তারা যেন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক প’দে না এসে, ত্যা’গী ও দুঃ’সময়ের নে’তা-কর্মীদের একটা সু’যোগ করে দেন। কারণ তাদেরও অধি’কার আছে। তারা এম’পি হতে পারে নি, দলে নেতৃ’ত্বও পাবে না, এটা তো হয় না।*

*দলের আসন্ন জাতীয় সম্মে’লন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দলের জা’তীয় সম্মে’লনে ১ম দিন সাধারণ সম্পাদকের রিপো’র্টটি বড় থাকবে কিন্তু জাতীয় স’ম্মেলনে সংক্ষি’প্ত আকারে আমি বলবো। এ শো’ক প্র’স্তাব থাকবে। সম্মে’লনের দ্বিতীয় দিন কাউ’ন্সিল অধি’বেশন হবে। যদি আমাদের ঘোষণা’পত্র ও গঠন’তন্ত্রে কোনও সংশোধ’নী থাকে, সেটার অনু’মোদন নেয়া হবে। আমরা ঘোষ’ণা পত্র ও গঠন’তন্ত্রে সংশো’ধনীর ব্যা’পারে এরই মধ্যে আমরা জেলা শাখাগুলোকে চি’ঠি পাঠিয়ে’ছি, তাদের কোনও প্রস্তা’ব আছে কিনা, সং’যোজন, সংশো’ধন অথবা পরিমা’র্জন পরিব’র্ধনে জেলা শাখার কোনও প্রস্তা’ব আছে কি না, সে ব্যাপারে চি’ঠি পাঠাতে বলেছি।*

*সহযোগী সংগঠ’নগুলার সম্মে’লনে বিশৃ’ঙ্খলা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, সম্মেল’নকে কেন্দ্র করে চোখে পড়ার মত সং’ঘাত হয় নি।*
*সংবাদ সম্মে’লনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক প্রকৌ’শলী আবদুস সবুর, কেন্দ্রী’য় সদ’স্য এস এম কামাল হোসেনসহ আরও অনেকে।*