প্রচ্ছদ মুক্ত মতামত “রাজা রাম কর্তৃক স্ত্রী সীতার ‘সতীত্ব’ পরীক্ষা প্রসঙ্গে”

“রাজা রাম কর্তৃক স্ত্রী সীতার ‘সতীত্ব’ পরীক্ষা প্রসঙ্গে”

কায়সার আহমেদ

44
রাজা রাম কর্তৃক স্ত্রী সীতার 'সতীত্ব' পরীক্ষা প্রসঙ্গে

*ভারত বর্ষের হিন্দু ধর্ম বিশ্বাসীদের কাছে অযোধ্যার রাজা দশরথের পুত্র রাজা রামচন্দ্র হচ্ছেন একজন পরম ‘পূজ্য’ আদর্শিক অবতার। রামের পুণ্যবতী সতী স্ত্রী সীতাকে যখন রাক্ষস কিং ‘রাবন’ অপহ’রণ করে তুলে নিয়ে যায়, এরপরে সীতাকে উদ্ধার করে রাজা রাম স্ত্রীর ‘সতীত্ব’ পরীক্ষা কিন্তু ঠিকই করেছিলেন। এরজন্য সীতাকে হাঁটতে হয়েছে জ্বলন্ত অগ্নিকুণ্ডের ভিতর দিয়ে ‘সতীত্ব’ পরীক্ষায় পাশ দিতে। যদিও রাবনের খাঁচায় সীতা স্বেচ্ছায় যাননি, এরপরেও রাম একজন আদর্শ ‘অবতার স্বামী’ হিসাবে স্ত্রীকে সন্দেহ করতঃ অগ্নি পরীক্ষায় নি’ক্ষেপ করেন। যেটি ছিল নারীর প্রতি রামের ‘অশ্রদ্ধা’ এবং নিষ্ঠুর পুরুষতান্ত্রিকতার প্রকাশ।

*এছাড়াও রামচন্দ্র ছিলেন একজন চরম ব’র্ণবাদী হিন্দু ব্রাহ্মণ রাজা। তিনি একবার খবর পেলেন একজন নিম্নবর্ণের শুভ্র হিন্দু তপস্যায় বসে ‘জ্ঞানী’ হতে শুরু করেছে। রাম নিজে লোকটির কাছে ছুটে গিয়ে ঘটনার সত্যতা যাচাই করে শুভ্র লোকটির কল্লা কে’টে নিলেন। আসমান থেকে দেবতারা এই ঘটনায় খুশি হয়ে রামচন্দ্রের উপর পুস্প বর্ষণ করিলেন। এগুলোই হচ্ছে রামায়ণে বর্ণিত ‘মহান রাজা’ রামের চারিত্রিক আদর্শের নমুনা।

*প্রশ্ন হলো, এই আধুনিক সভ্য যুগেও নারীর প্রতি একজন ‘অশ্রদ্ধাশীল’ এবং বর্ণ বি’দ্বেষী রাজা রামচন্দ্রকে পরম ভক্তিতে পূজা দেওয়ার যৌক্তিকতা কি?