প্রচ্ছদ বাংলাদেশ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নৌকা ৭, ধানের শীষ ৪টি আসনে জয় পাবে কুমিল্লাতে

নৌকা ৭, ধানের শীষ ৪টি আসনে জয় পাবে কুমিল্লাতে

119
নৌকা ৭, ধানের শীষ ৪টি আসনে জয় পাবে কুমিল্লাতে

দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় জেলা কুমিল্লায় নির্বাচনী আসন রয়েছে ১১টি। এখানে মোট ভোটার ৩৮ লাখ ৭৮ হাজার ৪৭৪।

এর মধ্যে নারী ভোটার ১৯ লাখ ২৪ হাজার ৭১৯। আর পুরুষ ভোটার ১৯ লাখ ৫৩ হাজার ৭৫৫। গত ১০ বছর ধরে এখানে আওয়ামী লীগের একক আধিপত্য থাকলেও এই জেলায় মূলত বিএনপির প্রভাব বেশি। সামগ্রিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে প্রেডিক্ট করা হয়েছে এখানে ধানের শীষ ৭টি এবং নৌকা ৪ট আসনে জয় পাবে।

কুমিল্লা-১: কুমিল্লা-১ আসনে বিএনপির প্রার্থী হেভিওয়েট নেতা খন্দকার মোশাররফ। তাঁর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের সুবিদ আলী ভুঁইয়া। খন্দকার মোশাররফ বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতা। এই এলাকাতেও তিনি অত্যন্ত প্রভাবশালী। ১৯৯১ থেকে ২০০১ পর্যন্ত টানা তিনবার এই আসন থেকে জয় পায় বিএনপি। অন্যদিকে নৌকার সুবিদ আলী ভুঁইয়া এই এলাকায় গত দুই মেয়াদের সাংসদ হলেও জনসমর্থনের দিক দিয়ে তিনি খন্দকার মোশাররফের চেয়ে অনেকটাই পিছিয়ে আছেন। এ কারণে এই আসনে ধানের শীষের জয়ের সম্ভাবনা বেশী।

কুমিল্লা-২: এই আসনটি বিএনপির দুর্গ হিসেবে পরিচিত। ২০০৮ সালে বিএনপির ভরাডুবির নির্বাচনেও এই আসন থেকে জয় পেয়েছিল তারা। এখানেও ধানের শীষ নিয়ে লড়ছেন খন্দকার মোশাররফ। আর আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছে সেলিমা আহমেদ। খন্দকার মোশাররফ এই এলাকার ১৯৯১ থেকে ২০০১ টানা তিন মেয়াদের এমপি। অন্যদিকে সেলিমা আহমেদ একেবারেই নতুন প্রার্থী। অভিজ্ঞতা, জনপ্রিয়তা সব দিক থেকেই খন্দকার মোশাররফের থেকে পিছিয়ে তিনি। এ কারণে এই আসনে ধানের শীষের জয় অনেকটাই নিশ্চিত।

কুমিল্লা-৩: কুমিল্লা-৩ আসনটিও বিএনপির ঘাঁটি। এখানে বিএনপির প্রার্থী কাজী মুজিবুল হক। আর আওয়ামী লীগের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ইউসুফ আবদুল্লাহ। ইউসুফ আবদুল্লাহ এই এলাকার বর্তমান সাংসদ হলেও এলাকায় তিনি খুব একটা শক্ত অবস্থানে নেই। অন্যদিকে কাজী মুজিবুল হক নতুন প্রার্থী। তবে এলাকায় বিএনপির সমর্থন বেশি থাকায় এখানে ধানের শীষের জয়ের সম্ভাবনাই বেশি।

কুমিল্লা-৪: এখানে আওয়ামী লীগের রাজি মোহাম্মদ ফখরুলের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী জেএসডি’র আবদুল মালেক। রাজি মোহাম্মদ ফখরুল ২০১৪ সালে স্বন্তন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয় পেয়েছিলেন। এবারও এই আসনটি তাঁর দখলে থাকবে বলে মনে করছি আমরা। কারণ জেএসডি’র কোনো নেতা কর্মী নির্বাচনের মাঠে সরব নন। এখানে বিএনপির নেতা কর্মীদেরও সাহায্য সহযোগিতা পাচ্ছেন না তারা। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ সংঘবদ্ধ হয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে। এটা নিশ্চিতভাবেই নৌকাকে নির্বাচনী রেসে এগিয়ে রাখবে।

কুমিল্লা-৫: এই আসনে নৌকার হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আবদুল মতিন খসরু। আর বিএনপির প্রার্থী মো ইউনুস। আবদুল মতিন খসরু এই এলাকার জনপ্রিয় নেতা। এর আগে পাঁচবার নির্বাচনে অংশ নিয়ে চারবারই জয়ী হয়েছেন তিনি। অন্যদিকে মো ইউনুস শুধুমাত্র ২০০১ সালে এই আসন থেকে জয় পান। এখানে এবার নৌকাই জিতবে বলে প্রেডিক্ট করছি আমরা। কারণ প্রচার-প্রচারণা এবং জনপ্রিয়তায় নৌকার তুলনায় এখানে অনেকটাই পিছিয়ে ধানের শীষ।

কুমিল্লা-৬: কুমিল্লা-৬ এ ধানের শীষের আমিন উর রশিদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন নৌকার আ ক ম বাহাউদ্দিন। এই এলাকাতেও বিএনপির প্রভাব বেশি। এ কারণে এখানে ধানের শীষ জয় পাবে বলে মনে করছি আমরা।

কুমিল্লা-৭: এখানে আওয়ামী লীগের আলী আশরাফের প্রতিদ্বন্দ্বী এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ। এই দুজন ৩৮ বছর ধরে একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছেন। এর মধ্যে রেদোয়ান আহমেদ চারবার জয় পেয়েছেন আর আলী আশরাফ জয় পেয়েছেন দুই বার। এবার এখানে রেদীয়ান আহমেদের জয় দেখছি আমরা। কারণ এই এলাকায় আওয়ামী লীগের মধ্যকার কোন্দল নির্বাচনে যুদ্ধে তাদের পিছিয়ে দিচ্ছে।

কুমিল্লা-৮: এই আসনে বিএনপির জাকারিয়া তাহেরের বিরুদ্ধে লড়ছেন জাতীয় পার্টির নাছিমুল আলম। জাকারিয়া তাহের শক্তিশালী প্রার্থী। এখানে বিএনপিরও প্রভাব বেশি। অন্যদিকে জাতীয় পার্টি এবার মাঝিবিহীন নৌকায় পরিণত হয়েছে। নির্বাচনী মাঠে তাদের কোনো নেতা কর্মীরই দেখা মিলছে না। এ কারণে এই আসনে ধানের শীষের জয় অনেকটাই নিশ্চিত।

কুমিল্লা-৯: কুমিল্লা-৯ এ আওয়ামী লীগের তাজুল ইসলামের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী আনোয়ারুল আজিম। আনোয়ারুল আজিম শক্তিশালী প্রার্থী। এবার এলাকাবাসীর সহানুভূতিও পাচ্ছেন তিনি। অন্যদিকে দলীয় কোন্দলের কারণে তাজুল ইসলাম নির্বাচনী যুদ্ধে দুর্বল হয়ে পড়ছেন। একারণে এখানে ধানের শীষ জয় পাবে বলে প্রেডিক্ট করা হচ্ছে।

কুমিল্লা-১০: আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতা আ হ ম মুস্তফা কামাল এবার কুমিল্লা-১০ এর প্রার্থী হয়েছেন। তাঁর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মুনিরুল হক চৌধুরী। আ হ ম মুস্তফা কামাল এই এলাকায় অত্যন্ত প্রভাবশালী এবং জনপ্রিয়। এর আগে চারবার নির্বাচনে অংশ নিয়ে তিনবারই জয় পেয়েছেন তিনি। অন্যদিকে বিএনপির মুনিরুল হকও শক্তিশালী নেতা। তবে এবার নির্বাচনী মাঠে তার দলীয় নেতাকর্মীরা একেবারেই নীরব। এ কারণে এখানে নৌকা জিতবে বলে মনে করছি আমরা।

কুমিল্লা-১১: কুমিল্লা-১১ এ আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. মুজিবুল হক। আর ধানের শীষ নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জামায়াতের আবু তাহের। মো. মুজিবুল হক গত দুই মেয়াদে এই এলাকার সাংসদ। এলাকায় তাঁর প্রভাব ও জনপ্রিয়তা আছে। বিপরীতে জামায়াতের আবু তাহের অনেকটাই নিষ্প্রভ। এজন্য এই আসনে নৌকা জয় পাবে বলে প্রেডিক্ট করছি আমরা।

সম্পাদক/এসটি