প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট “বিশ্বরেকর্ড গড়েই ম্যাচ জিতিয়েছেন আফিফ”

“বিশ্বরেকর্ড গড়েই ম্যাচ জিতিয়েছেন আফিফ”

76

*জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২৬ বলে ৮ চার ও ১ ছক্কার মারে ৫২ রানের টর্নে’ডো ইনিংস খেলে বাংলাদেশের ম্যাচ জয়ের নায়ক আফিফ হোসেন ধ্রুব যখন মাঠে সতীর্থসহ বিসিবির কর্তাদের সঙ্গে ছিলেন, তখন গ্যালারির দর্শকরা জয় উদযা’পনে মশগুল হয়ে ছিলেন। আফিফ আফিফ ধ্বনিতে তখন প্রক’ম্পিত গোটা মিরপুর।

*প্রধানমন্ত্রী নিজে আফিফের খেলা দেখে হয়েছেন বিমো’হিত, ফোনে কথা বোলার সময় জানিয়েছেন অভিনন্দন। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে তো প্রধানমন্ত্রী বলেই বসলেন, ও আগে নামে নাই কেন? ভালো খেলেছে, ওর খেলা দেখেছি।

*পরাজয়ের দ্বা’রপ্রান্তে দাঁ’ড়িয়ে থাকা অবস্থায় দলের জয়ে বড় ভূমিকা রাখা আফিফ আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেই বিশ্বরেকর্ড গড়ে ফেলেছেন। পরে ব্যাট করতে নামা দলের হয়ে আট নম্বর পজিশনে ব্যাট হাতে নেমে রান তাড়া করে জেতা ম্যাচে ব্যক্তিগত সর্বাধিক রানের রেকর্ড এখন ১৯ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের।

*২০১৪ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আগে ব্যাট করে বাংলাদেশ মাত্র ১২০ রানে অলআ’উট হয়েছিল। জবাবে শ্রীলঙ্কা ব্যাটিং বি’পর্যয়ে পড়লেও থিসারা পেরেরার ২৮ বলে অপরাজিত ৩৫ রানের ইনিংসে ভর করে ম্যাচের শেষ বলে গিয়ে ৩ উইকেটের জয় পায়। ওই ম্যাচে আট নম্বরে নামা থিসারার ৩৫ রানই এতদিন টি-টুয়েন্টিতে রান তা’ড়া করে কোনো জয়ী দলের হয়ে আট নম্বরে ব্যাট করতে নামা ব্যাটসম্যানের ব্যক্তিগত সর্বাধিক রানের রেকর্ড ছিল।

*পেরেরার ঠিক পরেই আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের নাম। ভারতের মাটিতে অনুষ্ঠিত ২০১৬ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ম্যাচের শেষ দৃশ্যটি এখনো ক্রিকেট ইতিহাসের অসাধ্য সাধনের সেরা নি’দর্শন হয়ে রয়েছে। শেষ ওভারে ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকসকে টানা ৪ ছক্কা মেরে কার্লোস ব্র্যাথওয়েট ওয়েস্ট ইন্ডিজকে যেভাবে শিরোপা জিতিয়েছিলেন, এমন বীরত্ব যেন রূপকথার বী’রদের কীর্তিগাঁ’থাকেও হার মানাতে বাধ্যই করেছিল! সেদিন তিনি আট নম্বরে নেমে ১০ বলে ৩৪ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছিলেন।

*তবে গতকাল মিরপুরের মাঠে থিসারা পেরেরা এবং কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের আট নম্বরে ব্যাট করতে নামা কী’র্তিকে ছাড়িয়ে গেলেন নতুন টাইগার আফিফ হোসেন ধ্রুব। বাংলাদেশের ক্রিকেট আকাশে চিরস্থায়ী উজ্জ্বল এক ধ্রুবতারা হয়ে আফিফ নিজের প্রতিভাকে আরও বিকশিত করুক, এটাই সবার প্রত্যাশা।

*প্রধানমন্ত্রী ফোনে বলেছিলেন, পাপন এটা কী হচ্ছে?

*ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বিপক্ষে ভয়াবহ ব্যাটিং বিপ’র্যয় মাঠে বসেই দেখছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে একাধিকবার ফোন দিয়েছিলেন।
ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পাপন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী খেলার মাঝেই ফোন করছিলেন, বলছিলেন, পাপন (নাজমুল), এটা কী হচ্ছে? এ রকম হচ্ছে কেন? তিনি তখন চিন্তিত।’

*বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘তারপর আফিফ নামলো। আফিফের খেলা দেখে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বললেন, ও আগে নামে নাই কেন? একে তো আগে দেখিনি। আমি বললাম, আপা ও তুলনামূলকভাবে একদম নতুন এসেছে। মাত্র ১৯ বছর বয়স। ওর আসলে পাঁচে খেলার কথা ছিল। যাই হোক যেখানে খেলেছে সেট বড় কথা না। ভালো খেলেছে। উনি বললেন- ভালো খেলেছে, ওর খেলা দেখেছি।’

*তিনি আরও বলেন, খেলা শেষ হওয়ার আগেও প্রধানমন্ত্রী ফোন করে বলেছেন, ‘আমার তো দোয়া করতে করতে গলা শুকিয়ে যাচ্ছে।’ উনি (প্রধানমন্ত্রী) প্রতিটা বলই দেখেছেন। ও (ধ্রুব) আউট হওয়ার আগে যে চার মা’রলো, এটা দেখে বলেছেন- এই শটটা দারুণ খেলেছে। তাই খেলা শেষ হওয়ার পরপর ভাবলাম আমি একটু কথা বলিয়ে দেই। এতো যখন আফিফের কথা বলছেন। যেহেতু অধিনায়ক সাকিবও আছে। ওদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তাদের সঙ্গে কী কথা বলেছেন, আমি আসলে জানি না।