বাড়ি অর্থ ও বাণিজ্য *বিকাশের ‘খরচ কমলো’ বিজ্ঞাপন সত্য গোপন করে গ্রাহকদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে *

    *বিকাশের ‘খরচ কমলো’ বিজ্ঞাপন সত্য গোপন করে গ্রাহকদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে *

    13

    *বিকাশের ‘খরচ কমলো’ বিজ্ঞাপন সত্য গোপন করে বিভ্রান্তিকর ধরনের প্রচারণা **বিভিন্ন শর্তে মাত্র একটি প্রিয় এজেন্ট নম্বরে বিকাশের ক্যাশ আউট চার্জ ১৪ টাকা ৯০ পয়সা। এ নিয়ে ‘খরচ কমলো’ বলে ব্যাপক প্রচার প্রচারণার সমালোচনা করে এ অফারকে প্রকৃত অর্থ গ্রাহকদের সঙ্গে শুভঙ্করের ফাঁকি হিসেবে আখ্যায়িত করেছে টেলি কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টিক্যাব)।

    বুধবার (২৪ নভেম্বর) সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলেন টিক্যাবের আহ্বায়ক মুর্শিদুল হক। মুর্শিদুল হক বলেন,‘‘এক ক্যালেন্ডার মাসে প্রিয় এজেন্ট পরিবর্তন করতে না পারা, ক্যাশ আউট লিমিট বেঁধে দেওয়া— এমন অনেক শর্ত হাইলাইট না করে শুধু বিকাশে ‘খরচ কমলো’ বিজ্ঞাপন ব্যাপকভাবে প্রচারের মাধ্যমে গ্রাহকদের বিভ্রান্ত করা হয়েছে বলে আমরা মনে করি।

    এমনকি এ সময়েই বিকাশ থেকে অ্যাপের মাধ্যমে ক্যাশ আউট চার্জ ১৭.৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১৮.৫০ টাকা করা হয়েছে।’’ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, টিক্যাবের পক্ষ থেকে সাধারণ গ্রাহক ও এজেন্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বেশির ভাগ গ্রাহকই বিকাশের বিজ্ঞাপন দেখে ক্যাশ আউট করতে এসে বিভ্রান্ত হয়েছেন। অনেক গ্রাহক এজেন্টদের সঙ্গে বাগবিতন্ডায় জড়িয়েছেন। এজেন্টরা তখন বাধ্য হয়ে বিজ্ঞাপনের নিচে ছোট করে লেখা শর্তগুলো দেখাচ্ছেন।

    আমাদের দেশের মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহারকারী বেশির ভাগ গ্রাহক নিম্ন-মধ্যবিত্ত হওয়ায় তারা এত শর্তের মারপ্যাচে ক্যাশ আউট চার্জ ১৪.৯০ টাকার সুফল নিতে পারছেন না। টিক্যাব আহ্বায়ক আরও বলেন, ‘‘একইভাবে মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস ‘নগদ’ ক্যাশ আউট চার্জ ৯.৯৯ টাকা বলে প্রচারণা চালালেও বাস্তবতা হচ্ছে—

    অ্যাপ থেকে প্রতি হাজারে ভ্যাটসহ ক্যাশ আউট চার্জ ১১.৪৯ টাকা এবং ইউএসএসডিতে ক্যাশ আউট চার্জ ১৪.৯৪ টাকা।’ মুর্শিদুল হক অবিলম্বে সত্য গোপন করে বিভ্রান্তিকর এ ধরনের প্রচারণা বন্ধের জোর দাবি জানান। পাশাপাশি মোবাইল ব্যাংকিংয়ের ক্যাশ আউট চার্জ কমিয়ে সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার দাবি জানান তিনি।

    পূর্ববর্তী নিবন্ধস্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টয়লেটে স’ন্তান প্র’সব করল কৃষক লীগ নে’তার ধ’র্ষণের শি’কার হওয়া ত’রুণী
    পরবর্তী নিবন্ধ*নিজের অধস্তন এক প্রকৌশলীকে গ’লা টি’পে ধরেন নির্বাহী প্রকৌশলী*