প্রচ্ছদ বিজ্ঞান-প্রযুক্তি মন্ত্রী বনাম পর্ন, বাংলাদেশের নতুন ‘যুদ্ধ’

মন্ত্রী বনাম পর্ন, বাংলাদেশের নতুন ‘যুদ্ধ’

153
মন্ত্রী বনাম পর্ন, বাংলাদেশের নতুন ‘যুদ্ধ'

পর্নগ্রাফির বিরুদ্ধে রীতিমতো ঘোষণা দিয়ে ‘যুদ্ধে’ নেমেছেন বাংলাদেশের এক মন্ত্রী। এরই মধ্যে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ২০ হাজার ওয়েবসাইট। ‘টিকটক’ নামের একটি সম্প্রতি জনপ্রিয় হওয়া অ্যাপও বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ- বিটিআরসির নির্দেশে গত এক সপ্তাহে এই ওয়েবসাইটগুলো বন্ধ করছে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো।

টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেন,‘‘শিশুসহ সব বাংলাদেশি নাগরিকের জন্য আমি একটি নিরাপদ ইন্টারনেট তৈরি করতে চাই। এটি পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে আমার যুদ্ধ এবং এ যুদ্ধ চলবে।”

জব্বার জানিয়েছেন, টিকটক এবং বিগো’র মতো কিছু অ্যাপের অপব্যবহার হচ্ছে বলে সেগুলোও ব্লক করা হয়েছে।

তিনি জানান, ব্লক করে দেয়া ওয়েবসাইটগুলোর বেশিরভাগই বিদেশি। তবে গুটিকয়েক বাংলাদেশি সাইটও রয়েছে এর মধ্যে।

গত বছরের নভেম্বরে হাইকোর্ট পর্নগ্রাফিক ওয়েবসাইট ও প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য তৈরি আধেয় (অ্যাডাল্ট কনটেন্ট) ছয় মাসের মধ্যে ইন্টারনেট থেকে সরিয়ে ফেলতে সরকারকে নির্দেশ দেয়।

রোববার বাংলাদেশের এক উঠতি অভিনেত্রীকে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও টিকটকে প্রকাশ করা তাঁর কিছু ভিডিও সরিয়ে ফেলতে নির্দেশ দেয়া হয়৷ এরপর জনপ্রিয় এক ইউটিউবার সালমান মুকতাদিরের খোঁজ জানতে চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন মন্ত্রী নিজেই। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাইবার ইউনিটে ডেকে নেয়া হয়।

জব্বার জানান, স্থানীয় বিভিন্ন ফেসবুক পাতা, প্রোফাইল, ওয়েবসাইট ও ইউটিউব চ্যানেল সরকারের নজরদারিতে আছে। তিনি বলেন, ‘‘এদের কোনো কোনোটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া যা আমাদের সামাজিক মূল্যবোধের সাথে যায় না, এমন কিছু ভবিষ্যতে পোস্ট না করার জন্য সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।”

১৬ কোটিরও বেশি মানুষের দেশে প্রায় এক কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন। এই ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট সার্চে প্রায়ই ওপরের দিকে থাকেন বিশ্বের বিভিন্ন পর্নো তারকা।