প্রচ্ছদ রাজনীতি “এবার আ’লীগের রাজনীতিতে আসছেন বঙ্গবন্ধুর নাতি ববি?”

“এবার আ’লীগের রাজনীতিতে আসছেন বঙ্গবন্ধুর নাতি ববি?”

5571

*ভাবছেন তিনি তো প্রধানমন্ত্রীর পরিবারের ছেলে, তিনি আবার মাসিক বেতনে অন্যের চাকরি করবেন! জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নাতি শেখ রেহানার ছেলে চাকরি করেন। বোন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এমপি হলেও ভাই ও ভ্রাতৃবধূ রয়েছেন ঢাকাতেই। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানার একমাত্র ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি স্ত্রীকে নিয়ে বাংলাদেশে থাকছেন এবং তারা দুইজন দুইটি আন্তর্জাতিক সংস্থায় চাকরি করছেন। জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) ঢাকা অফিসে গভর্নেন্স পারফরম্যান্স মনিটরিং এক্সপার্ট হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন। তার স্ত্রী পেপি কিভিনিয়ামি সিদ্দিক যোগদেন ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম)-এ। সে থেকেই তারা বাংলাদেশে থাকছেন।

*১৯৮০ সালের ২১ মে লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। জীবনের একটা বড় অংশ দেশের বাইরে কাটালেও রাদওয়ান মুজিব তার মায়ের পরিবারের রাজনৈতিক আবহ ও আদর্শ নিয়েই বড় হয়েছেন। এখন বেশ কয়েক বছর ধরে দেশেই কাটাচ্ছেন বেশিরভাগ সময়। এ সময়ে সরাসরি রাজনীতির বাইরে থেকে দেশ গড়ার কাজে সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন তিনি। বড় খালা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেশ পরিচালনায় গবেষণাভিত্তিক তথ্য ও তত্ত্ব দিয়ে সহযোগিতা করছেন। তার সুযোগ্য নেতৃত্ব ও পরামর্শে পরিচালিত সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) থেকে এ কাজগুলো করা হচ্ছে।

*বিশ্বখ্যাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স অ্যান্ড পলিটিক্যাল সায়েন্স গ্রাজুয়েট রাদওয়ান মুজিব বাংলাদেশের রাজনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন। লন্ডন স্কুল অব কলেজে থেকে গ্রাজুয়েশনে তার অধ্যয়নের প্রধানতম বিষয়গুলো ছিলো গভর্নমেন্ট অ্যান্ড হিস্টরি, পলিটিক্যাল থিওরিজ, ইন্টারন্যাশনাল হিস্টরি। একই প্রতিষ্ঠান থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন রাদওয়ান মুজিব। এতে তার অন্যতম পাঠ ছিলো কমপেয়াটিভ পলিটিক্স, কনফ্লিক্ট অ্যান্ড রেগুলেশন অ্যান্ড ডেমোক্রেসি।

*শিক্ষাক্ষেত্রে অর্জিত শিক্ষাকে কাজে লাগিয়েই বাংলাদেশের রাজনৈতিক মান উন্নয়নে ভূমিকা রেখে চলেছেন রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি। নতুন প্রজন্মকে রাজনৈতিক সচেতন করে তুলতে নেওয়া অন্যতম কর্মসূচি ইয়াংবাংলা সারা দেশে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। একই সঙ্গে তরুণ প্রজন্মকে করে তুলেছে উজ্জীবিত। এই কর্মসূচির অন্যতম পরিকল্পনাকারী রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি।

*তার নির্দেশনায় প্রকাশিত হচ্ছে ‘মুজিব’ নামের একটি শিশুতোষ প্রকাশনা। জীবনীভিত্তিক এই প্রকাশনার মধ্য দিয়ে ছোট ছোট শিশুদের কাছে পরিচিত করে তোলা হচ্ছে জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানকে।
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে আওয়ামী লীগ সভাপতি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্রেফতার হলে ফ্রস্ট অব দ্য ওয়ার্ল্ড এর স্যার ডেভিডকে রাদওয়ান মুজিবের দেওয়া সাক্ষাৎকার ওই গ্রেপ্তারের বি’রুদ্ধে বিশ্ব জনমত গড়তে বড় ভুমিকা রাখে।

*প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরে আওয়ামী লীগের হাল ধরবে কে? সজীব ওয়াজেদ জয় অতটা রাজনীতি ঘেষা নন। প্রধানমন্ত্রী কন্যা পুতুল রাজনীতির সঙ্গে ওৎপ্রো’তভাবে জড়িত না থাকলেও জনসেবা মূলক কাজেই সময় কাটান। সাম্প্রতিক সময়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সার্বক্ষণিক তার দেখা মেলে। যার ফলে অনেকেই বলছেন রাজনীতিতা প্রধানমন্ত্রী হাতে কলমে শেখাচ্ছেন মেয়েকে। বঙ্গবন্ধু পরিবারের শেখ রেহানা রাজনীতিতে কখনো দলীয় পদে না থাকলেও আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাফল্যের পেছনের অন্যতম কারিগর তাকে বলা হয়।

*প্রধানমন্ত্রীই নানা সময়ে বলেন, রেহানা আমার ছায়াসঙ্গী। শেখ রেহানার কন্যা টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক একজন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেবার পার্টি এবং কো-অপারেটিপ পার্টির তুখোড় রাজনীতিবিদ। তিনি ২০১৫ সালের সাধারণ নির্বাচনে লন্ডনের হ্যামস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তাদেরই পথ ধরে ববিও হতে পারেন আওয়ামী লীগের উত্তরসূরী। তিনি দলীয় কোন পদে না থাকলেও শেখ হাসিনার সঙ্গে অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। তৃণমূলের নেতারা মনে করছেন, প্রধানমন্ত্রীর তাকে দলে ডেকে নেওয়া উচিত। তাতে আওয়ামী লীগ একজন দক্ষ নেতা পাবেন। প্রধানমন্ত্রী যেহেতু বলেছেন, তিনি রাজনীতি থেকে অবসরে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন। সেক্ষেত্রে ববি দলের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবেন বলে সকলের বিশ্বাস।