প্রচ্ছদ বাংলাদেশ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনয়নে তদবির করলেই বাদ!

সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনয়নে তদবির করলেই বাদ!

197
সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনয়নে তদবির করলেই বাদ!

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের জন্য আগামী মঙ্গলবার থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো জানাচ্ছে যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে মহিলা সংসদ সদস্য নির্বাচনের ক্ষেত্রে যোগ্যতার মাপকাঠি চূড়ান্ত করেছেন। এ বিষয়ে তিনি এবং তার নিজস্ব টিম কাজ করছেন।

দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন মানদণ্ড দেখে মহিলা আসনের প্রার্থীদের তালিকা তৈরি করবেন এবং সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এটা নিয়ে আলোচনা হবে। কিন্তু এসব আসনের জন্য যে সব নারী প্রার্থী বিভিন্ন নেতার কাছে তদবির বা ধর্না দেবেন তারা অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন এবং তাদেরকে বাদ দেয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী গতকাল দলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে স্পষ্ট করে বলেছেন যে, মহিলা আসন নিয়ে কোন ধরনের তদবির, কোন ধরনের মনোনয়ন বাণিজ্য বা দেন-দরবার সহ্য করা হবে না। তিনি বলেন যে, আমরা রাজনীতিতে নারীদের আরও সক্রিয় করতে চাই। তাদের কাজের যোগ্যতা, তাদের অতীতের ভূমিকা এবং তারা দায়িত্ব পালনে কতটুকু কার্যকর হবেন তা বিবেচনা করে মহিলা আসনের জন্য প্রার্থী বিবেচনা করা হবে।

এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব টিম কাজ করছেন বলে জানা গেছে। একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা তারা প্রণয়ন করেছেন। প্রতিবারই নারী আসনের মনোনয়নের জন্য নানা রকম অনিয়ম তৈরি হয়। মনোনয়ন প্রত্যাশীরা বিভিন্ন নেতার কাছে ধর্না দেন, তদবিরে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এটার ফলে দলের বদনাম হয় এবং ভাবমূর্তি নষ্ট হয়। এটি বন্ধের জন্য প্রধানমন্ত্রী এবার কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

জানিয়ে দেয়া হয়েছে যে, যারাই এটা নিয়ে তদবির এবং ধর্না দেবে তারাই মননোয়নের জন্য অযোগ্য বিবেচিত হবেন। এর ফলে আওয়ামী লীগ দলের চাহিদা অনুযায়ী যারা যোগ্য, যাদেরকে দল মূল্যায়ন করতে চায় তাদেরকেই মনোনয়ন দেয়া সম্ভব হবে বলে মন করছে।

সম্পাদক/এসটি