প্রচ্ছদ রান্না-বান্না বিবিখানা পিঠা ও সরিষা বাটায় চিংড়ি দিয়ে শাপলা-লতা ভুনা

বিবিখানা পিঠা ও সরিষা বাটায় চিংড়ি দিয়ে শাপলা-লতা ভুনা

48
বিবিখানা পিঠা ও সরিষা বাটায় চিংড়ি দিয়ে শাপলা-লতা ভুনা

এই পিঠা দেখতে অনেকটা কেক’য়ের মতো। তাই বিক্রমপুরের ঐতিহ্যবাহী এই পিঠাকে অনেকে কেক পিঠাও বলে। অতি মজার

এই পিঠার রেসিপি দিয়েছেন প্যারিস প্রবাসী রন্ধনশিল্পী ডা. ফারহানা ইফতেখার।

উপকরণ: চালের গুঁড়া ১ কাপ। নারিকেল কোরানো ১ কাপ। খেজুরের গুড় ১ কাপ। ঘি ২ টেবিল-চামচ। ঘন দুধ ১ কাপ বা কন্ডেন্সড মিল্ক। ডিম ২টি। এলাচ, দারুচিনি গুঁড়া আধা চা-চামচ।

পদ্ধতি: প্রথমে সব শুকনা উপকরণ মিশিয়ে নিন। তারপর এতে ডিম ভালো করে ফেটে ঘি, দুধ, নারিকেল কোরানো ভালো করে মেশান।

কেকের মিশ্রণের মতো হবে। এবার বাটিতে ঢেলে দিন।

তারপর পিঠা বসানোর পাত্রে এমন ভাবে পানি দিন যেন পিঠার বাটি অর্ধেক ডুবে যায়। এবার পিঠার বাটির ঢাকনা লাগিয়ে পানিতে বসান ও পুরো পাত্রটি ঢেকে দিন।

এবার মাঝারি আঁচে ৪৫ থেকে ৫৫ মিনিট জ্বাল করুন। মাঝে কয়েক বার পরখ করুন। পানি শুকিয়ে গেলে পানি দিন। ৪০ মিনিট পর পিঠার মাঝখানে কাঠি ঢুকিয়ে দেখুন হয়েছে কিনা। পরিষ্কার কাঠি উঠে আসলে বুঝবেন হয়ে গেছে।

এবার বাটি নিমিয়ে ঠাণ্ডা করে পিঠার চারপাশে ছুরি দিয়ে একবার ঘুরিয়ে নিন। এবার একটা প্লেটে উল্টে নিন। হয়ে গেল দারুন মজাদার বিবিখানা পিঠা।

তারপর পিঠার উপরে ইচ্ছা মতো নারিকেল কুচি ছড়িয়ে পছন্দ মতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

মজার স্বাদের বাঙালি ব্যঞ্জন। রেসিপি দিয়েছেন প্যারিস প্রবাসী রন্ধনশিল্পী ডা. ফারহানা ইফতেখার।

উপকরণ: শাপলা লতা- এক আঁটি। মাঝারি চিংড়ি কয়েকটা। সরিষা-বাটা আধা চা-চামচ। পেঁয়াজ-কুচি আধা কাপ। সয়াবিন তেল প্রয়োজন মতো। কাঁচামরিচ ৫টি। হলুদ-গুঁড়া আধা চা-চামচ। লাল-মরিচের গুঁড়া ১ চা-চামচ। ধনে গুঁড়া আধা চা-চামচ। আদাবাটা আধা চা-চামচ। রসুন-বাটা ১ চা-চামচ। টমেটো ১টি পেস্ট করা। লবণ প্রয়োজন মতো। চিনি ১ চিমটি। ধনেপাতা-কুচি প্রয়োজন মতো।

পদ্ধতি: শাপলা-লতা বেছে এক ইঞ্চি লম্বা করে কেটে ধুয়ে চুলায় ফুটন্ত পানিতে ছেড়ে দিন। একবার ফুটে উঠলে নামিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।

পরিষ্কার করা চিংড়ি মাছগুলো একটু হলুদ ও লবণ দিয়ে মেখে প্যানে তেল গরম করে ভেজে উঠিয়ে রাখুন। একই তেলে পেঁয়াজ-কুচি দিয়ে ভেজে নিন।

লবণ দিয়ে আরও কিছুক্ষণ নেড়ে আদা ও রসুন বাটা, হলুদ, মরিচ, ধনেগুঁড়া, সরিষা বাটা, চিনি, টমেটো পেস্ট এবং সামান্য পানি দিয়ে কষিয়ে নিন।

মসলা কষানো হয়ে গেলে শাপলা ও চিংড়িমাছগুলো দিয়ে নাড়ুন।

এবার কাঁচামরিচ ফালি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নেড়ে আঁচ কমিয়ে ঢেকে দিন। কিছুক্ষণ পর ঢাকনা খুলে আরেকবার নেড়ে দিন।

পানি টেনে মাখা মাখা হলে ধনেপাতা-কুচি দিয়ে নামিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।