প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট আফগানদের বিপক্ষে পাকিস্তানের নাটকীয় জয়

আফগানদের বিপক্ষে পাকিস্তানের নাটকীয় জয়

89
আফগানদের বিপক্ষে পাকিস্তানের নাটকীয় জয়

ইমাদ ওয়াসিমের ব্যাটে নাটকীয় জয়ে সেমির স্বপ্ন আরও জোরালো করল পাকিস্তান। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২২৮ রান তাড়া করে ৩ উইকেটের জয় পায় পাকিস্তান। এই জয়ে সেমিফর পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেল পাকিস্তান।
আফগানদের বিপক্ষে বাঁচা-মরার লড়াইয়ের ম্যাচে শূন্য রানে ওপেনার ফখর জামানের উইকেট হারিয়ে প্রাথমিক বিপর্যয়ে পড়ে যায় পাকিস্তান। এরপর বাবর আজমকে সঙ্গে নিয়ে ৭২ রানের জুটি গড়েন দলকে খেলায় ফেরান ইমাম-উল-হক।
অনবদ্য ব্যাটিং করে যাওয়া ইমাম-উল এবং বাবর আজমের জুটি ভাঙেন নবী। তার প্রথম শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৫১ বলে ৩৬ রান করেন ইমাম-উল হক। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা বাবর আজমকেও বিভ্রান্ত করেন নবী। আগের দুই ম্যাচে ৬৯ ও ১০১ রান করা বাবর মোহাম্মদ নবীর দ্বিতীয় শিকার হয়ে ৫১ বলে ৪৪ রান করে ফেরেন।
তার আগে আফগানিদের বিপক্ষে শুরুতেই বিপদে পাকিস্তান। ইনিংসের দ্বিতীয় বলে মুজিব-উর- রহমানের লেগ স্পিনে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন পাকিস্তানের ওপেনার ফখর জামান। গত ম্যাচে ৯ রান করা ফখর আজ রানের খাতা খুলার আগেই সাজঘরে ফেরেন।
জিতলে সেমিফাইনালের স্বপ্ন টিকে থাকবে। হারলে বিদায়। এমন কঠিন সমীকরণের ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে ২২৮ রানের মামুলি স্কোর তাড়া করতে নেমে শুরুতে উইকেট হারিয়ে ব্যাক ফুটে চলে যায় পাকিস্তান।

আফগানিস্তান ২২৭/৯: পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২২৭ রান করেছে আফগানিস্তান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ রান করে করেন আসগর আফগান ও নজিবুল্লাহ জাদরান।
শনিবার ইংল্যান্ডের হ্যাডিংলি লিডসে বিশ্বকাপের এবারের আসরের ৩৬তম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৯ উইকেটে ২২৭ রান সংগ্রহ করে আফগানিস্তান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ রান করে করেন আসগর আফগান ও নজিবুল্লাহ জাদরান। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৭ রানে ২ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যাওয়া আফগানিস্তানের হাল ধরেন হাসমতউল্লাহ শহীদি ও আসগর আফগান।
তৃতীয় উইকেটে আসগর আফগানের সঙ্গে ৩০ রানের জুটি গড়তেই সাজঘরে ফেরেন ওপেনার হাসমতউল্লাহ। তবে অনবদ্য ব্যাটিং করে যান বিশ্বকাপের আগে অধিনায়কত্ব হারানো আসগর আফগান। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া আসগরকে লেগ স্পিনে বিভ্রান্ত করেন শাদাব খান। তার আগে চতুর্থ উইকেটে ইকরাম আলিখিলের সঙ্গে ৬৪ রানের জুটি গড়েন আসগর।

আসগর আফগানের বিদায়ের পর সুবিধা করতে পারেননি ইকরাম। ইমাদ ওয়াসিমের বলে মোহাম্মদ হাফিজের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তার আগে ৬৬ বল খেলে মাত্র ২৪ রান করেন ইকরাম। ছয় নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা আফগান সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ নবীকে ১৬ রানে ফেরান ওয়াহব রিয়াজ।
এরপর সপ্তম উইকেটে সামিউল্লাহ সেনওয়ারিকে সঙ্গে নিয়ে ৩৫ রানের জুটি গড়েন নজিবুল্লাহ জাদরান। এই জুটিতে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যান নজিবুল্লাহ। তাকে সাজঘরে ফেরান দুর্দান্ত বোলিং করে যাওয়া শাহীন শাহ আফ্রিদি। তার আগে ৫৪ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৪২ রান করেন নজিবুল্লাহ। ইনিংসের শেষ দিকে সামিউল্লাহ সেনওয়ারির ১৯ রানে ভর করে ২২৮ রান তুলতে সক্ষম হয় আফগানিস্তান।

সম্পাদক/এসটি