প্রচ্ছদ রাজনীতি *ড. কামাল ও তারেকের ষড়’যন্ত্রেই খালেদাকে জে’ল খা’টতে হচ্ছে?*

*ড. কামাল ও তারেকের ষড়’যন্ত্রেই খালেদাকে জে’ল খা’টতে হচ্ছে?*

211
*ড. কামাল ও তারেকের ষড়যন্ত্রেই খালেদাকে জেল খাটতে হচ্ছে?*

*দুই সপ্তাহ আগে জাতীয় ঐক্য’ফ্রন্টের পক্ষ থেকে সাক্ষা’ৎ করা হয়েছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে। সেই সাক্ষা’ৎকারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে নিবে’দন করা হয়েছিল যে, জাতীয় ঐক্য’ফ্রন্টের নে’তারা যেন বঙ্গবন্ধু মেডি’কেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎ’সাধীন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষা’ৎ করতে পারেন। তাকে সহানু’ভূতি এবং স্বা’স্থের খোঁ’জ-খবর নেওয়ার জন্যই সাক্ষাৎ প্রার্থ’না করেছিলেন ঐক্যফ্র’ন্টের নে’তারা।*

*ঐক্য’ফ্রন্টের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে সাক্ষা’ৎপ্রার্থীদের একটি তা’লিকাও দেওয়া হয়েছিল। যে তা’লিকার শীর্ষে ছিলেন জাতীয় ঐক্য’ফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল কামাল হোসেনের নাম। কিন্তু দুই সপ্তাহ পেরু’নোর পরও বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থা’নরত বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ পাননি জাতীয় ঐক্য’ফ্রন্টের নে’তারা।*

*যদিও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, জেল বিধি অনুযায়ী সাক্ষাতের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেজন্য তিনি প্রয়োজনীয় সাক্ষা’তের ব্য’বস্থা করেছিলেন। কিন্তু জেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে পাওয়া গেছে চাঞ্চ’ল্যকর ত’থ্য। যেকোন আট’ক বন্দীর আত্মীয়-স্বজন ছাড়া অন্য কেউ দেখা করতে চাইলে সেক্ষেত্রে কা’রাবিধি অ’নুযায়ী আ’টকের সম্ম’তির প্রয়োজন হয়। তাই খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎপ্রা’র্থী জাতীয় ঐক্য’ফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ খালেদা জিয়ার যেহেতু আত্মীয় নন সেজন্য জে’ল কর্তৃ’পক্ষ ওই তা’লিকার নাম পড়ে শুনিয়েছিল তাকে। তারা সাক্ষা’ৎ করতে আগ্রহী বলে বেগম জিয়াকে জানিয়েছিলেন। কিন্তু বেগম জিয়া তাদের সঙ্গে সাক্ষাতে অস্বী’কৃতি জানান।*

*জে’ল কর্তৃ’পক্ষ থেকে একজন পদস্থ ক’র্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শ’র্তে বলেছেন, যেহেতু বেগম খালেদা জিয়া একজন উচ্চশ্রেণি (ডি’ভিশন প্রাপ্ত) কয়ে’দী, তাই তার সম্ম’তি ছাড়া কোন অনা’ত্মীয় সাক্ষা’ৎ করতে পারেন না। সেই বিবেচ’না থেকেই তারা খালেদা জিয়ার অনু’মতি চেয়েছিলেন। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া সাক্ষা’তে অস্বী’কৃতি জানিয়েছেন।*

*সংশ্লি’ষ্ট সূ’ত্রগুলো বলছে, বেগম খালেদা জিয়া ড. কামাল হোসেনকে ভারতীয় চ’র হিসাবে অভি’হিত করেছেন। তিনি চিকিৎ’সকদের সঙ্গে আলাপচা’রিতায় বলেছেন, ড. কামাল হোসেন যেভাবে বিএনপিকে নির্বাচনে নিয়ে গিয়েছিলেন ঠিক সেভাবেই বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে এসে দেখে সার্টি’ফিকেট দেবেন আমার সুচি’কিৎসা হচ্ছে। আমি সু’স্থ আছি। এটাই ড. কামাল হোসেনের কাজ।*

*ড. কামাল হোসেন মি’শন নিয়েছেন বিএনপিকে তছ’নছ করার। সেজন্যই নির্বাচনে অংশ নিয়েছিল এবং বিএনপির এম’পিদের পার্লা’মেন্টে পাঠানো হয়েছিল। কা’রা ক’র্তৃপক্ষ এবং বেগম খালেদা জিয়ার জন্য গঠিত মেডি’কেল বো’র্ডের সূ’ত্রে এই ত’থ্যগুলো নিশ্চিত হওয়া গেছে।*
*সংশ্লি’ষ্ট সূ’ত্রমতে ৩০ শে ডিসেম্বর নির্বাচনের পর থকে বেগম খালেদা জিয়া জাতীয় ঐ’ক্য থেকে বিএনপিকে সরে আসার নির্দে’শ দিয়েছিলেন কিন্তু লন্ডনে পলা’তক বিএনপির ভা’রপ্রাপ্ত চেয়ার‌’ম্যান এবং খালেদা জিয়ার জেষ্ঠ্য পুত্র তারেক জিয়া জাতীয় ঐ’ক্য বহা’ল রাখার পক্ষে মতামত দিয়েছিলেন। এ নিয়ে মা এবং ছেলের বি’রোধ এখন প্রকা’শ্য রূ’প নিয়েছে।*

*খালেদা জিয়া মনে করছেন যে, জাতীয় ঐক্যফ্র’ন্ট বিএনপিকে আদ’র্শচ্যুত করছে এবং জাতীয় ঐক্য’ফ্রন্ট মুক্তি’যুদ্ধের চেত’না এবং বঙ্গবন্ধুর আ’দর্শসহ বিভিন্ন কথা’বার্তা বলে বিএনপির যে ভোট ব্যাং’ক সেই ভোট ব্যাং’ককে ক্ষয়ি’ষ্ণু করে দিচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়া এটাও বিএনপি নে’তৃবৃন্দকে বলেছেন যে, নির্বাচনের পর পার্লা’মেন্ট যাওয়া ছিল একটি আত্ম’ঘাতী সিদ্ধা’ন্ত এবং এর মাধ্যমে বিএনপি সম্পর্কে মানুষের মধ্যে ভু’ল ধারণা সৃ’ষ্টি হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়া এটাও মনে করেন ড. কামাল হোসেনের জন্যই বিএনপি এই সমস্ত সিদ্ধা’ন্তগুলো নিচ্ছে। বিএনপি সং’ঘবদ্ধ হতে পারছে না। বেগম খালেদা জিয়া সব সময় ২০ দলীয় জো’ট অটু’ট রাখার পক্ষে ছিলেন। যদিও লন্ডনে পলা’তক তারেক জিয়া নির্বাচনের আগে থেকে ২০ দলীয় জো’টকে অকার্য’কর করে রেখেছিলেন এবং ২০ দলীয় জোটের বৈঠকের ব্যপারে তার তী’ব্র অনি’হা ছিল। এই সমন্ত বিরো’ধের জে’রেই বিএনপি তিন বার আন্দো’লনের কর্মসূ’চি ঘোষ’ণা করেও পি’ছপা হয়েছে।*

*সং’শ্লিষ্ট সূত্র’গুলো মনে করছে মা ও পুত্রের এই বিরো’ধের মাঝখানে দাঁড়িয়ে আছেন ড. কামাল হোসেন। ড. কামাল হোসেনকে ব্যবহার করে তারেক জিয়া ভারত এবং আন্তর্জাতিক মহলের মন জয় করতে চাইছেন।*
*অন্যদিকে বেগম খালেদা জিয়া মনে করতে চাইছেন, যদি দাঁ’ড়াতে হয় তাহলে নিজের শ’ক্তিতে এবং তার নিজস্ব যে চিন্তা-চেতনা সেই ভিত্তিতে দাঁড়াতে হবে। যেটা ড. কামাল হোসেনের রাজনীতির সঙ্গে সাং’ঘর্ষিক। এই বিরো’ধের জে’রেই ড. কামাল হোসেন এবং জাতীয় ঐ’ক্যের সঙ্গে সাক্ষা’ৎ হচ্ছে না বেগম খালেদা জিয়ার।*