প্রচ্ছদ বাংলাদেশ গ্রাম-প্রান্তর *কক্সবাজার আ’লীগে রাজা’কারপুত্ররা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক!*

*কক্সবাজার আ’লীগে রাজা’কারপুত্ররা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক!*

187
*কক্সবাজার আ'লীগে রাজাকারপুত্ররা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক!*

*অনু’প্রবেশ ঠে’কাতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় পর্যায়ে যতই ক’ঠোর প’দক্ষেপ নেয়া হচ্ছে ততই নিত্য-নতুন কৌ’শল নেয়া হচ্ছে তৃণমূল পর্যায়ে অনুপ্র’বেশ অব্যাহত রাখতে। এতদিন ধরে অনুপ্র’বেশকারীদের দলে ঢুকা’নোর অভি’যোগ চলে আসছিল নেতাদের বিরু’দ্ধেই। কিন্তু এবার কক্সবাজারের মহেশখালী দ্বীপের একটি ওয়ার্ডে এক ভিন্ন কৌ’শলে দলের তৃণমূলে ঢু’কে পড়েছেন বহু সংখ্যক জামায়াত-বিএনপি সমর্থিত লোকজন।*

*এমনকি রাতারাতি করা ১৫০ জন কাউন্সি’লরের মধ্যে একাত্তরের রা’জাকার, জামায়াত ও বিএনপি সমর্থিত অন্তত ৫০/৬০ জনকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে অভি’যোগ উঠেছে। অভি’যোগ উঠেছে যে, সেই কাউ’ন্সিলে ব্যা’লটের মাধ্যমেই নির্বাচিত করা হয়েছে এক রা’জাকার পুত্রকে সভাপতি এবং অপর এক বিএনপি পরিবারের সন্তানকে সাধারণ সম্পাদক। এমন কৌ’শলে ব্যাল’টের নির্বাচনটি করে রাজাকার এবং বিএনপি পরিবারের সদস্যদের আওয়ামী লীগের একটি ওয়া’র্ডের নেতা নির্বাচিত করা হয়েছে যে, যাতে প্রকৃত দলপ্রেমিক কর্মীরাও ল’জ্জায় মুখ ঢে’কেছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তো’লপাড় চলছে।*

*অভিযোগ উঠেছে, স্বাধীনতা বি’রোধী চ’ক্র বিপুল অর্থ বৈভবের মালিক হওয়ায় কাউন্সি’লারদের নিকট থেকে টাকা-পয়সার বিনিময়ে সমর্থন আদায় করে নিয়েছে। স্বাধীনতা বি’রোধী চ’ক্র এমন কৌ’শল নিয়েছে যে, তারা ইউ’নিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দদের ছলেবলে ব’শে নিয়ে ১৫০ সদস্যের কা’উন্সিলারের মধ্যে বিএনপি-জামায়াতের বিপুল সংখ্যক সমর্থকদের দলের কাউন্সি’লার তালিকা’য় অর্ন্তভুক্ত করিয়ে নিয়েছেন।*

*এমনকি কাউ’ন্সিলার তালি’কার মাধ্যমে ১৯৭১ সালে যে সংখ্যালঘু পরিবারটির ঘর-দুয়ার লুঠ’পাট করে আ’গুন জ্বালিয়ে বিরান করে দেয়া হয়েছিল সেই পরিবারের সদস্যকেও ‘ব্যা’লট কৌ’শলে’ ও’য়ার্ড সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে স’রিয়ে দেয়া হয়েছে। মহেশখালী দ্বীপের হোয়ানক ইউনি’য়নের ৩ নম্বর ওয়া’র্ডের সেই নির্যা’তিত হিন্দু প্রয়াত ডা. ধনঞ্জয় কুমার দে’র পুত্র তুষার কান্তি দে ২০১১ সাল থেকে দলের ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। কিন্তু ৩০ অক্টোবরের ‘ব্যাল’ট কৌ’শলে’ তিনি পরা’জিত হয়ে দল থেকে ছি’টকে পড়েছেন।*

*গতকাল রবিবার তুষার কান্তি দে বলেন, ‘একাত্তরে যারা পাকিস্তানী বা’হিনীকে সহযোগিতা দিয়ে আমাদের ঘরবাড়ী লু’ঠ করেছিল, আগু’নে পু’ড়িয়ে আমাদের সর্ব’শান্ত করে দিয়েছিল সেই কুখ্যা’ত রাজা’কার শাহাদাত কবিরের বাহি’নী এবার বঙ্গবন্ধুর দল আওয়ামী লীগে ঢু’কে গেছে। এতদিন পর ‘ব্যা’লট কৌ’শলে’ রাজা’কার, জামায়াত ও বিএনপি’র কাছে আমরা আবারো সর্ব’শান্ত হয়ে গেছি।’ তিনি বলেন, পাকিস্তানী হায়ে’নাদের দোস’র একাত্তরের রাজা’কারদের হাতে একবার হারিয়েছিলাম বাড়ীঘর-সহায় সম্পদ আর এখন হা’রাতে হল দলীয় পদবী।’*

*কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানও অকপটে স্বীকার করেছেন দলে ঢু’কতে নানা দলের লোকজনের তদবিরের বিষয়টি। এ প্রসঙ্গে গতরাতে তিনি বলেন, ‘সবাই এখন মরিয়া হয়ে পড়েছে আমাদের দলে আসতে। এমনকি টেকনাফ থেকে কুতুবদিয়া পর্যন্ত কক্সবাজার জেলার প্রচুর সংখ্যক লোক অঢেল টাকার বান্ডিল নিয়ে আমার পেছনেও ঘুর ঘুর করছে।’*
*মুজিবুর রহমান মহেশখালীর একটি ওয়া’র্ডের এরকম ‘ব্যা’লট কৌশলে’র বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, রাতারাতি কাউ’ন্সিলার তালি’কা করে ব্যাল’টের নির্বাচন করা যাবে না। কেননা দলীয় সি’দ্ধান্ত হচ্ছে,*
*কাউ’ন্সিলার তা’লিকা জেলা কমি’টির কাছে পাঠাতে হবে। যাচাই-বাছাই করেই চুড়ান্ত তা’লিকা নিয়ে করতে হবে কাউ’ন্সিল। তিনি বলেন, রাজা’কার পুত্র ও বিএনপি পরিবারের সন্তান নির্বাচিত হবার বিষয়টি দেখা হবে।*

*অনু’সন্ধানে জানা গেছে, গত ৩০ অক্টোবর দ্বীপের স্থানীয় টাইম বাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হোয়ানক ইউ’নিয়নের ৩ নম্বর ওয়া’র্ডের কাউ’ন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। কাউ’ন্সিল অনুষ্ঠান তদা’রকির দায়িত্বে থাকা ইউ’নিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মীর কাশেম ও সাধারণ সম্পাদক জফুর আলমের বি’রুদ্ধেই উঠেছে যতসব অ’ভিযোগ। তবে এই দুইজন তাদের বি’রুদ্ধে উঠা অ’ভিযোগ অস্বীকার করেছেন। মীর কাশেম ও জফুর আলম বলেন, কাউন্সি’লারগণের তা’লিকা যারা করেছে তাদের আর কোন অভিযোগ উত্থাপনের সুযোগ নেই।*

*জানা গেছে, দলের ওয়া’র্ড কমি’টিতে রয়েছেন ৫১ জন সদস্য। ১৫০ জনের কাউন্সি’লার তা’লিকা করতে নতুন করে আরো ৯৯ জনের তা’লিকা করা হয়েছে। সেই তালিকায় কোনদিন আওয়ামী লীগ করেন নি এমন লোকজনকেও আনা হয়েছে। আর আওয়ামী লীগের আদর্শের বাইরে থাকা লোকজনই ব্যা’লট বিপ্ল’ব ঘ’টিয়েছে ২০০১ সালের নির্বাচনের মত করে।*
*মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘ ২৩ বছর ধরে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনকারি কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সহ সভাপতি এম আজিজুর রহমান জানান, আমি দায়িত্ব পালনকালীন দীর্ঘ সময়ে হল’ফ করে বলতে পারব কোন অনু’প্রবেশকারিকে স্থান দিইনি। কিন্তু এখন দীর্ঘ লাইন দরে অনুপ্র’বেশের জন্য। কেন্দ্র থেকে এতই হুং’কার ছাড়ছে অনুপ্রবে’শকারিদের স্থান না দিতে। কিন্তু কোনভাবেই রাখা যাচ্ছে না। সবাই এখন আওয়ামী লীগে ঢুকে পড়ে আখের গোছানোর তালে রয়েছে। এমন অবস্থাকে তিনি দলের জন্য অশনিসংকেত হিসাবে দেখছেন বলে জানান।*

*হো’য়ানক ইউনিয়নের ওয়া’র্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এবং প্রবীণ তৃণমূল দলীয় নেতা জালাল আহমদ বাশি অভি’যোগ করে বলেন-‘ ১৯৭১ সালের মু’ক্তিযুদ্ধের সময় রাই’ফেল কাঁধে নিয়ে রাজা’কার শাহাদত কবির আমাদের উপর অক’থ্য নির্যা’তন চালিয়েছিলেন। সেই রাজাকার ৪৮ নম্বর ক্রমিকের কাউ’ন্সিলার।’ জালাল আহমদ বাশি বলেন, একাত্তরের রাজাকার শাহাদাতের ৪ পুত্রও ১৫০ জন কাউন্সি’লারের তালি’কায় অর্ন্তভুক্ত হয়েছেন। এমনকি তাদের আরো অনেক আত্মীয় স্বজন সহ বিএনপি-জামায়াতের অন্তত ৫০/৬০ জনকেই রাতারাতি কাউন্সি’লার করা হয়েছে।*

*প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা জালাল বলেন, এমন লোকজনকেও কাউ’ন্সিলর করা হয়েছে যারা সারা জীবন ধরে আওয়ামী লীগের বিরো’ধিতা করে আসছেন। এসব লোকজনকে কাউন্সি’লার করে পরের দিনই তাড়াহুড়োর মাধ্যমে কাউ’ন্সিল অনুষ্ঠান করে ঘো’ষণা দেয়া হয়েছে যে, ব্যাল’টের মাধ্যমে রাজাকার শাহাদাতের পুত্র মকছুদ আলম সভাপতি এবং বিএনপি পরিবারের সন্তান*
*জাহাঙ্গীর আলম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। তবে নির্বাচিত সভাপতি মকছুদ আলম ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তাদের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, প্রকাশ্যে ব্যাল’টের নির্বাচনে এসব কথা বেমানান।*

*একই ওয়া’র্ডের কাউন্সি’লার মোহাম্মদ ছৈয়দ অভিযোগ করেছেন, ব্যালটের নির্বাচনে জোরজ’বরদস্তির চাইতে কৌশল এবং বিপুল অংকের টাকা ব্যয় করেই স্বাধীনতা বি’রোধীদের হাতের ক’ব্জায় আনা হয়েছে একটি ওয়া’র্ড আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব। রাতারাতি করা হয়েছে পছন্দের লোকজন নিয়ে কা’উন্সিলার তা’লিকা। সেই তা’লিকা নিয়ে তড়িঘড়ি করা হয়েছে কা’উন্সিল অনুষ্ঠান।*