প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট *বিশ্বের ক্রিকেট জু’য়া নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয় জুয়া’ড়িরা*

*বিশ্বের ক্রিকেট জু’য়া নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয় জুয়া’ড়িরা*

32
*বিশ্বের ক্রিকেট জুয়া নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয় জুয়াড়িরা*

*বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান নিষি’দ্ধ হওয়ার পর থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটাঙ্গনে নতুন করে আলোচনায় চলে এসেছে ক্রিকেট জু’য়ার বিষয়টি। সাকিবকে বারবার প্রস্তাব দিয়েছিল ভারতের এক জুয়া’ড়ি- নাম দীপক আগরওয়াল। সাকিব একবারও প্রস্তাব গ্রহণ করেননি। তবে তিনি বিষয়টি আইসিসিকে না জানানোয় ১ বছর নিষেধা’জ্ঞার সাজা পেয়েছেন। অর্থাৎ, সাকিব কোনো ভুল করেননি; অপরাধ করেছেন। অন্যদিকে জুয়া’ড়িরা কিন্তু বহাল তবিয়তেই আছেন।*

*বিশ্বের ক্রিকেট জু’য়া প্রায় একচেটিয়াভাবে নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয় জুয়া’ড়িরা। তার পরেই রয়েছে পাকিস্তানি জু’য়াড়িদের স্থান। প্রতিবেশি দেশ দুটিতে ক্রিকেট জু’য়া অনেকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে। জুয়া’ড়িদের সবাই ভারতীয় বা ভারতীয় বংশোদ্ভূত। আশংকার ব্যাপার হলো, এখন পর্যন্ত কেবল খেলোয়াড়দেরই সা’জা হয়েছে। জুয়া’ড়িদের কোনো সা’জা হয়নি। দেখলে মনে হবে, আইসিসি জু’য়া বা পাতানো খেলার বিরু’দ্ধে খুবই কঠোর। ক্রিকেটারদের বিন্দুমাত্র ছাড় দিতে নারাজ। কিন্তু আসলেই কি তাই?*

*খোদ আইসিসির সদর দপ্তর দুবাইয়ে আস্তানা গেঁড়েছেন মাফি’য়া কিং দাউদ ইব্রাহিম। এরপর থেকে বারবার অভিযোগ উঠেছে, আইসিসি জু’য়াড়ি লালন করে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থাটির সঙ্গে ভারতের দহরম-মহরম সম্পর্কের কথা সবাই জানে। ভারতের কুখ্যাত জু’য়াড়ি এন শ্রীনিবাসন বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্টও ছিলেন। পাশাপাশি তিনি ছিলেন আইসিসির চেয়ারম্যান। ক্রিকেটাঙ্গনের অনেক জায়গায় তার ওপর নিষে’ধাজ্ঞা দেওয়া হলেও শ্রীনিবাসন এখনও দলবল নিয়ে বিসিসিআইয়ে দা’পট দেখিয়ে যাচ্ছেন।*

*আইসিসি কোন পুলিশী সংস্থা নয়। তারা জু’য়াড়িকে জে’লে পাঠাতে পারে না। জে’লে পাঠাতে দরকার ওই দেশের আইন। ভারতের জু’য়া নিয়ে একটা তথ্য হলো এরকম, একসময় কেবল ভারত পাকিস্তানের ম্যাচকে কেন্দ্র করে মুম্বাইয়ে প্রায় ২০ মিলিয়ন ডলারের জু’য়া খেলা হতো! ইদানিং আইপিএল তো বটেই, বিপিএলের সময় বাংলাদেশে এসেও ধরা পড়ে ভারতীয় জুয়া’ড়িরা। এত টাকার লেনদেন যেখানে হয়, সেখানে ক্রিকেটারদের যে লোভনীয় প্রস্তাব দেওয়া হবে তা বলাই বাহুল্য। সাকিব লো’ভ সংবরণ করেছিলেন, যা সবাই পারে না।*

*ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা এবং নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেট নিয়ে বা’জি ধরা বৈধ। কিন্তু শ্রীলঙ্কা ছাড়া এসব দেশে ফি’ক্সিংয়ের ঘটনা নিয়মিত ঘটে না। মজার ব্যাপার হলো, ভারতে জু’য়া অবৈধ। কিন্ত জুয়া’ড়িরা এই দেশটিকেই স্বর্গরাজ্য হিসেবে বেছে নিয়েছে! অন্যদিকে দুবাইয়ে জু’য়া নি’ষিদ্ধ হলেও হাস্যকরভাবে বিদেশিরা সেখানে জু’য়া চালিয়ে যেতে পারেন! মনে করিয়ে দিচ্ছি, এই দুবাইতেই কিন্তু আইসিসির সদর দপ্তর। শুধু জু’য়াই নয়; ক্রিকেটারদের ফাঁ’সিয়ে দিয়ে, তাদের জি’ম্মি করেও টাকা উপার্জন করেন এসব জুয়া’ড়িরা।*