প্রচ্ছদ মুক্ত মতামত নবীর স্ত্রীরা খোলা মাঠে পায়খানা করতেন, একদিন উমর দেখে ফেললেন

নবীর স্ত্রীরা খোলা মাঠে পায়খানা করতেন, একদিন উমর দেখে ফেললেন

587
নবীর স্ত্রীরা খোলা মাঠে পায়খানা করতেন, একদিন উমর দেখে ফেললেন

তসলিমা নাসরিন

বোরখাকে নিষিদ্ধ করা উচিত। মানুষের নিরাপত্তার জন্যেই এটিকে নিষিদ্ধ করা উচিত। বোরখার আড়ালে থাকতে পারে যে কোনও পুরুষ— হয়তো সে চোর, ডাকাত,ধর্ষক, জেল পলাতক আসামী, হয়তো খুনী, জঙ্গি, সন্ত্রাসী। জিহাদি জঙ্গি মেয়েরাও থাকে বোরখার আড়ালে, হাতে তাদের থাকতে পারে অস্ত্র।

বোরখা একটা ভয়ঙকর জিনিস। এটি ক্রিমিনালদের আশ্রয় দেয়। এটি আইডেনটিটি বিলুপ্ত করে ফেলে। আমরা সবকিছুতে আইডি দেখতে চাই। বোরখা আইডি বিরোধী।

ধার্মিক হতে গেলে বোরখা ছাড়াও ধার্মিক হওয়া যায়। বোরখা আরবের মেয়েদেরও পোশাক ছিল না। বোরখার উৎপত্তিটা বড় হাস্যকর। নবীর স্ত্রীরা খোলা মাঠে পায়খানা করতেন, একদিন উমর দেখে ফেললেন। নবীকে বললেন আজ তো আপনার অমুক স্ত্রীকে দেখলাম পায়খানা করছে, ওদের তো বললেই পারেন গা-টা ঢেকে বসতে, লোকে যেন চিনতে না পারে।

নবী প্রথম আমল দেননি। পরে স্ত্রীদের বলে দিলেন, মাঠে পায়খানা করতে গেলে গা ঢেকে বসো, কেউ যেন চিনতে না পারে। ব্যস, ঢাকাঢাকির ওই শুরু। নবীর বন্ধুরা ঘরে এসে সুন্দরী আয়শার দিকে তাকান, নবীর পছন্দ হয় না, স্ত্রীদের বলে দিলেন পর্দার আড়ালে থাকতে। আর সামনে এলে গা ঢেকে আসতে। ঢাকাঢাকি জিনিসটা প্রথমে নিজের স্ত্রীদের ওপর চাপালেন, তারপর চাপালেন সব মুসলিম মেয়েদের ওপর।

তুমি যদি ভালো মেয়ে হও, সৎ হও, ভালো কাজ করো, সৎ চিন্তা করো তোমার বোরখার দরকার হবে না। পুরুষরা তোমার রূপ দেখে, মাথার চুল দেখে, তোমাকে ধর্ষণ করতে চাইবে বলে তুমি মনে করছো। এভাবে ভাবাটা ভুল। সব পুরুষ ধর্ষণ করার জন্য ওৎ পেতে থাকে না। যারা থাকে তারা তুমি বোরখা পরলেও থাকে, না পরলেও থাকে।

তোমার বোরখা পরার মানেই হচ্ছে পুরুষ জাতটা ধর্ষকের জাত, ওদের বিশ্বাস করা মোটেও উচিত নয়। বোরখা যতটা পুরুষদের অসম্মান করে, ততটা নারীদেরও করে না।

বোরখা না পরেও তুমি ধার্মিক হতে পারো। তুমি নামাজ রোজা করো আল্লাহ মানো— এই সাইনবোর্ড শরীরে বহন করাই তো অশালীন। বোরখাটা একটা সাইনবোর্ড। হিজাবটা সাইনবোর্ড। তুমি ধার্মিক— এ স্বয়ং আল্লাহ তায়ালাই খবর রাখছেন। দুনিয়ার তাবৎ লোককে জানানোর কোনও প্রয়োজন নেই। ধর্ম বিশ্বাসটা ব্যক্তিগত ব্যাপার।

এটি অন্যকে দেখিয়ে বেড়াবার জিনিস নয়। পাপ করলেই ‘আমি পাপী নই’ সাইনবোর্ড শরীরে ঝোলাবার দরকার হয় লোকের। পাপ যে যত বেশি করে, ভয় তার তত বেশি বাড়ে। বাড়তি কাপড় পরেই যদি পাপীর দুর্নাম ঘোচে আর নিস্পাপের সার্টিফিকেট জোটে, তাহলে সমাজকে ফাঁকি দিতে ওই সার্টিফিকেটটা তো পাপীরা চাইবেই!

মেয়েরা বোরখা হিজাব পরা বন্ধ করো। এগুলো তোমাদের বোকা বানাবার জিনিস। পুরুষরা বোকা বনতে চায় না বলে পুরুষরা বোরখা হিজাব নেকাব পরে না।

……………………………………………………………………………………….

মুক্ত মতামত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত ও মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। shompadak.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে যার মিল আছে এমন সিদ্ধান্তে আসার কোন যৌক্তিকতা সর্বক্ষেত্রে নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে shompadak.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় গ্রহণ করে না।