প্রচ্ছদ স্বাস্থ্য যৌবন অটুট রাখে যেসব খাবার

যৌবন অটুট রাখে যেসব খাবার

110
যৌবন অটুট রাখে যেসব খাবার

প্রকৃতির নিয়মেই মানুষের বয়স বাড়ে, বয়সের ছাপ পড়তে থাকে শরীরে। কিন্তু একটু চেষ্টা করলেই আপনি বয়স বাড়লেও শরীরকে সুন্দর আর আকর্ষণীয় করে রাখতে পারবেন।

নিয়মিত ব্যায়াম, মেডিটেশনের পাশাপাশি খাদ্যাভ্যাসটাও যদি ঠিক রাখেন তাহলে আপনি বয়স বাড়লেও সুন্দর থাকতে পারবেন। এজন্য খাদ্য তালিকায় রাখুন নিচে বর্ণিত ৫টি খাবার।

দই: নিয়মিত দই খান। দইয়ে থাকা ব্যাকটেরিয়া শরীরের জন্য ভালো। দই বয়সজনিত কারণে হওয়া রোগগুলো প্রতিরোধ করে। দইয়ে ক্যালসিয়ামও থাকে।

কমলা: কমলালেবু খাওয়া শরীরের জন্য খুবই ভালো। কারণ এই ফলে ভিটামিন ‘সি’ থাকে। ত্বক টানটান রাখে কমলালেবু।

অলিভ অয়েল: অলিভ তেল রোগ থেকে যেমন দূরে সরিয়ে রাখবে, তেমনি ত্বকে এনে দেবে উজ্জ্বলতা। যা আপনার বয়সকে সত্যিই কম করে দেখাবে।

বেরি: স্ট্রবেরি হোক কিংবা ব্ল্যাকবেরি সবকটিই শরীরের জন্য ভালো। বিশেষ করে কালো জাম। এতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘সি’ থাকে। এই জাতীয় ফল ত্বককে রাখে সতেজ।

বৃদ্ধ বয়সে সুস্থ থাকার মন্ত্র জানালেন গবেষকরা!

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানবদেহে বিভিন্ন রোগ-ব্যাধি বাসা বাঁধে। সেই সঙ্গে যুক্ত হয় একাকিত্ব। যার ফলে প্রবীণদের মধ্যে দেখা যায় নানা মানসিক সমস্যা। বিশেষ করে স্মৃতিভ্রংশ ব্যাপক হারে দেখা যায় প্রবীনদের মধ্যে। তবে প্রবীণদের জীবন সুস্থ থাকার পথের সন্ধান দিলেন ব্রিটেনের লাগবর্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক।

সেই গবেষণায় বলা হয়েছে, বয়সকালে স্মৃতিভ্রংশ, একাকিত্ব থেকে মুক্তি দিতে পারে বিয়ে। প্রবীণ বয়সের বিয়ে করলে নতুন বন্ধুত্বের ছোঁয়ায় মানসিক দিক থেকে সুস্থ থাকতে সহায়তা করে বলে গবেষকদের দাবি। এছাড়াও বিবাহিত জীবন এবং পরম বন্ধুত্ব প্রবীণদের স্মৃতি ধরে রাখতে সাহায্য করে। প্রবীণ বয়সে হাওয়া আলঝাইমার্স রোগ সারিয়ে তুলতে ওষুধের মত কাজ করে বিয়ে।

এই নিয়ে ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ৮ বছর ধরে ৬৫০০ জনের উপর গবেষণা চালিয়েছেন। পাশাপাশি আলঝাইমার্সে আক্রান্তদের ওপরও গবেষণা করে তারা বেশ কিছু লক্ষণ প্রবীনদের মধ্যে দেখেছেন। যেমন- মধ্যবয়সে শ্রবণশক্তি কমে আসা, বিষণ্নতায় ডুবে যায় ধীরে ধীরে।

এরপর বিশেষজ্ঞদের দাবি, বিবাহিত জীবন প্রবীনদের আলঝাইমার্সের ঝুঁকি অনেকটা কমিয়ে দেয়। পাশাপাশি তারা আরও জানিয়েছেন, কাছের বন্ধু-বান্ধব থাকলেও অনেকটা উপকার পাওয়া যায়।