প্রচ্ছদ ইতিহাস-ঐতিহ্য *যে ঘটনায় মা’ফিয়া আজিজ ভাইয়ের কাছে ক্ষ’মা চেয়েছিলেন তারেক*

*যে ঘটনায় মা’ফিয়া আজিজ ভাইয়ের কাছে ক্ষ’মা চেয়েছিলেন তারেক*

393
*যে ঘটনায় মা'ফিয়া আজিজ ভাইয়ের কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন তারেক*

*চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাই। নানা কারণে দেশে তিনি আলোচিত ও সমালোচিত। বাংলাদেশের রহস্যময় ব্যক্তিদের তালিকা করলে প্রথম দিকেই থাকবে যার নাম। যাকে নিয়ে আছে নানা গল্প, নানা রহস্য।*
*আজিজ মোহাম্মদ ভাইকে নিয়ে এসব গল্পের বেশির ভাগই চলচ্চিত্র জগতের নারী ও নানা ধরনের ব্যবসা কেন্দ্রিক। এসব গল্পের কতটুকু সত্য আর কতটুকু মুখরোচক বা মিথ্যা সে নিয়েও নানা জনের নানা মত রয়েছে।*

*আজিজ মোহাম্মদ ভাই একজন বাংলাদেশি ব্যবসায়ী। তিনি হ’ত্যা ও মা’দক পা’চারসহ বেশ কয়েকটি গুরুতর অপরা’ধে জড়ি’ত ছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ৫০টির মতো চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেছেন তিনি।*
*আজিজ মোহাম্মদ ভাই সপরিবারে থাইল্যান্ডে থাকেন। সেখান থেকেই ব্যবসা পরিচালনা করেন। তার স্ত্রী নওরিন ও ভাই দেশে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করেন। তিনি বিএনপি সরকারের ঘনিষ্ঠ বলে জানা যায়।*

*সর্বশেষ বিএনপি-জামাত জোট সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে তিনি গিয়েছিলেন কক্সবাজারে হোটেল সী-গালে। সে হোটেলের মালিক ছিলেন তারেক জিয়ার ঘনিষ্ট বন্ধু। সেই দাপটে তখনকার সময় ঐ হোটেলের সামান্য গার্ডের কাছে র‌্যাব-পুলিশও অসহায় ছিলো। কোন এক ঘটনা বসত ঐ হোটেলের হাউজ কিপিং সুপারভাইজার সৈয়দ শাহীনের সাথে আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের বাক-বি’তন্ডা হয় এবং ঐ স্টাফ উনাকে না চিনেই তারেক জিয়ার নাম বলে ধম’ক দিয়ে বসে… তখন তিনি হাসতে হাসতে বললেন তোমার ঐ তারেক জিয়া কে বলো যে এখানে আজিজ মোহাম্মদ ভাই এসেছেন… যোগাযোগ করতে পারবা নাকি আমার করে দিতে হবে?*

*কিছুক্ষণ পর তারেক জিয়া বিষয়টা জেনে তখনি ঢাকা থেকে হেলিকাপ্টার নিয়ে কক্সবাজার হাজির হয়ে সবকিছুর জন্য দুঃখ প্রকাশ করে। সাথে তার হোটেল মালিক বন্ধু, গিয়াস উদ্দীন মামুন এবং পার্সি চৌধুরী নামের আরেক বন্ধু ছিলেন। ঐ স্টাফকে চাকরীচ্যুত করেন কিন্তু আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের কথায় তাকে আবার চাকরীতে রাখা হয়।*
*মজার ব্যাপার, বর্তমানে ঐ স্টাফ মালেশিয়া তে আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের মালিকানাধীন একটা হোটেলের ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত আছেন।*