প্রচ্ছদ স্বাস্থ্য *খুব পুষ্টিকর খাবার গাজর*

*খুব পুষ্টিকর খাবার গাজর*

27
*খুব পুষ্টিকর খাবার গাজর*

*উদ্ভিদ স্বাস্থ্য গঠন বা স্বাস্থ্য সুরক্ষায় মোটেও সরাসরি ভূমিকা পালন করে না। তবে উদ্ভিদের মধ্যে যেসব খাদ্যগুণ বিদ্যমান রয়েছে, তা দেহের রোগ-প্রতিরোধক এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। গাজরের আরেক নাম সুপার ফুড। বিশেষ করে শীতকালে সাধারণ রোগ থেকে মুক্ত থাকতে সবচেয়ে ভালো সবজি হলো গাজর। গাজরের ঔষধি গুণ অনেক।*
*গাজর রোগ উপশমকারী কিংবা কোনো ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয় না। তবে এটি অত্যন্ত পুষ্টিকর খাদ্য। শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো ছাড়াও স্বাস্থ্য রক্ষায় সবজিটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।*

*গাজরের ঔষধি গুণ: অন্ত্রনালি পরিষ্কারক, ডায়রিয়া প্রতিরোধক, বমিরোধক, রক্ত পরিষ্কারক ও রক্তবর্ধক, (ক্ষারীয় উপাদান) খনিজ পদার্থের অভাব পূরণকারী, দৃষ্টিশক্তিবর্ধক, দেহে অ্যাসিড ও ক্ষারের সমতা রক্ষাকারক, শান্তকারক এবং লিভার টনিক। মুখের ক্ষ’তিকর জীবাণুনা’শক (খাবার গ্রহণের পর গাজর চিবিয়ে খেলে), দাঁত পরিষ্কার করে, দাঁত ও মাড়ির রক্তপড়া ব’ন্ধ করে, টনসিলাইটিস ও কৃমিনাশক, ঘা ও ত নিবারক, স্মৃতিশক্তিবর্ধক, স্নায়ুশক্তিবর্ধক, পুরনো কাশি, আমাশয়, পুরনো কিডনি রোগ, কোষ্ঠকাঠিন্য, অ্যালার্জি থেকে রক্ষাকারক; হাত-পা ব্যথা, হাত-পায়ের অস্থিসন্ধি ফুলে যাওয়া, দুর্বল ও রুগ্ন শিশুদের আদর্শ খাদ্য, গর্ভবতীর খিঁচুনি’রোধক, শিশুর অপুষ্টি ও শর্করার অভাব পূরণ করে, অন্ত্রনালির প্র’দাহ প্রতিরোধক, গোলকৃমি এবং খুশকিনাশক হিসেবে কাজ করে। ভালোভাবে পরিষ্কার পানিতে গাজর ধুয়ে কাঁচা অথবা রান্না করে খেতে পারেন।*
*লেখক: বিশিষ্ট হারবাল*