প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট “অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা!”

“অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা!”

57

*আজ শ্রীলঙ্কার স্থানীয় সময় ৭ টা ৪৫ মিনিটে ছিলো টাইগারদের ঢাকা ফেরার ফ্লাইট। শ্রীলঙ্কা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট ইউএল ১৮৯ বিমানে উঠেও পড়েছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে বিমান ছাড়তে পারে নি। যার ফলে কিছুক্ষণের মধ্যে বিমানে সবার মাঝে উৎকন্ঠার সৃষ্টি হয়।

*এর কিছু সময় পর পাইলট সবাইকে বিমান থেকে নামতে বলেন। পাইলট জানান, শ্রীলঙ্কা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট ইউএল ১৮৯ বিমানের বাম উইংয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছে। এমন সমস্যায় সবাইকে বিমান থেকে সাবধানে নামানো হয়।

*এই অবস্থায় এই বিমান আকাশে উড়লে, বড় কোনো দূর্ঘটনা ঘটতে পারতো। তাই বলাই যায় , বাংলাদেশ দল বড় একটি দূর্ঘটনা থেকে বেঁচে গেলো।
উল্লেখ্য, এই ঘটনার পর টাইগারদের নতুন ফ্লাইট দেওয়া হয়। সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে বিমানটি ছাড়ার কথা থাকলেও ১০ টা ২০ মিনিটে কলম্বো ছেড়ে ঢাকার উদ্দ্যেশ্যে রওনা দেয় বিমানটি।

বিসিবিতে জরুরিভাবে ঢালাও পরিবর্তন প্রয়োজন: সাবের

*বাংলাদেশ ক্রিকেটের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সমালোচনা করে আবারো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ধারাবাহিকভাবেই নিজের অভিমত জানিয়ে আসছেন বিসিবির সাবেক সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী।
বুধবার (৩১ জুলাই) রাত ১০টা ১৫ মিনিটে শ্রীলঙ্কা সিরিজে টাইগারদের ধবলধোলাইয়ের পর নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে তিনি লিখেছেন- আমরা আশা করেছিলাম শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ধবলধোলাই এড়াতে পারবো, যারা ৪ বছর আগে ঘরের মাঠে সিরিজ জিতেছিল।

*টাইগারদের ব্যর্থতা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সাবের টুইটারে লেখেন, বিসিবিতে জরুরি ভিত্তিতে ঢালাওভাবে বোর্ড, নির্বাচকদের এবং টিম ম্যানেজমেন্টে পরিবর্তন প্রয়োজন।
পরে বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) ভোর ৫টা ৪৫ মিনিটে সাবের নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে শ্রীলঙ্কা সিরিজে টাইগারদের ধবলধোলাইয়ের পর বিশ্বকাপ ব্যর্থতা প্রসঙ্গে তার করা পুরনো একটি টুইটের উল্লেখ করেন এবং বিসিবির বর্তমান সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কাছে তার জবাব জানতে চান।

*গত ২৫ জুলাই সাবের হোসেন চৌধুরী তার টুইটারে লিখেছেন, বিসিবির বর্তমান ব্যবস্থাপনা এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে বিতর্কিত, অদক্ষ ও অযোগ্য। বলির পাঠা আবিষ্কার করা এবং অজুহাত তৈরি করায় তারা শ্রেষ্ঠ। এখনকার বোর্ড নির্লজ্জ, আত্মমর্যাদাসম্পন্ন হলে তারা সবাই পদত্যাগ করতো।
এর আগে গত ৯ জুলাই সাবের হোসেন চৌধুরী টুইটারে লিখেছিলেন, ব্যর্থতা থেকে দৃষ্টি সরাতেই হেড কোচ স্টিভ রোডসকে বলির পাঠা বানানো হয়েছে। স্টিভ রোডসের কাছে প্রত্যাশা কী ছিল, কী বিবেচনায় তাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল- এসব প্রশ্ন উত্থাপন করে সাবের টুইটারে বর্তমান বোর্ড সদস্যরা কপবে তাদের ব্যর্থতা স্বীকার করে সরে দাঁড়াবেন তাও জানতে চান।

*সাবেরের এসব প্রশ্নের জবাবে এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, পাঁচ-ছয়জন আছে তাদের মুখে বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে কখনো ভালো কথা শুনলাম না। তারা ভালো কিছু দেখে না। কিন্তু একটা ম্যাচ খারাপ খেললেই উনাদের কথা শোনা যায়। এই পাঁচ-ছয়জন ছাড়া বাংলাদেশের যেকোনো মানুষের কাছে জিজ্ঞেস করেন। একটা রিকশা চালক থেকে শুরু করে একটা কৃষক এমনকি স্কুলের একটা বাচ্চা ছেলেকে প্রশ্ন করলে বলবে বাংলাদেশ একটি সেরা দল।