প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জাতীয় শেখ হাসিনার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি দেখেছি: বি. চৌধুরী

শেখ হাসিনার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি দেখেছি: বি. চৌধুরী

3907
শেখ হাসিনার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি দেখেছি: বি. চৌধুরী

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দল এবং যুক্তফ্রন্টের মধ্যে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে গতকাল শুক্রবার।

গণভবনে অনুষ্ঠিত এ সংলাপ শেষে যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান ও বিকল্পধারার সভাপতি অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী আনুষ্ঠানিক প্রেস কনফারেন্স করেন। প্রেস কনফারেন্সে তিনি বলেছেন, শেখ হাসিনার তিনটি পরিচয়। প্রথমত, তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী। দ্বিতীয়ত, তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতি। তৃতীয়ত, তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যা।

সংবাদ সম্মেলনের পর বি. চৌধুরী সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক প্রাজ্ঞতা, বিচক্ষণতা ও দূরদর্শিতায় মুগ্ধ হয়েছি। তাঁর মধ্যে আমি বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি দেখেছি।’ ৯১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা ছিলেন, আমি সংসদীয় উপনেতা ছিলাম। ’৯৬ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী ছিলেন আর আমি বিরোধী দলীয় উপনেতা ছিলাম। এরপর ২০০১ সালে আমি রাষ্ট্রপতি ছিলাম। এখন আমি একজন পরিণত শেখ হাসিনাকে দেখলাম এবং তাঁর রাজনৈতিক চিন্তা-ভাবনা, মানুষকে শ্রদ্ধা করার মানসিকতা ও অন্যের মত শোনার মানসিকতা আমি আবার নতুন করে উপলব্ধি করলাম।’

অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর অদ্ভুত গুণ ছিল মানুষকে আপন করে নেওয়ার, অন্যের কথা শোনার এবং মানুষের প্রতি সম্মান দেখানোর। সেই গুণটি প্রচণ্ডভাবে ধারণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

‘সব দাবিই যৌক্তিক, উপস্থাপনও সুন্দর’

আলোচনা ফলপ্রসু হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিকল্পধারার চেয়ারম্যান ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। শুক্রবার রাত পৌণে ১১টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণভবনে সংলাপ শেষে বের হয়ে যাবার সময় তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। এসময় ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী আরো বলেছেন, দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ধৈর্যসহকারে তাদের বক্তব্য শুনেছেন।

বৈঠক শেষে বের হয়ে যাবার সময় যুক্তফ্রন্ট নেতা বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি জেবেল রহমান গাণি বলেছেন, আলোচনা ফলপ্রসু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে আলোচনা করেছেন। তিনি আমাদের কথা ধৈর্যসহকারে শুনেছেন। আমরা আশা করছি নির্বাচনে যাব।

বিকল্পধারার সহ-সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এইচ এম গোলাম রেজা বলেন, দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন তিনি সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করবেন। আমরা তার কথায় সন্তুষ্ঠু। আমরা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

তিনি বলেন, আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে মাননীয় প্রধাণমন্ত্রী বলেছেন, নির্বাচন কালীন সময়ে তফসিল ঘোষণার পর কেউ মন্ত্রী হিসেবে পতাকা ব্যবহার করবেন না। তারা শুধুমাত্র নিয়মতান্ত্রিক দাফতরির দায়িত্ব পালনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবেন।

এরপর আজ শুক্রবার (২ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১১টায় বারিধারায় নিজ বাসভবন ‘মায়াবি’তে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন বি. চৌধুরী। গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে অনুষ্ঠিত যুক্তফ্রন্টের সংলাপের বিষয়বস্তু তুলে ধরতে মধ্যরাতে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

সংলাপ আশাবাদের দিকে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি. চৌধুরী)। পাশাপাশি সংলাপে যুক্তফ্রন্টের দাবিগুলোকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত যৌক্তিক হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বি. চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আপনাদের সব দাবিই যৌক্তিক। এবং আপনাদের উপস্থাপনও সুন্দর। অন্য মন্ত্রীরাও একই কথা বলেছেন।’

সম্পাদক/এসএ