প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় একাদশ সংসদে নারী আসন কোন দল কয়টি পাচ্ছে?

একাদশ সংসদে নারী আসন কোন দল কয়টি পাচ্ছে?

61
একাদশ সংসদে নারী আসন কোন দল কয়টি পাচ্ছে?

আগামী ৩০ জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন ডাকা হয়েছে। অধিবেশনের এক সপ্তাহের মধ্যেই নির্বাচন সংরক্ষিত মহিলা আসনের জন্য তফশিল ঘোষণা করবে বলে জানা গেছে।

জাতীয় নির্বাচনে প্রতিটির দলের প্রাপ্ত আসনের আনুপাতিক হারে মহিলা আসন পায়। প্রাপ্ত প্রতি ৬টি আসনের বিপরীতে ১টি করে মহিলা আসন পায় দলগুলো।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ এককভাবে ২৫৬টি আসন পেয়েছে এবং জোটগত ভাবে পেয়েছে ২৮৮টি আসন। সেই হিসেবে সংরক্ষিত ৫০টি মহিলা আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ এককভাবে পাবে ৪৩টি আসন এবং জোটগতভাবে পাবে ৪৮টি আসন, যার মধ্যে জাতীয় পার্টি পাবে ৪টি আসন।

অপরদিকে আওয়ামী লীগের শরিকগুলোর কারোরই এককভাবে ৬টি আসন না থাকায় বাকি একটি আসনও আওয়ামী লীগের অধীনেই থাকবে। অবশিষ্ট ২টি আসন বরাদ্দ থাকবে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্টের জন্য। যদি তারা সংসদে না আসে সেক্ষেত্রে এই ২টি আসনও যাবে আওয়ামী লীগের দখলে।

একই পরিবারে ৩ এমপি: ওসমান পরিবারের ক্ষমতা বৃদ্ধি

রাজনীতির টক অব দ্য সিটি নারয়ণগঞ্জে এবার একই পরিবার থেকে ৩ জন এমপি হলেন। একাদশ জাতীয় সংসদে ওসমান পরিবার হিসেবে খ্যাত শামীম ওসমান আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য এবং সেলিম ওসমান জাতীয় পার্টির সাংসদ।

দুই ভাই সরাসরি নির্বাচিত হলেও এবার প্রয়াত নাসিম ওসমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি হতে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনের নাসিম ওসমানের সহধর্মিনী পারভীন ওসমান। সংরক্ষিত নারী আসনে জাতীয় পার্টির চারজন প্রার্থীকে মনোনীত করতে স্পিকার বরাবর আবেদন করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। যদিও জাতীয় পার্টির নির্বাচিত ২২ সদস্যের আনুপাতিক হারে দলটি তিনটি সংরক্ষিত নারী আসন পাওয়ার কথা।

গতকাল বুধবার (৯ জানুয়ারি) চারজনের নাম উল্লেখ করে জাতীয় সংসদের স্পিকার বরাবর একটি চিঠি পাঠিয়েছেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। এতে উল্লেখ করা হয়, জাতীয় পার্টির চার প্রার্থীকে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন দেয়ার জন্য অনুরোধ করছি। সংরক্ষিত নারী আসনে জাতীয় পার্টি প্রার্থী হলেন ১. পারভীন ওসমান (নারায়ণগঞ্জ), ২. ডা. শাহীনা আক্তার (কুঁড়িগ্রাম), ৩. নাজমা আখতার (ফেনী), ৪. মনিকা আলম (ঝিনাইদহ)।

জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদে কোন জোট বা দল কয়টি সংরক্ষিত নারী আসন পাবে তা ২১ কার্যদিবসের মধ্যে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) জানাতে হবে। আইন অনুযায়ী, নব নির্বাচিতদের ফলাফল গেজেট আকারে প্রকাশের পর দল বা জোটগুলোকে এই সময়ের মধ্যে তথ্য জানানোর বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ জন্য আগামী ৩০ জানুয়ারির মধ্যে ইসিকে এ সংক্রান্ত তথ্য দিতে হবে।

আর ভোটের ফলাফল গেজেট আকারে প্রকাশের পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ ক্ষেত্রে ১ এপ্রিলে মধ্যে এ নির্বাচন করতে হবে।

প্রয়াত নাসিম ওসমানের সহধর্মিনী পারভীন ওসমানকে সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য মনোনয়ন দেয়ায় নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে ওসমান পরিবারের ক্ষমতা আরো বৃদ্ধি পেল।

 সম্পাদক/এসটি