প্রচ্ছদ বিশ্ব “যৌ’ন নি’র্যাতনের কথা গোপন করলেই মেয়েটিকে মুক্তি দেবে সৌদি”

“যৌ’ন নি’র্যাতনের কথা গোপন করলেই মেয়েটিকে মুক্তি দেবে সৌদি”

173

*সৌদি আরবে আ’টক অবস্থায় এক নারী অধিকার কর্মীকে নি’র্যাতনের কথা গোপন করার বিনিময়ে মুক্তির প্রস্তাব দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। লুযেইন আল হাথলুল নামের ওই নারী অধিকার কর্মীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্র বিরোধী অপশ’ক্তির সঙ্গে ষ’ড়যন্ত্রের অভি’যোগ আনা হয়েছে। তার পরিবার জানিয়েছে, যৌ’ন নি’র্যাতনের তথ্য গোপন রাখার জন্য তাদের চাপ দেওয়া হচ্ছে।

*সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার আদায়ে লুযেইন আল হাথলুলের সক্রিয় ভূমিকা ছিল। নারীরা এখন স্বাধীনভাবে গাড়ি চালানোর অনুমতি পেলেও এর পেছনে কাজ করে এখন কারা’গারে ব’ন্দী রয়েছেন লুযেইন।

*ব্রাসেলসে বসবাসকারী তার বোন লীনা আল হাথলুল মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় বলেছেন, আমি এ বিষয়ে লিখে হয়ত ঝুঁ’কি নিচ্ছি। হয়ত এতে আমার বোনের ক্ষ’তি হবে কিন্তু আমার পক্ষে এ ব্যাপারে কিছু না বলে আর থাকা সম্ভব হচ্ছে না।

*তিনি বলেন, লুযেইনকে একটা প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তাকে বলা হয়েছে যে, তাকে নি’র্যাতন করা হয়েছে কিনা এই বিষয়টি তিনি যদি অস্বীকার করেন তবে তাকে মুক্তি দেয়া হবে। তিনি আরও লিখেছেন, আবারও বলছি লুযেইনকে নির্ম’মভাবে নি’র্যাতন করা হয়েছে। তাকে শারীরিক ও যৌ’ন নি’র্যাতন করা হয়েছে।

*তার পরিবার এর আগেও শারীরিক ও যৌ’ন নির্যা’তনের অভিযোগ তুলেছে। কিন্তু সৌদি সরকার বরাবরই তা প্রত্যাখ্যান করে আসছে। এই অভিযোগের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হলেও তারা এ বিষয়ে কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

*লুযেইন হাথলুল সৌদি আরবে নারী অধিকার বিষয়ে পরিচিত একটি মুখ। ২০১৪ সালে তিনি প্রথম পরিচিতি পান। সে সময় সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সীমান্ত দিয়ে তিনি গাড়ি চালিয়ে ঢোকার চেষ্টা করেছিলেন। পুরো বিষয়টি টুইটারে লাইভ করেছিলেন তিনি।

*উল্লেখ্য, সৌদি আরবে বন্দীদের ওপর নি’র্যাতনের অভিযোগ নতুন নয়। সেখানকার কারাগারগুলোতে বিদ্যুতের শ’ক, চা’বুক দিয়ে পে’টানো এবং যৌ’ন নি’র্যাতন করার বেশ কয়েকটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।