প্রচ্ছদ বাংলাদেশ গ্রাম-প্রান্তর “চামড়া নিয়ে হাটহাজারী ইউএনও’র মন্তব্যে তোলপাড়!”

“চামড়া নিয়ে হাটহাজারী ইউএনও’র মন্তব্যে তোলপাড়!”

68

*মামুন খাঁন হাটহাজারী প্রতিনিধি: বিভিন্ন সময়ে সরকারের বিরুদ্ধে কৌশলী মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছে হাটহাজারী উপজেলার বর্তমান নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে।
হাটহাজারী উপজেলার বর্তমান নির্বাহী অফিসার ১৩ আগষ্ট রাত ৯টায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন, “আমি ভাবছি দ্বিতীয় পর্ব নিয়ে। দ্বিতীয় পর্ব এ রকম হবে- দিন কয়েক পর দেখা যাবে, এখন চামড়ার জুতার দাম ২৯৯৯/৩৯৯৯ টাকা, সেই চামড়ার জুতার দাম হবে ৯৯৯৯ টাকা। কারণ হিসেবে দেখানো হবে, এবার চামড়া পাওয়া যায় নাই, চামড়া সব মাটিতে পুতে ফেলা হয়েছে। দাম বাড়লেও সিন্ডিকেট বিজয়ী দাম পড়লেও সিন্ডিকেট বিজয়ী, সিন্ডিকেটকে কখনো হারতে কিংবা ঠকতে দেখা যায় নাই। পরিস্থিতি যেরকমই হোক না কেন সেটা সিন্ডিকেটের অনুকূলেই থাকে।”

*তাঁর এই স্ট্যাটাসে সিন্ডিকেটের কাছে সরকার নিরুপায়- সেটাই প্রমাণ করে কি! না আ’লীগ সরকার ব্যর্থ- সেটাই কি বুঝাতে চাচ্ছেন ইউএনও রুহুল আমিন? দ্বিতীয় স্ট্যাটাসে রুবেল ইসলাম রাহাত নামে একজন ইউএনও’ কমেন্টস করে বলেন, তাহলে সিন্ডিকেট থেকে বাঁচার উপায় কি ভাই? তখন ইউএনও উত্তরে বলেন, ‘কেয়ামতের জন্য অপেক্ষা করা কিংবা সৃষ্টিকর্তার পক্ষ থেকে শা’স্তির জন্য অপেক্ষা করা।’

*তার মানে সরকার কখনো এই সিন্ডিকেট ভাঙতে পারবে না অথবা ভাঙতে চাইবে না- সেটাই বুঝাচ্ছেন! সরকারের উচ্চপদস্ত একজন কর্মকর্তার নিকট থেকে এমন ব্যর্থতা প্রকাশ করে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়া উ’দ্বেগজনক বলে মনে করেন অনেকে। এতে উৎসাহী হয়ে জনগণকে উ’সকে দেওয়ার মতো অভিযোগও উঠেছে।

*যদিও তিনি তড়িঘড়ি করে স্ট্যাটাসটি টাইমলাইন থেকে সরিয়ে ফেলেন কিন্তু ততক্ষণে শত শত মানুষের কাছে তাঁর স্কিনশট চলে যায়। রাষ্ট্রীয় একটি গুরুত্বপূর্ণ পদে বসে এমন মন্তব্য করায় তিনি বেশ সমালোচিত হচ্ছেন।
পশুর চামড়া সিন্ডিকেট নিয়ে প্রশ্ন করা হলে হাটহাজারী ইউএনও বলেন, চামড়া নিয়ে তো অনেকে অনেক কথা বলেছে এমনকি বাণিজ্যমন্ত্রীও বলেছেন- এটা ব্যবসায়িদের কা’রসাজি।’