প্রচ্ছদ খেলা ক্রিকেট যেভাবে সেমিতে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন মাশরাফি

যেভাবে সেমিতে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন মাশরাফি

29
যেভাবে সেমিতে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন মাশরাফি

সেমিফাইনালে যেতে অস্ট্রেলিয়াকে হারানো ভীষণ জরুরি ছিল বাংলাদেশের। সেই মিশনে হারই সঙ্গী হয়েছে বাংলাদেশের।

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ৩৮২ রানের টার্গেটে রোমাঞ্চের জন্ম দিয়েও ৪৮ রানে হেরেছে মাশরাফি মুর্তজার দল। বাংলাদেশ ৮ উইকেটে থেমেছে ৩৩৩ রানে। এমন হারের জন্য বাজে বোলিংকেই দায়ী করলেন বাংলাদেশের ওয়ানডে দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা। তার মতে, বাংলাদেশের বোলাররা ৪০-৫০ রান বেশি খরচ করেছে।

শেষ ১০ ওভারের বাজে বোলিং ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিয়েছে বলেও জানালেন মনে করেন তিনি ।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) ম্যাচ শেষে ট্রেন্ট ব্রিজের সংবাদ সম্মেলনে এসে টাইগার দলপতি মাশরাফি সে কথাই বললেন, এখনো বলা যায় না। আপনি কখনোই জানেন না কী হবে। আমরা যেটা করতে পারি শেষ তিনটি ম্যাচে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি। অবশ্যই কঠিন। কিন্তু যদি ম্যাচ তিনটিতে জিততে পারি… এবং দেখতে হবে অন্যরা কী করে।

অথচ গল্পটি হতে পারত অন্যরকম। ব্যক্তিগত ১০ রানে সেঞ্চুরিয়ান ডেভিড ওয়ার্নারের ক্যাচটি যদি সাব্বির না ফেলতেন, শেষ ১০ ওভারে বোলাররা আরো চেক অ্যান্ড ব্যালান্স বল করতে পারতেন, নিশ্চয়ই অজিদের সংগ্রহ আরো কম হত। যা অবলীলায় টপকে যাওয়া সম্ভব হতো বলে মত টাইগার দলপতির।

মাশরাফি জানালেন, উইকেটটা খুবই ভালো ছিল। যারা টস জিততো আগে ব্যাটিংই নিত। তবে আমরা কিছু সুযোগ হাতছাড়া করেছি। ফিফটি ফিফটি হলেও এগুলো নেওয়া উচিত ছিল। তাহলে হয়তো ম্যাচটা অন্যরকম হতে পারত। এই ধরনের ম্যাচে সুযোগগুলো নিতে হবে। ডেভিড ওয়ার্নার পরে আরও ১৫০ রান যোগ করেছে।

তারপরেও আমরা ৪০ ওভার পর্যন্ত ঠিক ছিলাম। যদিও ওদের উইকেট পড়েনি। ওইখানে যদি আমরা ৭-৮ করে রান দিতে পারতাম উপকৃত হতাম। ওইখানে একটা সেট ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর নতুন ব্যাটসম্যান এলে এত রান করতে পারত না। বেশি সময় ছিল না, যেহেতু তাদের শটস খেলতে হতো। সব মিলিয়ে মনে হয় অবশ্যই সুযোগগুলো নিতে হবে। তবে তারা ৬ ওভারে ১০০ রান করে ফেলেছে। এতেই সব শেষ।’ যোগ করেন বাংলাদেশ দলপতি।

বিশ্বকাপে এটি বাংলাদেশের তৃতীয় হার। ৬ ম্যাচ শেষে স্টিভ রোডস শিষ্যদের পয়েন্ট ৫। বাকি আর ৩টি ম্যাচ। কিন্তু পয়েন্ট টেবিলের যে সমীকরণ তাতে শেষ চারে যেতে বাকি তিনটি ম্যাচে জয়ের কোনো বিকল্পই নেই। শুধু জিতলেই যে হবে তা নয়, তাকিয়ে থাকতে হবে অন্য ম্যাচগুলোর দিকে। সহজ কথায় বললে, ভীষণ কঠিন।