প্রচ্ছদ স্পটলাইট শ্রীলঙ্কায় আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী কারা এই জঙ্গিগোষ্ঠী?

শ্রীলঙ্কায় আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী কারা এই জঙ্গিগোষ্ঠী?

147
শ্রীলঙ্কায় আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী কারা এই জঙ্গিগোষ্ঠী?

শ্রীলঙ্কায় হামলার ঘটনায় শুরুতে ইসলামী সংগঠন ন্যাশনাল তাওহিদ জামাতকে সন্দেহ করা হচ্ছিল। কিন্তু গতকাল রুশ বার্তা সংস্থা তাস জানালো জামাত আল তাওহিদ আল ওয়াতানিয়া নামের একটি গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার করেছে।

যদিও কোনো নির্ভরযোগ্য মাধ্যম এখনো এই বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। তবে প্রশ্ন থেকেই যায় যে, কারা এই তাওহিদ আল জামাত? আর কারাই বা জামাত আল তাওহিদ আল ওয়াতানিয়া?

আশ্চর্যের বিষয় হলো, জামাত আল তাওহিদ আল ওয়াতানিয়া সম্পর্কে কোনো তথ্যই দিতে পারছে না কোনো গোয়েন্দা সংস্থা বা সংবাদ মাধ্যম। আইএস বা আল কায়েদা মতো সংগঠনগুলো যেখানে সামাজিক মাধ্যমে প্রচার চালায় এবং বার্তা প্রকাশ করে। সেখানে জামাত আল তাওহিদ আল ওয়াতানিয়া সামাজিক মাধ্যমেও নিশ্চুপ। এমনকি সত্যিই তাদের কোনো অস্তিত্ব আছে কিনা সে ব্যাপারেও নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না।

শ্রীলঙ্কা হামলার সঙ্গে জড়িত হিসেবে অন্য যেই সংগঠনটির নাম বলা হচ্ছে, তারা হলো তাওহিদ আল জামাত (এনটিজে)। এনটিজে একটি ইসলামপন্থি সংগঠন। কিন্তু শ্রীলঙ্কা সরকারের মুখপাত্র সোমবার এক বিবৃতিতে হামলার জন্য এনটিজেকে দায়ী করার আগ পর্যন্ত কম মানুষই তাদের চিনতো। ফেসবুকে এনটিজের একটি পেজ আছে। তবে তাতে পোস্টের সংখ্যা খুবই কম।

তাদের টুইটার পেজটিও ২০১৮ সালের মার্চের পর আর আপডেট হয়নি। ইউটিউবে এনটিজে-মিডিয়া ইউনিট শ্রীলঙ্কা নামে একটি চ্যানেল রয়েছে, যেখানে সিংহলি ভাষায় বেশ কিছু বক্তৃতার ভিডিও রয়েছে। এই গ্রুপের ওয়েবসাইটও এখন ওপেন হচ্ছে না।

ধারণা করা হয়, স্থানীয় কট্টর ইসলামিক সংগঠন শ্রীলঙ্কা তাওহীদ জামাত (এসএলটিজে) ভেঙে ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতের উৎপত্তি। এসএলটিজে নিজেও খুব বেশি পরিচিত সংগঠন নয়। তবে তাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম তুলনামূলকভাবে বেশ পুরনো। সংগঠনটির মহাসচিব আবদুল রাজ্জাক ২০১৬ সালে বৌদ্ধদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। পরে তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

তবে এই সঙ্গঠনগুলোর কোনোটিই শ্রীলঙ্কা হামলার সঙ্গে সম্পৃক্ত কিনা সে বিষয়টি এখনও রহস্যে ঢাকা। কোনো গোয়েন্দা সংস্থাটি এ বিষয়ে কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রকাশ করছে না। এই সংগঠনগুলো সন্ত্রাসী ভাবাদর্শের নাকি শুধু শুধুই হামলার সঙ্গে তাদের নাম জড়ানো হচ্ছে সেটাও এক বড় প্রশ্ন।