প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় তফসিল ঘোষণার কারণে প্রধানমন্ত্রীর বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

তফসিল ঘোষণার কারণে প্রধানমন্ত্রীর বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

108
তফসিল ঘোষণার কারণে প্রধানমন্ত্রীর বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

অনিবার্য কারণবশত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম হেলাল বুধবার রাতে এ কথা জানান।

তিনি বলেন, “অনিবার্য কারণবশত আগামীকালের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে।”

এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি আশরাফুল আলম খোকনও এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, সংবাদ সম্মেলনের পরিবর্তিত তারিখ পরে জানিয়ে দেওয়া হবে।

গত ১ নভেম্বর থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত সংলাপে বাংলাদেশের যেসব রাজনৈতিক দল অংশ নিয়েছে তাদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত সংলাপের বিষয়বস্তু নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

অাজ বুববারও দুপুরে ওবায়দুল কাদের ব্রিফিং করার সময় বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের কথা বলেছিলেন। রাতে তিনিই সংবাদ সম্মেলন স্থগিতের কথা নিশ্চিত করেন।

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার জন্য সংবাদ সম্মেলনটি স্থগিত করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের একটি সূত্র দাবি করেছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়ে তফসিল ঘোষণা করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

তফসিলকে কেন্দ্র করে রাজধানীতে র‌্যাবের টহল

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে রাজধানীতে র‌্যাবের টহল দেখা যাচ্ছে। তফসিল সামনে রেখে যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে সতর্কাবস্থানে রয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

বুধবার নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা আগামীকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ প্রদানের মাধ্যমে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবেন।’

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনার পর রাজধানীতে টহল দিতে দেখা যায় র‌্যাব সদস্যদের। বিভিন্ন স্থানে সতর্ক প্রহরায় দেখা যায় টহল ও থানা পুলিশ সদস্যদের।

এদিকে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, জাতীয় সংসদ তফসিলকে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হবে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে পরিস্থিতি মোকাবেলায় নির্দেশনা দেব। ঐক্যফ্রন্টের কর্মসূচি অবহিত না হলেও কেউ যদি তফসিল ঘোষণায় বাধা সৃষ্টি করে, তাহলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ৪ নভেম্বর নির্বাচন কমিশনের সভায় ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত হয়। সিইসি কে এম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে বৈঠকে চার নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশনের সচিব ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

‘কেউ বিশৃঙ্খলা করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা’

নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ইসির অধীনে চলে আসবে। কেউ বিশৃঙ্খলা করলে, কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ইসি প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেবে।

বুধবার আওয়ামী লীগের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

সচিব বলেন, ইসি যেন সংবিধান ও আইন মেনে কাজ করতে পারে, সেক্ষেত্রে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগ। নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা আচরণ বিধিমালা মেনেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন বলেও জানানো হয়েছে।

সম্পাদক/এসটি

পোস্টে মন্তব্য করে ফেসবুকে শেয়ার করুন