প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় “কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে সমর্থন জানালো বাংলাদেশ”

“কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে সমর্থন জানালো বাংলাদেশ”

125

*৩৭০ অনুচ্ছেদ বা’তিলের মাধ্যমে ভারত নি’য়ন্ত্রিত জম্মু কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনসহ বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা প্রত্যা’হারের বিষয়ে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেছে বাংলাদেশ সরকার। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। আজ বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক্সটার্নাল পাবলিসিটি উইংস থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বাংলাদেশের অবস্থান পরিষ্কার ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

*এই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ মনে করে যে, ভারত সরকার সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলো’পের যে কাজটি করেছে তা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। সব দেশেরই উন্নয়নকে গুরুত্ব দিয়ে আঞ্চলিক শান্তি এবং স্থিতিশীলতা বজায় রাখা উচিত। বাংলাদেশ সবসময়ই এ বিষয়টিকে নৈ’তিক সমর্থন দিয়ে এসেছে।’

*উল্লেখ্য, গত ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদার অব’লুপ্তির বিষয়ে ঘোষ’ণা দেয় ভারত সরকার। এ পদক্ষেপের আগেরদিন থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরে নিষে’ধাজ্ঞা আ’রোপ করা হয়। তখন থেকেই অঞ্চলটিতে ১৪৪ ধারা বা কার’ফিউসহ ইন্টারনেট ও টেলিযোগযোগাযোগের ওপর নিয়ন্ত্র’ণ করা হয়।

*এ ঘটনায় ইতোমধ্যে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার কূ’টনৈতিক সম্পর্ক ক্ষতিগ্র’স্ত হয়েছে। কাশ্মীর ইস্যুতে বিচার চেয়ে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান। এ সিদ্ধান্তের কয়েক ঘণ্টা পরই জবাবে ভারত, জানায়, পাকিস্তানের সঙ্গে মামলার ল’ড়াইয়ে প্রস্তুত তারা।
এ নিয়ে চীনের সমর্থনে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ডা’কা এক রু’দ্ধদ্বার বৈঠকের পরও ভারত তার আগের অবস্থানে থেকে জানিয়েছে, ৩৭০ অনুচ্ছেদের বি’লোপ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

*’কাশ্মীরে গণহ’ত্যা চলছে’

অধিকৃত কাশ্মীরে ভারত পুরোদমে গণহ’ত্যা চালাচ্ছে বলে সত’র্ক করে দিয়েছেন পাক অ’ধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট সরদার মাসুদ খান।
মঙ্গলবার ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে এই স’তর্ক বার্তা দেন তিনি।

*গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধান থেকে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত অনুচ্ছেদ ৩৭০ বা’তিলের পর থেকে দেশটির ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন সরকার এই নৃ’শংস গণহ’ত্যার নীলন’কশা বাস্তবায়ন করছে বলে অভিযোগ করেছেন সরদার মাসুদ খান।
আজাদ কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট জো’র দিয়ে বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো দ্বিচারিতা করছে; যেখানে ভারত যুদ্ধাপরাধ করছে। যদি কাশ্মীর ইস্যুতে কোনও যু’দ্ধ শুরু হয় তাহলে সেটি পর’মাণু যু’দ্ধে রূপ নেবে এবং এতে ২৫০ কোটি মানুষের ওপর প্রভাব পড়বে।

*পর’মাণু অ’স্ত্রসমৃদ্ধ এই প্রতিবেশি দুই দেশের মধ্যে পুরো মাত্রায় যু’দ্ধ শুরু হতে পারে বলেও সত’র্ক করে দিয়েছেন আজাদ কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ঝুঁ’কির বিষয় হচ্ছে যদি একটি সীমিতাকারের যু’দ্ধ শুরু হয়, তা সীমিত থাকবে না।

*কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠককে একটি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হিসেবে বর্ণনা করেছেন সরদার মাসুদ।
তিনি বলেন, ভারতের একক সিদ্ধান্ত এবং নিপী’ড়নের বি’রুদ্ধে কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক ল’ড়াই চালিয়ে যাবে কাশ্মীর।

*এদিকে বিতর্কিত অঞ্চল ভারত নিজের সঙ্গে যুক্ত করতে পারে না বলেও মন্তব্য করেছেন আজাদ কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট। কাশ্মীরের জনগণের আত্ম-নিয়’ন্ত্রণের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার মাধ্যমেই দ্ব’ন্দ্ব নিরসন সম্ভব। এসময় অধি’কৃত কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উ’দ্বেগ প্রকাশ করে সরদার মাসুদ বলেন, অধিকৃত কাশ্মীরে গণহ’ত্যা চালাচ্ছে ভারত।

*উল্লেখ্য, গত ৫ আগস্ট নরেন্দ্র মোদির সরকার কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বা’তিল করে। একই সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরকে ভে’ঙে কেন্দ্রশাসিত দুটি অঞ্চল গঠন করা হয়। ভারতের এ পদক্ষেপের তীব্র নি’ন্দা জানিয়ে দিল্লির সঙ্গে কূট’নৈতিক সম্পর্ক কমিয়ে দেয় পাকিস্তান। সূত্র: ডন নিউজ