প্রচ্ছদ জীবন-যাপন আদালতে স্বীকারোক্তি যাজকের, ঈশ্বরের নির্দেশে ধর্ষণ করেছি!

আদালতে স্বীকারোক্তি যাজকের, ঈশ্বরের নির্দেশে ধর্ষণ করেছি!

91
আদালতে স্বীকারোক্তি যাজকের, ঈশ্বরের নির্দেশে ধর্ষণ করেছি!

১৫ বছরের কারাদণ্ডের সাজা দিয়েছে আদালত। সেটা শোনার পর নির্বিকারই ছিলেন দক্ষিণ কোরিয়ার মনমিন সেন্ট্রাল চার্চের যাজক জেরক লি।

সেই চার্চের ১৮ জন নারী ভক্তকে ধর্ষণ করেছিল সে। আদালতে অত্যন্ত নির্বিকারভাবে বিচারপতিকে সে বলেছিল কোন অপরাধ সে করেনি। ঈশ্বরের নির্দেশেই ধর্ষণ করেছে।

যে চার্চের যাজক ছিল লি সেই চার্চের কমপক্ষে ১০,০০০ শাখা রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ায়। এবং সেই চার্চের অনুগামী সংখ্যা প্রায় ১,৩৩,০০০। এমনই একটি গুরুত্বপূর্ণ চার্চের যাজক ছিল সে। বরাবরই বিতর্কের কেন্দ্রে থেকেছে লি। নিজেকে অমর এবং পাপহীন বলে দাবি ছিল তার।

সে দাবি করত তার অনুগামী হলে সোজা স্বর্গে স্থান হবে। ধর্ষণকে সে পাপমুক্তির উপায় বলে মনে করত। ভক্তদের এই ধরনের কথা বলে প্রভাবিত করত। এবং তাদের মানসিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ধর্ষণ করত। ৭৫ বছর বয়সী এই যাজক ৫০ বছরের ছোট ভক্তকে পাপমুক্তির উপায় জানিয়ে ধর্ষণ করে।

আদালতে নির্যাতিতা জানিয়েছে, লি তাকে পাপগ্রস্ত হয়ে পড়েছে বলে মানসিক ভাবে ভেঙে দিয়েছিল। সেই পাপ তাকে গ্রাস করছে বলে একাধিকভাবে প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছিল লি।

তার কথায় প্রভাবিত হয়ে পড়ে মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। তারপরে লি তাকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। লি নিজেও বিচার চলাকালীন বারবার বলেছে ইশ্বরের নির্দেশে সে ধর্ষণ করেছে।

 সম্পাদক/এসটি